• প্রচ্ছদ » » দেশের বেশিরভাগ মানুষই নিরাপত্তা বলয়ের মধ্যে আছে, বললেন সাবেক আইজিপি নুরুল আনোয়ার


দেশের বেশিরভাগ মানুষই নিরাপত্তা বলয়ের মধ্যে আছে, বললেন সাবেক আইজিপি নুরুল আনোয়ার

আমাদের নতুন সময় : 16/12/2019

 

আমিরুল ইসলাম : স¦াধীনতার ৪৮ বছরে জননিরাপত্তার জায়গায় আমাদের অর্জন কী জানতে চাইলে সাবেক আইজিপি নুরুল আনোয়ার বলেছেন, স্বাধীনতার ৪৮ বছর পর অর্ধশতাব্দীর আগে বাংলাদেশে জননিরাপত্তায় খুব খারাপ নয়, তবে এর উন্নতির সুযোগ আছে। তিনি বলেন, জননিরাপত্তার বিষয়টি হচ্ছে আপেক্ষিক। কিছু মানুষ নিরাপদবোধ করে, কিছু মানুষ খুবই ভালো অবস্থায় আছে আবার কিছু মানুষ নিজেকে নিরাপদ মনে করে না। যারা ‘ল’ অ্যাবাইডিং সিটিজেন তারা খুব শান্তশিষ্ট, সৎপথে চলে, তাদের কোনো সমস্যা নেই। আবার যারা ক্ষমতার প্রভাবের কাছাকাছি থাকে, যতোদিন প্রভাব থাকে ততোদিন তাদের কোনো সমস্যা নেই। যখন যে দল ক্ষমতায় থাকে তারা খুব ভালো থাকে। আবার যারা সন্ত্রাসী, চরমপন্থী বা জঙ্গি, তারা নিজেরা কাউকে নিরাপদে থাকতে দেয় না এবং নিজেরাও নিরাপদে থাকে না। আবার একটি শ্রেণি রয়েছে যারা অন্যায় না করেও নিজেরা সবসময় জুলুমের শিকার হয়। আমরা তাদের নিয়ে ভাববো। তারা হচ্ছে সাধারণ নাগরিক যার বাড়িতে চুরি-ডাকাতি হয়, নিজে ছিনতাইয়ের শিকার হয়। মেয়েরা যৌন নির্যাতনের শিকার হয়, ধর্ষণের শিকার হয়। যদি বলা হয় দেশে আইনশৃঙ্খলা পরিস্থিতি একেবারেই শেষ হয়ে গেছে তাহলে এটা বাস্তব কথা নয়। দেশের বেশিরভাগ মানুষই মোটামুটিভাবে নিরাপত্তা বলয়ের মধ্যে আছে। কিছু মানুষ দুর্ভাগ্যক্রমে নিরাপত্তাহীন হয়ে পড়ে কোনো কোনো সময়, এটা সত্যি। এটা অনেক কারণে হয়Ñ ১. আইনশৃঙ্খলা বাহিনির তৎপরতার অভাব। ২. রাজনৈতিক প্রভাবশালীদের দখলের কারণে হয় বা চাঁদাবাজির কারণে হয়। ৩. চরমপন্থী বা জঙ্গিদের কর্মকা-ে হয়। ৪. কিছু নারী নিরপরাধভাবে ধর্ষণের শিকার হয়।

তিনি আরও বলেন, এ দেশে জননিরাপত্তা ততোটা খারাপ নয় যতোটা মানুষ বলে। ঢাকা শহরে প্রায় দুই কোটি লোকের বাস। ঢাকা শহরে দিনে পঞ্চাশটি ঘটনা ঘটতে পারেই। বাকি দুই কোটি লোক এর জন্য এফেক্টেড হচ্ছে না। তবে তারা যখনই ঘটনাটি সম্পর্কে জানে তখনই তাদের মধ্যে নিরাপত্তার অভাববোধ তৈরি হয়। আমরা খুব খারাপ নেই, তবে আমাদের আইনশৃঙ্খলা পরিস্থিতি আরও ভালো হওয়া দরকার। এর জন্য আইনশৃঙ্খলা বাহিনীকে দায়িত্বশীল হতে হবে, আদালতের ভূমিকা রাখতে হবে। আদালত অনেক সময় একজন অপরাধীকে জামিন দিয়ে আরেকটি অপরাধের সুযোগ করে দেয়। পুলিশও অনেক সময় অপরাধীকে ইনডাইরেক্টলি প্রশ্রয় দিয়ে দেয়। তারা প্রাথমিকভাবে অপরাধীদের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নেয় না, নিলে হয়তো দমন হতো। অনেক সময় সমাজের দায়িত্বশীলরাও অন্যায়ের পক্ষে থাকে। একটা বড় ঘটনার বিচার তারা সালিশের মাধ্যমে করে দেয়। তারা অন্যায়ের পক্ষে থাকে। সবাই এর জন্য দায়ী। সব দিক থেকে যদি সবাই সতর্ক হই এবং আন্তরিকভাবে কাজ করি তাহলে যেমন আছি তার চেয়ে ভালো থাকবো।




সর্বশেষ সংবাদ

সম্পাদক ও প্রকাশক ঃ নাঈমুল ইসলাম খান

১৩২৭, তেজগাঁও শিল্প এলাকা (তৃতীয় তলা) ঢাকা ১২০৮, বাংলাদেশ। ( প্রগতির মোড় থেকে উত্তর দিকে)
ই- মেইল : info@amadernotunshomoy.com