• প্রচ্ছদ » সর্বশেষ » শারমীন রুম্পা হত্যা মামলায় প্রেমিক সৈকত চার দিনের রিমান্ডে


শারমীন রুম্পা হত্যা মামলায় প্রেমিক সৈকত চার দিনের রিমান্ডে

আমাদের নতুন সময় : 09/12/2019


মামুন খান : রাজধানীর স্টামফোর্ড বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষার্থী রুবাইয়াত শারমিন রুম্পা হত্যা মামলায় প্রেমিক আব্দুর রহমান সৈকতের (২২) চারদিনের রিমান্ড মঞ্জুর করেছেন আদালত। শুনানি শেষে গতকাল রোববার ঢাকা মেট্টোপলিটন ম্যাজিস্ট্রেট মামুনুর রশীদ এ আদেশ দেন।
মামলার তদন্ত কর্মকর্তা ডিবি পুলিশের পরিদর্শক শাহ্ মো. আকতারুজ্জামান ইলিয়াস আসামিকে আদালতে হাজির করে সাত দিনের রিমান্ড আবেদন করেন।
আবেদনে বলা হয়, রুবাইয়াত শারমিন রুম্পা (২১) স্টামফোর্ড ইউনিভার্সিটির ইংরেজী সাহিত্যের অনার্স ১ম বর্ষের ছাত্রী ছিলেন । আব্দুর রহমান সৈকত স্টামফোর্ড ইউনিভার্সিটির বিবিএ ছাত্র ছিল। সেই সুবাধে রুবাইয়াত শারমিন রুম্পার সাথে সৈকত পরিচয়সহ ভালোবাসার সম্পর্ক ছিল মর্মে প্রত্যক্ষ ভাবে সাক্ষ্য প্রমাণ পাওয়া যাচ্ছে। ইতিমধ্যে তাদের ভালোবাসার সম্পর্কের অবনতি হয়। ঘটনার দিন ৪ ডিসেম্বর বিকেল চারটার দিকে সৈকতের সাথে রুম্পাকে স্টামফোর্ড ইউনিভার্সিটি সিদ্ধেশ্বরী ক্যাম্পাসের বাইরে রাস্তায় দেখা হয়। তখন প্রেম ভালোবাসা বিষয় নিয়ে কথা উঠলে সৈকত কোন যৌক্তিক কারণ ছাড়াই সম্পর্ক ছিন্ন করার জন্য রুম্পাকে অনুরোধ করে। সম্পর্ক ছিন্ন করার কথা বলায় তাদের মধ্যে মনোমালিন্যসহ বিরোধ চরম আকার ধারণ করে মর্মে সাক্ষ্য প্রমাণ আসতেছে। এরই প্রেক্ষিতে মনোমালিন্যের পর ৪ ডিসেম্বর রাত ৮ টা ৪৫ মিনিটের দিকে ভিকটিমকে আসামিসহ তার সহযোগী অজ্ঞাতনামা আসামিরা মিলে হত্যা করে লাশ ৬৪/৪ সিদ্ধেশীর সার্কুলার রোডস্থ বাসার সামনের ছাদ থেকে ফেলে দেয় মর্মে প্রাথমিক ভাবে জোর সন্দেহ করা হচ্ছে।
মামলার সুষ্ঠ তদন্ত ও ন্যায় বিচারের স্বার্থে আসামির সাত দিনের রিমান্ড মঞ্জুরের প্রার্থণা করেন তদন্ত কর্মকর্তা। সৈকতকে দুপুরে আদালতে হাজির করা হয়। তাকে ঢাকা সিএমএম আদালতের হাজতখানায় রাখা হয়। বেলা ৩ টা ১০ মিনিটের দিকে তাকে আদালতে তোলা হয়। এরপর রিমান্ড শুনানি অনুষ্ঠিত হয়।
প্রথমে রাষ্ট্রপক্ষে রমনা থানার আদালতের সাধারণ নিবন্ধন কর্মকতা মাহমুদুর রহমান ডিবি পুলিশের রিমান্ড আবেদন পড়ে শোনান। রাষ্ট্রপক্ষে সহকারি পাবলিক প্রসিকিউটর হেমায়েত উদ্দিন খান (হিরণ) রিমান্ড মঞ্জুরের প্রার্থণা করেন। শুনানিতে তিনি বলেন, আসামি এবং ভিকটিম স্টামফোর্ড বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষার্থী। সেখানে পড়াশোনাকালে মনের দেয়ালটা প্রেমের সম্পর্কে জড়ায়। ঘটনার দিন স্টামফোর্ডের বাইরে রাস্তায় তাদের মনোমালিন্য হয়। আসামি সম্পর্ক না রাখার কথা বলে। ঘটনাস্থলে তাদের বাকবিতন্ডা হয়। পরে তাকে ঘটনাস্থলে নিয়ে হত্যা করে ফেলে দিয়েছে। কোন কৌশলে হত্যা, ঘটনার মোটিভ, সহযোগী আসামিদের গ্রেফতারের জন্য সাত দিনের রিমান্ড মঞ্জুরের প্রার্থণা করেন তিনি।
আসামিপক্ষে আব্দুল হামিদ ভূইয়া রিমান্ড বাতিলপূর্বক জামিনের প্রার্থণা করেন। সৈকত ভিকটিমের কারণে ভার্সিটি ত্যাগ করেছে আসামিপক্ষের আইনজীবীর এ কথা পরিপ্রেক্ষিতে রাষ্ট্রপক্ষের আইনজীবী হেমায়েত উদ্দিন খান (হিরণ) বলেন, যদি আসামিকে ভিকটিমের কারণে ভার্সিটি ত্যাগ করতে হয় তাহলে তার মধ্যে একটা ক্ষোভ ছিল। আর এ ক্ষোভ থেকে আসামি এ হত্যাকান্ড ঘটিয়েছে। রুম্পা হত্যার দৃশ্য হৃদয় বিদারক দৃশ্যের অবতারণা করেছে। আসামির রিমান্ড মঞ্জুরের প্রার্থণা করছি। উভয়পক্ষের শুনানি শেষে আদালত জামিন নামঞ্জুর করে সৈকতের চার দিনের রিমান্ডের আদেশ দেন। সম্পাদনা : ইকবাল খান




সর্বশেষ সংবাদ

সম্পাদক ও প্রকাশক ঃ নাঈমুল ইসলাম খান

১৩২৭, তেজগাঁও শিল্প এলাকা (তৃতীয় তলা) ঢাকা ১২০৮, বাংলাদেশ। ( প্রগতির মোড় থেকে উত্তর দিকে)
ই- মেইল : [email protected]