• প্রচ্ছদ » আমাদের বিশ্ব » ভারতের ত্রিপুরায় কিশোরীকে ধর্ষণের পর পুড়িয়ে হত্যা হরিয়ানায় ধর্ষণের শিকার এক কিশোরীকে আবারও দলবদ্ধধর্ষণ


ভারতের ত্রিপুরায় কিশোরীকে ধর্ষণের পর পুড়িয়ে হত্যা হরিয়ানায় ধর্ষণের শিকার এক কিশোরীকে আবারও দলবদ্ধধর্ষণ

আমাদের নতুন সময় : 09/12/2019


আসিফুজ্জামান পৃথিল : এক কিশোরীকে বন্দি করে রেখে, বন্ধু-বান্ধবদের নিয়ে টানা দুইমাস ধরে ধর্ষণ এবং শেষে পুড়িয়ে মারার অভিযোগ উঠল তারই প্রেমিকের বিরুদ্ধে। অভিযুক্ত ওই যুবককে গ্রেফতার করেছে পুলিশ। ঘটনায় যুক্ত থাকার অভিযোগে গ্রেপ্তার করা হয়েছে তার মাকেও। কিন্তু গোটা ঘটনায় পুলিশের বিরুদ্ধেই নিষ্ক্রিয়তার অভিযোগ এনেছে মেয়েটির পরিবার। থানায় অভিযোগ জানানো সত্ত্বেও পুলিশ মেয়েটিকে বাঁচানোর কোনও চেষ্টাই করেনি বলে দাবি তাদের। আনন্দবাজার
শনিবার ভোররাতে অগ্নিদগ্ধ অবস্থায় নির্যাতিতা ওই কিশোরীকে জিবি পন্থ হাসপাতালে ভর্তি করানো হয়। তার শরীরের ৯০ শতাংশই পুড়ে গিয়েছিলো। সেখানে চিকিৎসা চলাকালীনই মৃত্যু হয় ওই কিশোরীর। ত্রিপুরা পুলিশ সূত্রে জানা গিয়েছে, ফেসবুকে ১৭ বছর বয়সী ওই কিশোরীর সঙ্গে আলাপ হয় অভিযুক্ত অজয়ের। অল্পদিনের মধ্যেই ঘনিষ্ঠ সম্পর্ক গড়ে ওঠে তাদের মধ্যে। সেই মতো দীপাবলির পর মেয়েটির বাড়িতে বিয়ের প্রস্তাব নিয়ে যান অজয়। তার কয়েক দিন পরই জোর করে ওই কিশোরীকে তিনি আটক করে রাখেন এবং ৫০ হাজার টাকা মুক্তিপণের দাবি করেন বলে মেয়েটির পরিবারের অভিযোগ।
স্থানীয় সংবাদমাধ্যমে মেয়েটির মা জানিয়েছেন, মেয়েকে খুঁজে না পেয়ে প্রথমেই পুলিশের কাছে গিয়েছিলেন তারা। অজয় মুক্তিপণ দাবি করলে তাও জানিয়েছিলেন। কিন্তু পুলিশের তরফে কোনওরকম সহযোগিতা মেলেনি। তাই মুক্তিপণের টাকা জোগাড় করতে শুরু করেন তারা। নির্যাতিতার মা বলেন, ‘কোনওরকমে ১৭ হাজার টাকা জোগাড় করেছিলাম। শুক্রবার রাতে চান্দ্রপুর আন্তঃরাজ্য বাস টার্মিনালে অজয়ের মায়ের সঙ্গে দেখা করে টাকা তুলে দেই। কিন্তু মাত্র ১৭ হাজার টাকা পেয়ে অসন্তোষ প্রকাশ করেন উনি। বলেন, মেয়েকে ফেরত পেতে চাইলে যত শীঘ্র সম্ভব পুরো টাকা মিটিয়ে দিতে হবে। এরই মধ্যে মেয়েকে কোথায় আটকে রাখা হয়েছে, তা জানতে পেরেছিলাম আমরা। শনিবার সেখানে যাওয়ার পরিকল্পনা ছিল। তার আগেই ভোরবেলা মেয়ে অগ্নিদগ্ধ অবস্থায় হাসপাতালে ভর্তি বলে খবর পাই।’
এদিকে এ বছরের শুরুতে হরিয়ানার এক কিশোরীকে দলবদ্ধ ধর্ষণ করেছিলো গ্রামের চার জন ব্যক্তি। কিন্তু প্রমাণের অভাবে খারিজ হয়ে যায় সেই অভিযোগ। এই সপ্তাহে সেই চার অভিযুক্ত অপহরণ করে ফের গণধর্ষণ করল ১৭ বছরের ওই কিশোরীকে। এই ঘটনা ঘটেছে হরিয়ানার পালওয়াল জেলাতে। নির্যাতিতাকে ফের গণধর্ষণের কথা শুক্রবার জানিয়েছে পুলিশ।
পালওয়ালের এসপি নরেন্দ্র বিজার্নিয়া বলেছেন, ‘নাবালিকা অভিযোগে জানিয়েছে, ৪ ডিসেম্বর বাড়ি থেকে সে যখন বের হয়, তখন গ্রামের চার জন তাকে অপহরণ করে নির্জন স্থানে নিয়ে যায় ও দলবদ্ধধর্ষণ করে।’ পুলিশ জানিয়েছে, অভিযুক্তদের মধ্যে একজনের বয়স ৪৫ এর আশেপাশে। বাকি দুইজনের বয়স ৩০ এর উপর। অপরজন কিশোর।
ওই নাবালিকার অভিযোগের ভিত্তিতে চারজনের বিরুদ্ধে অভিযোগ দায়ের করেছে পুলিশ। তিনি আরও জানিয়েছেন, এ বছরের শুরুতে ওই কিশোরী এই চার জন অভিযুক্তের বিরুদ্ধে গণধর্ষণের অভিযোগ করেছিলো। কিন্তু অভিযুক্তদের বিরুদ্ধে যথাযথ প্রমাণ না থাকায় খারিজ হয়ে যায় সেই মামলা। পালওয়ালের এসপি বলেছেন, ‘নতুন করে অভিযোগ দায়ের করা হয়েছে। ধর্ষণের শিকার ওই কিশোরীর বয়ানও নথিভুক্ত করে তার মেডিক্যাল চেক আপ করানো হয়েছে।’ সম্পাদনা : ইকবাল খান




সর্বশেষ সংবাদ

সম্পাদক ও প্রকাশক ঃ নাঈমুল ইসলাম খান

১৩২৭, তেজগাঁও শিল্প এলাকা (তৃতীয় তলা) ঢাকা ১২০৮, বাংলাদেশ। ( প্রগতির মোড় থেকে উত্তর দিকে)
ই- মেইল : [email protected]