খালেদা জিয়ার মেডিকেল রিপোর্ট পাল্টানোর চেষ্টা চলছে, দাবি ফখরুলের

আমাদের নতুন সময় : 12/12/2019

শিমুল মাহমুদ : গতকাল বুধবার গুলশানের হোটেল লেক শোরে ‘আন্তর্জাতিক মানবাধিকার দিবস’ উপলক্ষে এক গোলটেবিল বৈঠকে তিনি একথা বলেন। বৈঠকে যুক্তরাষ্ট্্র, যুক্তরাজ্য, ভারত, রাশিয়া, ইউরোপীয় ইউনিয়ন, বিভিন্ন আন্তর্জাতিক সংস্থাসহ ১৫ টি দেশের কূটনীতিকরা অংশ নেন।
বিএনপির মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর বলেন, আমরা যেটুকু জানতে পেরেছি, বিএসএমএমইউ হাসপাতালের কর্তৃপক্ষ যে রিপোর্ট দিয়েছিলেন, সেই রিপোর্টটিকে সরিয়ে দিয়ে অন্য কোনো রিপোর্ট দেয়ার ব্যবস্থা করা হচ্ছে। তিনি বলেন, আমরা খুব পরিষ্কারভাবে লক্ষ্য করছি, অত্যন্ত সচেতনভাবে বিএনপি চেয়ারপারসনকে বেআইনিভাবে কারাগারে আটক করে রাখার জন্য সরকার কাজ করছে এবং এভাবে তারা বড় রকমের মানবাধিকার লঙ্ঘন করছে। বৈঠকে গত ৩০ নভেম্বর উপাচার্যের গঠিত মেডিকেল বোর্ডের রিপোর্টটি পড়ে শোনান ফখরুল। যেখানে খালেদা জিয়ার অবস্থা ‘ক্রিপল স্টেইজ’ উল্লেখ করে তার উন্নত চিকিৎসার কথা বলা হয়েছে।
মির্জা ফখরুল বলেন, খালেদা জিয়ার যে ধরনের মামলার জন্যে সাজা হয়েছে সে একই ধরনের মামলায় অন্য আসামীরা জামিন হয়ে গেছে, তারা জামিনে আছেন। কিন্তু বেগম জিয়াকে জামিন দেয়া হচ্ছে না। প্রতিবারই তাকে বিভিন্নভাবে সরকার তার জামিনকে বাধাগ্রস্থ করছে।
‘বাংলাদেশে মানবাধিকার পরিস্থিতি ভয়াবহ’ : মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর বলেন, আমরা অত্যন্ত দুখের সঙ্গে লক্ষ্য করেছি যে, গত ১০ বছরে বাংলাদেশের শুধুমাত্র ভিন্নমত, ভিন্ন রাজনৈতিক চিন্তার কারণে প্রায় ৩৫ লাখ মানুষকে মামলার আসামী করা হয়েছে রাজনৈতিক মামলা এবং মামলা দেয়া হয়েছে প্রায় ১ লাখ ৪ হাজার ৮১৪টি। এর মধ্যে ২০০৯ থেকে ২০১৯ পর্যন্ত সরকারের হাতে এবং আওয়ামী লীগের হাতে বিরোধী দলের নেতা-কর্মীরা মারা গেছেন ১৫২৬ জন এবং ডিসএপিয়ার বা নিখোঁজ হয়েছে আমাদের হিসাব মতে বিএনপির ৪২৩ জন এবং এজ এ হোল(সব মিলিয়ে) ৭৮১ জন।
বৈঠকে ‘নিখোঁজ’ হয়ে যাওয়া নেতা-কর্মীদের স্বজনরা তাদের প্রিয়জনের সন্ধান চেয়ে অশ্রুসজল কন্ঠে বক্তব্য রাখেন। শুরুতে বিএনপির সম্পাদনায় ২০০৯ সাল থেকে ২০১৯ সালের অক্টোবর পর্যন্ত সময়ে মানবাধিকার লঙ্ঘনের নানা তথ্য সম্বলিত গ্রস্থ ‘এবসেন্স অব ডেমোক্রেসি এন্ড সিষ্টেমেটিক হিউম্যান রাইটস ভায়োলেশনস বাই স্টেট এ্যাপারেটাস’ এর মোড়ক উন্মোচন করেন বিএনপি মহাসচিব। পরে গ্রন্থের ওপর তথ্য চিত্র তুলে ধরেন ডা. সাখাওয়াত হোসেন সায়ান্থ। এরপর দলের মানবাধিকার সম্পাদক অ্যাডভোকেট আসাদুজ্জামান সূচনা বক্তব্যে বাংলাদেশের মানবাধিকার পরিস্থিতি তুলে ধরেন। সম্পাদনা : সমর চক্রবর্তী, ইকবাল খান




সর্বশেষ সংবাদ

সম্পাদক ও প্রকাশক ঃ নাঈমুল ইসলাম খান

১৩২৭, তেজগাঁও শিল্প এলাকা (তৃতীয় তলা) ঢাকা ১২০৮, বাংলাদেশ। ( প্রগতির মোড় থেকে উত্তর দিকে)
ই- মেইল : [email protected]