• প্রচ্ছদ » সর্বশেষ » মুক্তিযুদ্ধের প্রথম শব্দই ছিলো ‘গণতন্ত্র’, গণতন্ত্রের অপমৃত্যু হয়েছে এখানে, বললেন


মুক্তিযুদ্ধের প্রথম শব্দই ছিলো ‘গণতন্ত্র’, গণতন্ত্রের অপমৃত্যু হয়েছে এখানে, বললেন

আমাদের নতুন সময় : 10/12/2019

ডা. জাফরুল্লাহ চৌধুরী

আশিক রহমান : গণস্বাস্থ্য কেন্দ্রের প্রতিষ্ঠাতা ডা. জাফরুল্লাহ চৌধুরী বলেছেন, বিগত ৪৮ বছরে আমাদের অর্জন অনেক। আমাদের অর্থনৈতিক অগ্রগতিও উৎসাহজনক। বিভিন্ন সামাজিক সূচকেও বেশ ভালো অবস্থানে আছি। কিন্তু দেশে গণতন্ত্র প্রতিষ্ঠিত করতে পারিনি বলে সব অর্জনই যেন ম্লান লাগে। এখানে এখনো গণতন্ত্র প্রতিষ্ঠিত হয়নি। মানুষের কথা বলার স্বাধীনতা আজ পর্যন্ত অর্জিত হয়নি। এই দায় রাজনৈতিক নেতৃবৃন্দের। জনগণেরও ব্যর্থতা আছে। আমরা সাধারণ মানুষ রাজনৈতিক নেতৃবৃন্দের উপর চাপ সৃষ্টি করতে পারিনি। তাদের সঠিক পথে রাখতে পারিনি।
তিনি আরও বলেন, পঁচাত্তরের পনের আগস্ট বঙ্গবন্ধুকে হত্যা ছিলো অত্যন্ত মর্মান্তিক ঘটনা। ঠিক একই মর্মান্তিক ঘটনার পুনরাবৃত্তি ঘটেছে ২৯ ডিসেম্বর ২০১৮ সালের বিতর্কিত নির্বাচনের মাধ্যমে। ১৫ আগস্ট একজন ব্যক্তিকে হত্যা করা হয়েছিলো, ২৯ ডিসেম্বর ২০১৯ সালের জনগণের ভোটের অধিকার হত্যা করা হয়েছে। রাজনৈতিক নেতৃবৃন্দ স্বেচ্ছাচারিতার এমন এক জায়গায় পৌছেছেন যে, মানুষের কণ্ঠরোধ করে দিয়েছেন। একটা রাজনৈতিক দলেও গণতন্ত্র প্রতিষ্ঠিত হয়নি। মুক্তিযুদ্ধের প্রথম শব্দই ছিলো ‘গণতন্ত্র’। গণতন্ত্রের অপমৃত্যু হয়েছে বাংলাদেশে।
গণতন্ত্র প্রতিষ্ঠায় বিরোধী দলের ভূমিকা খুবই গুরুত্বপূর্ণ। কিন্তু এখানে কি তারা তাদের সেই ভূমিকা পালন করার সুযোগ পায়। দেয়া হয়? তারা চাইলেও তো উল্লেখযোগ্য কিছু করার সুযোগ নেই। এখানে সরকারের দায়িত্বই বেশি। কিন্তু সরকার কোনো মিটিং-মিছিল করতে দেয় না। কেন দেয় না? দিলে কী এমন ক্ষতি সরকারের, আমি বুঝি না। মানুষের গণতান্ত্রিক অধিকার ভোগ করতে না দিলে কীভাবে প্রতিষ্ঠিত হবে গণতন্ত্র। সম্পাদনা: মাসুদ কামাল।




সর্বশেষ সংবাদ

সম্পাদক ও প্রকাশক ঃ নাঈমুল ইসলাম খান

১৩২৭, তেজগাঁও শিল্প এলাকা (তৃতীয় তলা) ঢাকা ১২০৮, বাংলাদেশ। ( প্রগতির মোড় থেকে উত্তর দিকে)
ই- মেইল : info@amadernotunshomoy.com