• প্রচ্ছদ » প্রথম পাতা » মালিকের গাফিলতিতে কেরাণীগঞ্জের অগ্নিকা- ঘটেছে, জানালেন স্বাস্থ্যমন্ত্রী


মালিকের গাফিলতিতে কেরাণীগঞ্জের অগ্নিকা- ঘটেছে, জানালেন স্বাস্থ্যমন্ত্রী

আমাদের নতুন সময় : 12/12/2019

 

সুজন কৈরী : বৃহস্পতিবার ঢাকা মেডিকেল কলেজ (ঢামেক) হাসপাতালের বার্ন ইউনিটে কেরানীগঞ্জের অগ্নিদগ্ধদের অবস্থা পরিদর্শনের পর তিনি সাংবাদিকদের এ কথা বলেন।
বেলা পৌনে ১১টার দিকে স্বাস্থ্যমন্ত্রী ঢামেকে আসেন। সোয়া ১১টার দিকে তিনি দগ্ধদের দেখে বের হন।
সাংবাদিকদের তিনি বলেন, দগ্ধদের সবার অবস্থাই খ্বু ক্রিটিক্যাল। দুয়েকজন ছাড়া সবারই ৫০ থেকে ১০০ শতাংশ পর্যন্ত পুড়ে গেছে। ঢামেকের বার্ন ইউনিট থেকে ১১ জনকে শেখ হাসিনা বার্ন অ্যান্ড প্লাস্টিক সার্জারি ইনস্টিটিউটে স্থানান্তর করা হয়েছে। দরকার হলে আরও রোগী সেখানে স্থানান্তর করা হবে। তিনি বলেন, ঘটনাটি খুবই দুঃখজনক। হাসপাতালের চিকিৎসক নার্সসহ স্টাফরা অনেক কষ্ট করছেন। এখনও যারা ভর্তি আছেন, তাদের অবস্থাও খারাপ। প্রধানমন্ত্রী সার্বক্ষণিক খবর রাখছেন। সরকারি খরচে চিকিৎসার নির্দেশনা দিয়েছেন।
স্বাস্থ্যমন্ত্রী বলেন, অনেক কারখানা আছে যারা নিয়মকানুন মেনে কাজ করে না। অনেক জায়গায় ফায়ার সার্ভিসের গাড়ি ঢুকতে পারে না। এ বিষয়ে মালিকদের সতর্ক থাকতে হবে। তাদের উদাসীনতার কারণেই আজ এই অগ্নিকা-ের ঘটনাটি ঘটেছে। যেখানে আগুন লেগেছে, সেখানে নিশ্চয়ই আগুন নেভানোর সরঞ্জাম ছিলো না। পুরান ঢাকার কয়েক জায়গায় অগ্নিকা-ের ঘটনা ঘটেছে। এ জন্য সরকার তাদের জন্য বড় জায়গা করে রেখেছে। পুরান ঢাকার কেমিকেল গোডাউনগুলো সেখানে নিয়ে যাওয়া হবে। সব কারকানায় ফায়ার সেফটি রাখতে হবে।
দুর্জয় নামে একজন রোগী ছিলো। নিজ ইচ্ছায় তাকে স্বজনরা বাসায় নিয়ে গেছে।
বার্ন ইউনিটের সমন্বয়ক ডা. সামন্ত লাল সেন বলেছেন, আমার জীবনে দেখা সবচেয়ে ভয়াবহ ইনজুরি এটা। বদ্ধ ঘরের ভেতরে ছিল আগুন। যেহেতু প্লাস্টিকের কারখানা, মুহূর্তের মধ্যেই আগুন ঘরের ভেতরে ছড়িয়ে পড়েছে। ভর্তি হওয়া রোগীদের সবগুলোই মেজর। সম্পাদনা : সমর চক্রবর্তী




সর্বশেষ সংবাদ

সম্পাদক ও প্রকাশক ঃ নাঈমুল ইসলাম খান

১৩২৭, তেজগাঁও শিল্প এলাকা (তৃতীয় তলা) ঢাকা ১২০৮, বাংলাদেশ। ( প্রগতির মোড় থেকে উত্তর দিকে)
ই- মেইল : [email protected]