হত্যার আলামত পায়নি পুলিশ, আত্মহত্যা করেছেন রুম্পা!

আমাদের নতুন সময় : 13/12/2019


সুজন কৈরী, মামুন খান : স্টামফোর্ড বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষার্থী রুবাইয়াত শারমিন রুম্পা (২১) নিজেই ছাদ থেকে লাফ দিয়ে আত্মহত্যা করেছেন বলে ধারণা করছে পুলিশ। তাকে ছাদ থেকে ফেলে দিয়ে হত্যা করা হয়েছে বলে পরিবারের সদস্যরা দাবি করলেও এর পক্ষে কোনো আলামত খুঁজে পায়নি পুলিশের তদন্তকারীরা। রুম্পার মৃত্যুর ঘটনায় তার প্রেমিক আবদুর রহমান সৈকতকে চারদিনের রিমান্ড শেষে গতকাল আদালতে সোপর্দ করে। পরে আদালত তাকে কারাগারে পাঠানোর আদেশ দেন। ঢাকা মহানগর গোয়েন্দা পুলিশের দক্ষিণ বিভাগের এডিসি রাজীব আল মাসুদ বলেন, রুম্পাকে হত্যা করা হয়েছে, শুরু থেকে এমন অভিযোগ পাওয়া গেলেও আমাদের তদন্তে এখনো হত্যার কোনো আলামত পাওয়া যায়নি। রুম্পার প্রেমিক সৈকতকে চারদিনের রিমান্ডে নিয়ে জিজ্ঞাসাবাদ করা হয়েছে। এরপর শুক্রবার আদালতে হাজির করা হলে তাকে কারাগারে পাঠানোর আদেশ দেন আদালত।
রুম্পার মৃত্যুর ঘটনায় তদন্ত সংশ্লিষ্ট এক কর্মকর্তা বলেন, সৈকতসহ একাধিক ব্যক্তিকে জিজ্ঞাসাবাদ ও তদন্তে পাওয়া সাক্ষ্য-প্রমাণের ভিত্তিতে জানা গেছে, রূম্পা আয়েশা কমপ্লেক্স ভবনের ছাদ থেকে লাফ দিয়ে আত্মহত্যা করেছেন। আত্মহত্যার আগে ওই ভবনের বাসিন্দা এক বন্ধবীর কাছে গিয়েছিলেন রুম্পা। সেখানে গিয়ে কান্নাকাটির পর বাসায় যাওয়ার কথা বলে বের হলেও তিনি বাসায় না গিয়ে ছাদে ওঠেন। পরে নিচে লাফিয়ে পড়েন। রুম্পার লাশের ময়নাতদন্তের প্রতিবেদন পাওয়ার পর ধর্ষণের বিষয়ে জানা যাবে।
গত ৪ ডিসেম্বর রাতে রুম্পার লাশ ৬৪/৪ সিদ্ধেশ্বরী সার্কুলার রোডের বাসার সামনে থেকে অজ্ঞাত হিসেবে উদ্ধার করা হয়। পরদিন স্বজনরা রমনা থানায় গিয়ে লাশের ছবি দেখে তাকে শনাক্ত করেন। এ ঘটনায় থানায় হত্যা মামলা দায়ের করে পুলিশ। এরপর গত শনিবার সৈকতকে গ্রেপ্তার করে ডিবির একটি দল। পরদিন ডিবির তদন্তকারী কর্মকর্তা আদালতের কাছে পাঠানো প্রতিবেদনে রুম্পা হত্যাকা-ের শিকার হয়েছেন এমন সন্দেহে তার প্রেমিক সৈকতকে চারদিনের রিমান্ডে নেয়ার আবেদন জানান।
রুম্পা স্ট্যামফোর্ড ইউনিভার্সিটির ইংরেজি বিভাগের শিক্ষার্থী ছিলেন। রাজধানীর শান্তিবাগে একটি ফ্ল্যাটে মায়ের সঙ্গে থেকে পড়াশোনা করতেন রুম্পা ও তার ছোট ভাই। তার বাবা মো. রুকুন উদ্দিন হবিগঞ্জে পুলিশ পরিদর্শক হিসেবে কর্মরত। পড়াশোনার পাশাপাশি টিউশনি করাতেন রুম্পা। সম্পাদনা : ভিক্টর কে. রোজারিও




সর্বশেষ সংবাদ

সম্পাদক ও প্রকাশক ঃ নাঈমুল ইসলাম খান

১৩২৭, তেজগাঁও শিল্প এলাকা (তৃতীয় তলা) ঢাকা ১২০৮, বাংলাদেশ। ( প্রগতির মোড় থেকে উত্তর দিকে)
ই- মেইল : [email protected]