বাবা হত্যার বিচারের দাবিতে বাসে বাসে পোস্টার

আমাদের নতুন সময় : 09/12/2019

 

ইসমাঈল ইমু :‘চৌদ্দগ্রামের ত্রাস খুনি ইসমাইল হোসেন ওরফে কিলার বাচ্চুর ফাঁসি চাই’। এমন একটি পোষ্টার দেখা যাচ্ছে রাজধানী ও ঢাকার আশপাশ এলাকায় চলাচলকারী বিভিন্ন বাসের পেছনে। যা দেখে সাধারণ মানুষের মধ্যে জেগে উঠছে নানা প্রশ্ন ফাঁসির রশির মধ্যে থাকা ছবির ব্যক্তিটিই বা কে? কেন পোস্টারে একটি শিশু তার ফাঁসি দাবি করছে।
জানা গেছে, পোস্টারে থাকা ফুটফুটে শিশুটির নাম প্রিথা মনি। যার বাবার নাম জামাল উদ্দিন। গ্রামের বাড়ি কুমিল্লার চৌদ্দগ্রামের আলকড়া ইউনিয়নে। ফাঁসির রশি মাঝে থাকা ব্যক্তির নাম ইসমাইল হোসেন বাচ্চু। তিনি একই ইউনিয়ন পরিষদের সাবেক চেয়ারম্যান। ফুলবাড়িয়া শ্রমিক ইউনিয়নের সাবেক সাধারণ সম্পাদক ও বর্তমানে নবগঠিত বাংলাদেশ সড়ক পরিবহন মালিক-শ্রমিক ঐক্যলীগের সদস্য সচিব। অভিযোগ রয়েছে, প্রিথার বাবা জামাল উদ্দিনের কাছে ৫ লাখ টাকা চাঁদা না পেয়ে বাচ্চু তার সন্ত্রাসী বাহিনী দিয়ে তাকে গুলি করে হত্যা করে। বাচ্চুর বিরুদ্ধে বিচার চেয়ে দ্বারে দ্বারে ঘুরেও কোনো ফল না পেয়ে প্রধানমন্ত্রীর দৃষ্টি আকর্ষণ ও দেশবাসীকে জানাতে এই পোস্টার লাগানো হয়েছে।
জামাল হত্যা মামলার বাদী নিহতের বোন জোহরা আক্তার বলেন, বাচ্চু শুধু তার ভাই জামালকেই হত্যা করেনি। জামাল হত্যার অন্যতম সাাক্ষী স্থানীয় ছাত্রলীগ নেতা সাজ্জাদ হোসেন শাকিলকেও হত্যা করেছে। পরপর দুটি হত্যা করেও নির্বিঘœ চলাচল করায় স্থানীয়দের মধ্যে বাচ্চু ভীতি আরও বেড়ে গেছে।
এ বিষয়ে ইসমাইল হোসেন বাচ্চু বলেন, জামাল ও শাকিল হত্যাকা-ের সঙ্গে আমার কোনো সম্পৃক্ততা নেই। এটি ছিলো একটি রাজনৈতিক হত্যাকা-। আমার বিরুদ্ধে ষড়যন্ত্রমূলকভাবে মামলা দেয়া হয়েছে। যাতে আমি জামিনে আছি। পোস্টার সম্পর্কে তিনি বলেন, এটা জামালের পরিবারের পোস্টার নয়, আমার প্রতিপক্ষ একজন পরিবহন নেতা নিজের টাকা খরচ করে এই পোস্টারিং করছে। কারণ ওই নেতার চাঁদাবাজির বিরুদ্ধে আন্দোলন গড়ে তুলেছি।সম্পাদনা : সমর চক্রবর্তী




সর্বশেষ সংবাদ

সম্পাদক ও প্রকাশক ঃ নাঈমুল ইসলাম খান

১৩২৭, তেজগাঁও শিল্প এলাকা (তৃতীয় তলা) ঢাকা ১২০৮, বাংলাদেশ। ( প্রগতির মোড় থেকে উত্তর দিকে)
ই- মেইল : [email protected]