• প্রচ্ছদ » » দেশের বাইরে এসে দেখুন, পাকিস্তানি বললেই কেমন সন্দেহের চোখে তাকায়, অথচ লাল সবুজ এখন ক্রমাগত উজ্জ্বল হয়ে উঠছে


দেশের বাইরে এসে দেখুন, পাকিস্তানি বললেই কেমন সন্দেহের চোখে তাকায়, অথচ লাল সবুজ এখন ক্রমাগত উজ্জ্বল হয়ে উঠছে

আমাদের নতুন সময় : 16/12/2019

অজয় দাশগুপ্ত : একাত্তরের কথা না হয় তুলেই রাখলাম। আশির দশকে চট্টগ্রাম এসেছিলো পাকিস্তান ক্রিকেট টিম। বিমানবন্দরে নেমেই বাংলাদেশ নিয়ে ঠাট্টা মশকরা, ফুল জাতীয় পতাকা পায়ে দলা এসব শুরু করেছিলো ইমরান বাহিনী। পরে পরিস্থিতি এতোটাই উত্তপ্ত হয়ে পড়েছিলো যে তারুণ্য স্টেডিয়ামে চেয়ার দিয়ে পিটিয়ে তাদের ঠা-া করতে বাধ্য হয়েছিলো। পাকিস্তানের এক মেজর আমাদের এক অফিসারকে কলার চেপে ধরেছিলো জাতিসংঘের সদর দপ্তরের সামনে। নব্বই দশকের এই ঘটনায় বাংলাদেশি গায়ের জোরে পারেননি। কিন্তু ছেড়ে কথা বলেননি তিনি। পরদিন বাংলাদেশিরা জুতা নিয়ে দাঁড়িয়েছিলেন পাকিস্তানিকে ধরার জন্য।

বেগতিক দেখে তিনি গাড়ি থেকেই নামেনি আর। পাকিস্তানে বীরশ্রেষ্ঠ মতিউর রহমানের কবর আছে। জানেন তো কি লেখা আছে সে কবরে? গাদ্দার লিখে ফলক লাগিয়ে দিয়েছে তারা। আমরা? পাকিদের রেখে যাওয়া উচ্ছিষ্ট ছানাপোনা, দালাল, যুদ্ধাপরাধীদের কবরে লিখি শহীদ। ইসলামাবাদে ষষ্ঠ সাহিত্য সম্মেলনে তাদের দেশের এক লেখক বলেছেন, পাকিস্তানের সঙ্গে বাংলাদেশের তফাৎ কোথায়। তার মতে, তাদের পয়সায় থাকে উপাসনালয়ের ছবি। বাংলাদেশের মুদ্রায় বই পড়া শিশুর। তিনি এও বলেছেন, বাংলাদেশি মুসলমানেরাই তাদের চেয়ে খাঁটি ও ভালো মুসলমান। কারণ তারা আহমেদিয়া শিয়া বা হিন্দু বলে এক হয়ে কারও গলা কাটে না। বাইরে এসে দেখুন, পাকিস্তানি বললেই কেমন সন্দেহের চোখে তাকায়। অথচ লাল সবুজ এখন ক্রমাগত উজ্জ্বল হয়ে উঠছে। বিলেতে লেবার দলের ভরাডুবিতেও চার বঙ্গনারীর জয় দেখিয়ে দিয়েছে জয় বাংলার শক্তির মূল আঁধার নারী। এ দেশ আমার গর্ব/এ মাটি আমার সোনা/আমি করি তার জন্ম বৃত্তান্ত ঘোষণা। আসুন ভালোবাসা ও বেদনা আনন্দে মিলিয়ে বলি জয় বাংলা।




সর্বশেষ সংবাদ

সম্পাদক ও প্রকাশক ঃ নাঈমুল ইসলাম খান

১৩২৭, তেজগাঁও শিল্প এলাকা (তৃতীয় তলা) ঢাকা ১২০৮, বাংলাদেশ। ( প্রগতির মোড় থেকে উত্তর দিকে)
ই- মেইল : [email protected]