• প্রচ্ছদ » প্রথম পাতা » নিঃসঙ্গতা, একাকিত্ব ও বিষণতা সন্তানদের বিপথে যাওয়ার প্রধান কারণ, বললেন স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী


নিঃসঙ্গতা, একাকিত্ব ও বিষণতা সন্তানদের বিপথে যাওয়ার প্রধান কারণ, বললেন স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী

আমাদের নতুন সময় : 10/12/2019


মাসুদ আলম : গতকাল কুড়িল আন্তর্জাতিক কনভেনশন সিটি বসুন্ধরায় ‘উগ্রবাদ বিরোধী জাতীয় সম্মেলন-২০১৯’ এর সমাপনী দিনে প্রধান অতিথির বক্তব্যে এসব কথা বলেন আসাদুজ্জামান খাঁন কামাল। ছেলেমেয়েরা কে কী করছে সেদিকে প্রত্যেক অভিভাবককে খেয়াল রাখার অনুরোধ জানিয়েছেন স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী । তিনি বলেন, জঙ্গিবাদের পথে যেন পা না বাড়ায় সে জন্য ছেলেমেয়েদের একাকিত্ব-বিষণœতা থেকে বের করে বিভিন্ন কার্যক্রমে অন্তর্ভুক্ত করতে হবে। এজন্য পরিবারকে সবচেয়ে বড় দায়িত্ব পালন করতে হবে। যৌথভাবে সিটিটিসি, ইউএস-এইড ও ইউএন এই সম্মেলনের আয়োজন করেছে ।

স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী বলেন, সন্ত্রাস ও জঙ্গিবাদ দমনে বাংলাদেশ রোল মডেল। জঙ্গি দমনে আমরা অনেকটা সফল হয়েছি। বাংলাদেশ শান্তি প্রিয় দেশ, সেদেশে জঙ্গি আসবে এটা বিশ^াস করতে পারিনা। আমাদের হাজার বছরের ইতিহাস দেখুন, জঙ্গি ও সন্ত্রাসবাদের জায়গা আমাদের দেশে ছিলো না। হঠাৎ করে দেখলাম টার্গেট কিলিং শুরু হলো। আমরা অ্যানালাইসিস করে দেখেছি, প্রত্যেকটি ঘটনায় জড়িত ছিলো দেশীয় সন্ত্রাসী। একটা উদ্দেশ্য নিয়ে, বাংলাদেশকে অকার্যকর রাষ্ট্রে পরিণত করার জন্য সবগুলোই সন্ত্রাসীদের একত্রিত কর্মকা-।
তিনি আরও বলেন, সারা দেশের মানুষ জঙ্গিবাদের বিরুদ্ধে দাঁড়ালো। মা তার ছেলেকে ধরিয়ে দিচ্ছে। খুঁজে বের করার চেষ্টা করলাম- কেন এই সন্ত্রাস কেন এই জঙ্গিবাদের উত্থান। এক্ষেত্রে গুরুত্বপূর্ণ অনেক তথ্য পেয়েছি। সত্যিকার অর্থে বাংলাদেশের কোনো মাদরাসায় জঙ্গিবাদ তৈরিতে সহযোগিতা করে না, করতে পারে না। কারণ ইসলাম জঙ্গিবাদ ও সন্ত্রাসীদের আশ্রয়-প্রশ্রয় দেয়ার কথা বলে না। অন্য কোনো ধর্ম মানুষ হত্যা ও জঙ্গিবাদ সমর্থন করেনা।
তিনি বলেন, আমরা সব ধর্মের প্রধানদের নিয়ে ঢাকায় একটা সভা করলাম। সিদ্ধান্ত নিলাম আমরা প্রত্যেকে ডিভিশনে যাব মানুষকে বোঝাব বাংলাদেশে কোনো ধর্মে জঙ্গি-সন্ত্রাসীদের স্থান নেই, কেউ যেন জঙ্গিবাদকে, সন্ত্রাসীদের উৎসাহিত না করে। সবাই মিলে কাজ করলে জঙ্গিবাদ দমন করা সম্ভব হবে। সম্পাদনা : খালিদ আহমেদ




সর্বশেষ সংবাদ

সম্পাদক ও প্রকাশক ঃ নাঈমুল ইসলাম খান

১৩২৭, তেজগাঁও শিল্প এলাকা (তৃতীয় তলা) ঢাকা ১২০৮, বাংলাদেশ। ( প্রগতির মোড় থেকে উত্তর দিকে)
ই- মেইল : [email protected]