• প্রচ্ছদ » » দোয়া করি পরপারেও শান্তিতে থাকুন বাংলাদেশের বন্ধু সুলতান


দোয়া করি পরপারেও শান্তিতে থাকুন বাংলাদেশের বন্ধু সুলতান

আমাদের নতুন সময় : 13/01/2020

শরিফুল হাসান

মধ্যপ্রাচ্যে সবচেয়ে দীর্ঘ সময়ের শাসক ওমানের সুলতান কাবুস বিন সাঈদ আল সাঈদ ইন্তেকাল করেছেন। (ইন্না লিল্লাহি ওয়া ইন্না ইলাহি রাজেউন)। সুলতান কাবুস ত্রিশ বছর বয়সে ১৯৭০ সালে এক রক্তপাতহীন অভ্যুত্থানে ওমানের সুলতান হন। টানা ৫০ বছর ধরে তিনি ওমানের সুলতান। কাবুসকে নিয়ে লেখার কারণ ওমান বাংলাদেশের তৃতীয় বৃহত্তম শ্রমবাজার। ওমানকে প্রায় অবকাঠামোহীন দেশ থেকে তিনি একটি আধুনিক দেশে রূপান্তর করেছেন। আর এই সময়ে ১৪ লাখ বাংলাদেশি কর্মী দেশটিতে কাজের সুযোগ পেয়েছেন। ওমানের বাংলাদেশ দূতাবাসের সাবেক শ্রম কাউন্সিলর একেএম রবিউল ইসলাম ভাই ইনবক্সে আমাকে মৃত্যু সংবাদটা জানালেন। সুলতান যে বাংলাদেশের বিপুল সংখ্যক কর্মীকে নিয়েছিলেন সেটাও মনে করালেন। সুলতান কাবুস মধ্যপ্রাচ্যের অন্যান্য বাদশার চেয়ে ব্যতিক্রম ছিলেন। তিনি একাধিক বিয়ে করেননি। ১৯৭৬ সালে চাচাতো বোন কামিলাকে বিয়ে করেন। তিন বছর পর সেই সম্পর্ক ভেঙে গেলে সুলতান আর বিয়ে করেননি, যার কারণে তার কোনো সন্তান নেই। এমনকি তিনি পিতার একমাত্র সন্তান হওয়ায় তার কোনো উত্তরসূরিও নেই। ফলে তার মৃত্যুর পর কে সুলতানের স্থলাভিষিক্ত হবেন তা নিয়ে চলেছে জল্পনা-কল্পনা। সুলতান গান শুনতে ভালোবাসতেন। বিশেষ করে উচ্চাঙ্গ সংগীত। ক‚টনৈতিক সক্ষমতার পরিচয় তিনি বিভিন্ন সময় দেখিয়েছেন। সম্প্রতি ইরানের সঙ্গে মার্কিন পরমাণু আলোচনা হয়েছিলো তার প্রচেষ্টাতেই। ইয়েমেনের যুদ্ধ বন্ধ করতেও তিনিই আলোচনার ব্যবস্থা করেছিলেন। যুদ্ধ নয় সবসময় তিনি শান্তির পক্ষে ছিলেন। দোয়া করি পরপারেও শান্তিতে থাকুন বাংলাদেশের বন্ধু সুলতান। ফেসবুক থেকে




সর্বশেষ সংবাদ

সম্পাদক ও প্রকাশক ঃ নাঈমুল ইসলাম খান

১৩২৭, তেজগাঁও শিল্প এলাকা (তৃতীয় তলা) ঢাকা ১২০৮, বাংলাদেশ। ( প্রগতির মোড় থেকে উত্তর দিকে)
ই- মেইল : [email protected]