• প্রচ্ছদ » » মোবাইলের কানাগলিতে হারিয়ে যাচ্ছে কৈশোর


মোবাইলের কানাগলিতে হারিয়ে যাচ্ছে কৈশোর

আমাদের নতুন সময় : 13/12/2019

ইমরুল শাহেদ : আধুনিক যুগের বুকের উপর দাঁড়িয়ে বিশ্ব প্রবেশ করছে তথ্য-প্রযুক্তির যুগে। স্বভাবতই বদলে যাচ্ছে সমাজচিত্র। পরিবর্তন আসছে জীবনের সর্বস্তরেই। চলচ্চিত্রের ক্ষেত্রেও এই পরিবর্তন লক্ষ্য করা যাচ্ছে। বিশেষ করে যারা মৌলিক চিন্তাধারার মানুষ, তারা সমকালীন জীবন থেকেই খুঁজে নিচ্ছেন তাদের সৃজনশীলতার উপজীব্য। তবে এ বিষয়টি এ দেশের নির্মাতাদের স্পর্শ না করলেও কলকাতার নির্মাতারা নতুন বিষয়, নতুন উপজীব্য এবং ভিন্ন চিন্তাধারার চলচ্চিত্র নির্মাণ করার বিষয়ে বরাবরই নিবেদিত। এবার চাকরিজীবী বাবা-মায়ের নিঃসঙ্গ সন্তান, মোবাইলের জালে ক্রমশ আটকে পড়া কিশোর এবং তা থেকে বিপদ… ইত্যকার বিষয় নিয়ে চলচ্চিত্র নির্মাণ করছেন রাজ চক্রবর্তী। ছবির নাম ‘হাবজি গাবজি’। এর আগে তিনি নির্মাণ করেছেন ‘পরিণীতা’ এবং ‘ধর্মযুদ্ধ’। ‘হাবজি গাবজি’ ছবিটির মুখ্য চরিত্রে অভিনয় করছেন পরমব্রত চট্টোপাধ্যায় এবং শুভশ্রী। প্রশ্ন হচ্ছে এই ধারার চলচ্চিত্র নির্মাতাদের ছবিতে কারা অভিনয় করছেন সেটা মুখ্য বিষয় নয়। কারণ চলচ্চিত্র হচ্ছে পরিচালকের মাধ্যম। এ নিয়ে বিশ্বসেরা পরিচালক রোমান পোলানস্কি বলেছেন, ‘পরিচালকই সুপারস্টার। তিনি ছবি বানান, তিনি ছবি সৃষ্টি করেন’। ঋত্বিক কুমার ঘটক বলেছেন, ‘একটি ছবির প্রথম ফ্রেম থেকে শেষ ফ্রেম পর্যন্ত পরিচালকের সন্তান’। আত্মবিশ্বাসহীন যারা বাণিজ্যিক ছবির নামে তারকাদের বাজারজাত করে বাজার মাত করতে চান কেবল তারাই তারকা দিয়ে ছবি বানানোর অপেক্ষায় থাকেন। ঢাকার চলচ্চিত্রে এখন এমন সব পরিচালকের আবির্ভাব ঘটছে যারা চলচ্চিত্রের ভাষা সম্পর্কে অজ্ঞ। যা খুশি শুট করে এনে বলছেন, এটাই চলচ্চিত্র। কিন্তু এখনকার দর্শকের হাতেই থাকে বিনোদন যন্ত্র। তারা হলিউড, বলিউডের সর্বশেষ মুক্তি পাওয়া ছবিটি সম্পর্কেও ওয়াকিফহাল। তারা অনুপ্রেরণা হিসেবে যেসব উৎস থেকে উপাদান সংগ্রহ করছেন সেগুলো সম্পর্কে দর্শক আগে থেকেই জানেন। তারা নতুন আইডিয়ার ধার ধারেন না। নতুন ছবির অনুপ্রেরণা নিয়ে রাজ বলেছেন, ‘চারপাশে যাকেই দেখি, সে-ই মোবাইলে মগ্ন। কারও সঙ্গে কথা বলার ফুরসত নেই। বাড়িতে ভাগ্নিকে দেখি, হেডফোন গুঁজে মোবাইলে কী করে যাচ্ছে। জিজ্ঞেস করলে বলে, পাবজি খেলছি’। পাশাপাশি কিশোরদের মধ্যে বাড়তে থাকা মোবাইল আসক্তি নিয়ে সংবাদপত্রে লেখালিখিও এই গল্পের পেছনে অনুঘটক হিসেবে কাজ করেছে। এটাকে সামাজিক অবক্ষয় বলা হবে, নাকি সামাজিক অগ্রগতি বলা হবে, সেটা কালান্তরেই বোঝা যাবে।




সর্বশেষ সংবাদ

সম্পাদক ও প্রকাশক ঃ নাঈমুল ইসলাম খান

১৩২৭, তেজগাঁও শিল্প এলাকা (তৃতীয় তলা) ঢাকা ১২০৮, বাংলাদেশ। ( প্রগতির মোড় থেকে উত্তর দিকে)
ই- মেইল : [email protected]