• প্রচ্ছদ » » ভালো লাগছে দেখে, শান্তিতে নোবেল জয়ী অং সান সু চিকে গণতন্ত্র ও মানবাধিকারের শিক্ষা দিচ্ছে গাম্বিয়া


ভালো লাগছে দেখে, শান্তিতে নোবেল জয়ী অং সান সু চিকে গণতন্ত্র ও মানবাধিকারের শিক্ষা দিচ্ছে গাম্বিয়া

আমাদের নতুন সময় : 14/12/2019

রাশেদা রওনক খান

যুক্তরাজ্যে সাধারণ নির্বাচন হয়ে গেলো। সাধারণত দেশটিতে প্রতি পাঁচ বছর পর সাধারণ নির্বাচন হলেও গত পাঁচ বছরের কম সময়ে দেশটিতে এটা সম্ভবত তৃতীয় সাধারণ নির্বাচন। এই নির্বাচনের ফলাফলের উপর নির্ভর করছিলো অনেক কিছু, বিশেষ করে ব্রেক্সিট ইস্যু। ইইউ থেকে যুক্তরাজ্যের বিচ্ছেদ কার্যকরে অবিচল আছেন প্রধানমন্ত্রী বরিস জনসন আর তিনি যদি এই নির্বাচনের মাধ্যমে সংখ্যাগরিষ্ঠতা নিয়ে ক্ষমতায় ফিরেছেন, বিভক্তির চরম রূপ দেখার সম্ভাবনার আশঙ্কা প্রকাশ করছেন অনেকেই। অন্যদিকে প্রধান বিরোধী দল লেবার পার্টির নেতা জেরেমি করবিন এলে বিভক্তির সম্ভাবনা আপাতত সম্ভব না। বলা যায় মানবতা, নাগরিকত্ব, বিভেদ, বিচ্ছেদের রাজনীতি জড়িত ছিলো এবারের নির্বাচনের ফলাফল। সামনের দিনে কী এখন দেখার বিষয়।
এদিকে ভালো লাগছে দেখে, শান্তিতে নোবেল জয়ী অং সান সুচিকে গণতন্ত্র, মানবাধিকারের শিক্ষা দিচ্ছে গাম্বিয়া। অনুপ্রাণিত হয়েছি গাম্বিয়ার দায়িত্ববোধ ও সাহস দেখে। আন্তর্জাতিক আদালতে রায় কী হবে, সেটা হয়তো সময়সাপেক্ষ ব্যাপার, কিন্তু গণহত্যার মামলা হওয়াটাই গুরুত্বপূর্ণ যেখানে আমেরিকাসহ বিশ্বের শক্তিশালী দেশগুলো সারাক্ষণ মানবাধিকারের কবিতা আওড়ালেও এই বিষয়ে এমন শক্ত অবস্থানে যায়নি কখনো। এখন অন্তত প্রাতিষ্ঠানিকভাবে মিয়ানমারকে গণহত্যাকারী বলা যাবে, যদিও লাজ-লজ্জার মাথা খেয়ে অং সান সু চি বলেই যাচ্ছেন, গণহত্যার কোনো প্রমাণ নেই। প্রতিটি রোহিঙ্গা যখন তার জীবনের গল্পে গণহত্যার সাক্ষী দিচ্ছে, সেখানে আপনার আর কী প্রমাণ চাই, সু চি? ভালো লেগেছে, গাম্বিয়ার অ্যাটর্নি জেনারেল ও বিচারবিষয়ক মন্ত্রী আবুবকর যখন বললেন, ‘গাম্বিয়া মিয়ানমারের প্রতিবেশী না হতে পারে, কিন্তু গণহত্যা সনদের স্বাক্ষরকারী দেশ হিসেবে গণহত্যা বন্ধ এবং তা প্রতিরোধে আমাদের দায়িত্ব রয়েছে’। সাব্বাস!
এদিকে ভারত কী করছে মানবাধিকারের প্রশ্নে? একদিকে কাশ্মিরিরা শান্তিপূর্ণ সমাবেশ, অবাধে চলাচল করা এবং ধর্ম পালন করতে বাধাগ্রস্ত হচ্ছেন। অন্যদিকে আসামকে উত্তেজিত করে তুলেছে। ভারতের রাজ্যসভায় বিতর্কিত নাগরিকত্ব সংশোধনী বিল ভারতীয় সংবিধানের মৌলিক বৈশিষ্ট্যের বিরোধীই কেবল নয়, এই বিলটিকে কেন্দ্র করে আসাম রাজ্যে সহিংসতা ছড়িয়ে পড়েছে। জ্বলেপুড়ে ছারখার হচ্ছে একদিকে আসাম, অন্যদিকে কাশ্মীর। কিন্তু কেন? এইসব প্রশ্নের উত্তর জানা আছে কি আমাদের? হায়রে মানবাধিকার, হায়রে মানবতা। তোমায় নিয়েই চলছে টানাপোড়ন। তুমি আসলে কার? ক্ষমতার? ঈষৎ সংশোধিত। ফেসবুক থেকে




সর্বশেষ সংবাদ

সম্পাদক ও প্রকাশক ঃ নাঈমুল ইসলাম খান

১৩২৭, তেজগাঁও শিল্প এলাকা (তৃতীয় তলা) ঢাকা ১২০৮, বাংলাদেশ। ( প্রগতির মোড় থেকে উত্তর দিকে)
ই- মেইল : [email protected]