• প্রচ্ছদ » প্রথম পাতা » আওয়ামী লীগের সম্মেলন : ১০২ বাই ৪০ ফুট মঞ্চ দেখে মনে হবে পদ্মার বুকে ভাসছে বিশাল নৌকা, থাকবে স্বপ্নের পদ্মা সেতু


আওয়ামী লীগের সম্মেলন : ১০২ বাই ৪০ ফুট মঞ্চ দেখে মনে হবে পদ্মার বুকে ভাসছে বিশাল নৌকা, থাকবে স্বপ্নের পদ্মা সেতু

আমাদের নতুন সময় : 10/12/2019

 

সমীরণ রায় : ক্ষমতাসীন দল আওয়ামী লীগের ২১তম জাতীয় সম্মেলন আগামী ২০-২১ ডিসেম্বর। এতে করে নেতাকর্মীদের মধ্যে প্রাণচাঞ্চল্যা দেখা দিলেও আতঙ্কে দিন কাটছে হেভিওয়েট নেতাদের। সম্প্রতি ক্যাসিনো ব্যবসা, টেন্ডারবাজি, চাঁদাবাজি ও অনৈতিক কর্মকা-ের সঙ্গে জড়িত থাকারা অভিযোগ ওঠে দলটির সহযোগী এবং ভ্রাতৃপ্রতিম সংগঠন যুবলীগ, কৃষক লীগ, স্বেচ্ছাসেবক লীগ ও ছাত্রলীগের কয়েকজনের বিরুদ্ধে। শুদ্ধি অভিযানে এরই মধ্যে বেশ কয়েকজন কারাগারে রয়েছেন। এমন অভিযোগ মূল দল আওয়ামী লীগের কিছু হেভিওয়েট নেতার বিরুদ্ধেও রয়েছে। কিন্তু দলের ভাবমূর্তি ঠিক রাখতে তাদের বিরুদ্ধে শুদ্ধি অভিযান চালানো হয়নি। একাধিক সূত্রের মতে, সেই শুদ্ধি অভিযান চালানো হবে দলের সম্মেলনের মধ্য দিয়ে। আওয়ামী লীগের যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক আব্দুর রহমান বলেন, প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা অন্যান্য সহযোগী সংগঠনের নেতৃত্বে ইতিবাচক পরিবর্তন এনেছেন। আশাকরি আওয়ামী লীগের এমন পরিবর্তন আসবে। যাদের বিরুদ্ধে অনৈতিক কর্মকা-ের অভিযোগ রয়েছে, তাদের বিষয়টি ভেবে দেখবেন।
জানা গেছে, ইতোমধ্যে সরকারি-বেসরকারি বিভিন্ন গোয়েন্দা সংস্থার রিপোর্ট প্রধানমন্ত্রীর হাতে রয়েছে। ওই রিপোর্টের ভিত্তিতে একটি তালিকা করেছেন তিনি। অর্থাৎ যারা ক্ষমতার দাপট দেখিয়ে বিভিন্ন অনৈতিক কর্মকা-ের সঙ্গে জড়িত তারা আগামী কমিটিতে থাকছেন না। এই পরিবর্তনের বা বাদ পড়া জায়গাগুলোতে তরুণ ও নতুনরা গুরুত্ব পাবেন। ছাত্রলীগ থেকে ওঠে আসা নেতা, বিশেষ করে যারা সংগঠনটির সভাপতি-সাধারণ সম্পাদক বা শীর্ষ পর্যায়ের নেতৃত্বে ছিলেন এবং বর্তমানে আওয়ামী লীগের রাজনীতিতে ভূমিকা রাখছেন, তাদের একটি অংশ স্থান পাবেন। তবে দলের গঠনতন্ত্রে বড় কোনো পরিবর্তন আসছে না।
আওয়ামী লীগের তথ্য ও গবেষণা সম্পাদক অ্যাডভোকেট আফজাল হোসেন বলেন, এবার নবীন-প্রবীনের সমন্বয়ে হচ্ছে আওয়ামী লীগের নতুন কমিটি। যাদের বিরুদ্ধে কোনো অনৈতিক কর্মকা-ের সঙ্গে জড়িত থাকার অভিযোগ রয়েছে, তাদের বিষয়টি প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা ব্যবস্থা নেবেন।
এদিকে, সম্মেলনকে সামনে রেখে প্রস্তুতি নিতে নিয়মিত কাজ করছে ১১টি উপ-কমিটি। এছাড়াও সম্মেলনকে ঘিরে রাজধানীর ঐতিহাসিক সোহরাওয়ার্দী উদ্যানে দ্রুত চলছে মঞ্চের কাজ। মূল মঞ্চটি হবে ১০২ ফুট দীর্ঘ, ৪০ ফুট প্রশস্ত। মঞ্চ দেখে মনে হবে যেন পদ্মা নদীর বুকে ভেসে বেড়াচ্ছে একটি বিশাল নৌকা। সেই নৌকার চারপাশজুড়ে থাকছে প্রমত্ত পদ্মার বিশাল জলরাশি। এর মধ্যে থাকছে স্বপ্নের পদ্মা সেতুও। সেতুতে থাকবে ৪০টি পিলার। পদ্মার জলতরঙ্গ, পদ্মার বুকে ঘুরে বেড়ানো ছোট ছোট নৌকা, এমনকি চরের মধ্যে কাশবনের উপস্থিতিও থাকবে। ২০ ডিসেম্বর সম্মেলনের সূচনা হলেও ১৫ ডিসেম্বরের মধ্যেই সোহরাওয়ার্দী উদ্যান সম্পূর্ণ প্রস্তুত হয়ে যাবে। এরপর ১৬ থেকে ১৯ ডিসেম্বর পর্যন্ত চার দিন সম্মেলনস্থল থাকবে সর্বসাধারণের জন্য উন্মুক্ত।
এ সম্মেলনে সারা দেশ থেকে কাউন্সিলর, ডেলিগেটসহ ৫০ হাজার নেতা-কর্মী অংশ নেয়ার কথা রয়েছে। পরদিন ২১ ডিসেম্বর ইঞ্জিনিয়ার্স ইনস্টিটিউশন প্রাঙ্গণে অনুষ্ঠিত হবে দলের কাউন্সিল অধিবেশন। সম্পাদনা: মাসুদ কামাল।




সর্বশেষ সংবাদ

সম্পাদক ও প্রকাশক ঃ নাঈমুল ইসলাম খান

১৩২৭, তেজগাঁও শিল্প এলাকা (তৃতীয় তলা) ঢাকা ১২০৮, বাংলাদেশ। ( প্রগতির মোড় থেকে উত্তর দিকে)
ই- মেইল : [email protected]