• প্রচ্ছদ » » চোরদের ক্ষমা করা সাধারণ খেটে খাওয়া মানুষদের প্রতি অন্যায় হিসেবেই বিবেচিত হওয়া উচিত


চোরদের ক্ষমা করা সাধারণ খেটে খাওয়া মানুষদের প্রতি অন্যায় হিসেবেই বিবেচিত হওয়া উচিত

আমাদের নতুন সময় : 17/01/2020

ফরিদ আহমেদ

গাজী বেলায়েত হোসেন মিঠু এবং নাহিদ আক্তার দম্পতি বাংলাদেশের বেসিক ব্যাংক থেকে তিনশ কোটি টাকা চুরি করে এনেছে। এই চুরির কারণে বাংলাদেশে অসংখ্য মানুষ সর্বস্বান্ত হবে। অসংখ্য পরিবার পথে বসবে, অসংখ্য মানুষের চোখে বেয়ে সর্বস্ব হারানোর জল গড়িয়ে পড়বে। এই চোরদের ক্ষমা করাটা তাই সেইসব সাধারণ খেটে খাওয়া মানুষদের প্রতি অন্যায় হিসেবেই বিবেচিত হওয়া উচিত। সুখের বিষয় যে টরন্টোবাসীরা এটাকে গুরুত্বের সঙ্গেই নিয়েছেন। এই দম্পতিসহ আরও যে সব বড় চোর এখানে এসেছে বা আসবে তাদের সামাজিকভাবে বর্জনের অঙ্গীকার করেছেন প্রায় সবাই। এটা একটা ভালো কাজ। এর মাধ্যমে পাবলিক শেমিং করা যাচ্ছে এই চোরদের। তবে এটা পর্যাপ্ত নয়। এর বাইরেও আমরা কিছু কাজ করতে পারি। ১. ফিনট্রাককে অবহিত করতে পারি। এটা একটা ফেডারেল সংস্থা। এর কাজ হচ্ছে অবৈধ লেনদেন বিষয়ে তদন্ত করা। বেলায়েত হোসেনদের মতো চোরেরা নিশ্চিতভাবেই বৈধ পথে টাকা কানাডাতে আনেনি। হুন্ডি করে এনেছে। ফিনট্রাকে রিপোর্ট করলে তারা এটা নিয়ে অনুসন্ধানে নামবে। ২. কানাডা রেভেন্যু এজেন্সিকে জানানো। সিআরএ অবশ্য টাকা পয়সার লেনদেন নিয়ে ইনকোয়ারিতে যায় না। কেউ ট্যাক্স ফাঁকি দিলে তাকে ধরে। এই দম্পতির এতো বেশি ইনভেস্টমেন্ট এখানে যে তারা ট্যাক্স ফাঁকি দিলেও আমি অবাক হবো না। সিআরকে পেছনে লাগিয়ে দিতে পারলে অন্তত তাদের আরামকে হারাম করে দেয়া সম্ভব। ৩. স্থানীয় এমপিদের ইনফর্ম করা, যাতে করে তারা তাদের কাছ থেকে ডোনেশন না নেয় এবং তাদের প্যাট্রোনাইজ না করে। ৪. টরন্টোর বাংলাদেশ কনস্যুলেটকে তাদের উপস্থিতি সম্পর্কে অবহিত করা এবং তাদের মাধ্যমে বাংলাদেশ সরকারকে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা নিতে অনুরোধ করা। ৫. দুদককে সব তথ্য দিয়ে তাদের অবস্থান চিহ্নিত করতে সহায়তা করা। ৬. টরন্টোর স্থানীয় সবগুলো বাংলাদেশি মালিকানাধীন বাংলা পত্রিকায় এই সংবাদ প্রথম পাতায় প্রকাশের জন্য সম্পাদকদের অনুরোধ জানানো। আমি ফিনট্রাকে রিপোর্ট করা লিংক দিয়ে দিচ্ছি এখানে। সেটা হচ্ছে : (যঃঃঢ়ং://িি১ি৫.ভরহঃৎধপ-পধহধভব.মপ.পধ/ারৎ-ফৎঃা/ঢ়ঁনষরপ/) সিআরএ-তে ফোন করেই অভিযোগ করা সম্ভব। যে অভিযোগ করছে তার পরিচয় সিআরএ কখনোই প্রকাশ করবে না। সিআরএ ইনফরম্যান্ট লিডের নম্বর হচ্ছেঃ ১-৮৬৬-৮০৯-৬৮৪১। অনলাইনে অভিযোগ করতে চাইলে এই লিংকটা ফলো করেন। (যঃঃঢ়ং://িি.িপধহধফধ.পধ/ৃ/ংঁংঢ়বপঃবফ-ঃধী-পযবধঃরহম-রহ-পধহধফধ-ড়াৃ)




সর্বশেষ সংবাদ

সম্পাদক ও প্রকাশক ঃ নাঈমুল ইসলাম খান

১৩২৭, তেজগাঁও শিল্প এলাকা (তৃতীয় তলা) ঢাকা ১২০৮, বাংলাদেশ। ( প্রগতির মোড় থেকে উত্তর দিকে)
ই- মেইল : [email protected]