• প্রচ্ছদ » » প্রথম আলোর সম্পাদক বলে কি তার নামে গ্রেপ্তারি পরোয়ানাও জারি হতে পারবে না?


প্রথম আলোর সম্পাদক বলে কি তার নামে গ্রেপ্তারি পরোয়ানাও জারি হতে পারবে না?

আমাদের নতুন সময় : 21/01/2020

রওশন আরা মুক্তা

প্রথম আলোর সম্পাদক বলে কি তার নামে গ্রেপ্তারি পরোয়ানাও জারি হতে পারবে না? আমি আপনি গবেষণা করে বের করবো এটা বাড়াবাড়ি হচ্ছে? প্রথম আলো কিশোরদের আনন্দ অনুষ্ঠান আয়োজন না করলে সেখানে নাঈমুল আবরার যেতো না, মারাও যেতো না। প্রথম আলোর ইভেন্ট ম্যানেজমেন্ট মুনাফালোভী চিন্তা না করে যাদের নিয়ে আয়োজন তাদের চিন্তা করলে এমন দুর্ঘটনা হতো না। আমাদের দেশে শিশু-কিশোরদের নিয়ে এমন অনেক আয়োজনই হয়। এসব অনুষ্ঠানে কেমন সতর্কতা অবলম্বন করা উচিত এই ব্যাপারে সবার কাছেই এই মেসেজ যাওয়া উচিত। যারা শিশু-কিশোরদের ভবিষ্যৎ গড়ার কথা বলেন তাদের অবহেলা আরও বেশি মাত্রাগত গুরুত্ব বহন করে। প্রথম আলো বা কোনো দৈনিক বা কোনো গণমাধ্যমকে সরকার ভয় পায় তাই তাকে দমাতে চায় এসব পুরনো ও অসত্য তথ্য প্রচার থেকে বিরত থাকুন। একটি দল তিনবার ‘ভোটের’ মাধ্যমে নির্ধারিত হয়ে সরকার পরিচালনা করছে এবং প্রতিটি মিডিয়ার টকশো, কলামে এ কথাই উঠে এসেছে যে, এই দল না থাকলে তাহলে আর কোনো দল? আর কে আছে দেশ চালানোর? তারা বলেছে, আর কোনো দল নেই আর কেউ নেই। যেই প্রথম আলোর সম্পাদকের গ্রেপ্তারি পরোয়ানা জারি হওয়াকে বাড়াবাড়ি বলছেন সেই প্রথম আলো তো কোনোদিন এমন কিছু লিখেনি তিনবারের প্রধানমন্ত্রী আশি বছরের কোনো নারীকে নিয়েও? তার মানে কি প্রভাবশালীতা ও বিভিন্ন অবদান আইনের কার্যক্রমকে ভিন্নপথে পরিচালিত করতে পারে? ইচ্ছা করলেই কী দেশে যাকে-তাকে মামলা দিয়ে হয়রানি করা যায়? একটা ছেলে মারা গেছে একটা প্রতিষ্ঠানের উটপাখি ফিলোসোফির গর্তে পড়ে, সেই অনাকাক্সিক্ষত মৃত্যুর আয়োজকদের বিচারের আওতায় আনাকে হয়রানিমূলক মামলা বলছেন? এই তাহলে আইন ও বিচারের অবস্থা বাংলাদেশে? বুদ্ধিজীবী পরিচয় দিতে আপনাদের লজ্জা করে না? ২. প্রথম আলোকে তো মিথ্যা মামলা দেয়া হয়নি? শিশু কিশোরদের একটা অনুষ্ঠানে চরম অবহেলার পরিচয় দিয়েছে এই প্রতিষ্ঠান। দায়িত্ব নিতে না পারলে কেন পরিবারসহ এই শিশু কিশোরদের ডাকবে তারা? বাচ্চাটাকে সেই বহুদূর মহাখালী নিয়ে গেছে কাছের হাসপাতাল ফেলে। যাদের নামে গ্রেপ্তারি পরোয়ানা দেখলাম এই দশ জনের একজনেরও মনে হলো না বাচ্চাদের অনুষ্ঠান, আয়োজন স্থলের উপযোগিতা আছে কীনা? এত অবহেলা কেন আমাদের বাচ্চাদের প্রতি? আর যখন হাসপাতালে যাওয়ার প্রয়োজন পড়লো? তখন কি এই দশ জনের একজনের কাছেও বাচ্চাটার প্রাণ প্রাধাণ্য পেতে পারতো না? নায়মুল আবরারের পরিবার সঠিক বিচার পাক। শিশু কিশোরদের প্রতি মনোযোগী হই আমরা। ফেসবুক থেকে




সর্বশেষ সংবাদ

সম্পাদক ও প্রকাশক ঃ নাঈমুল ইসলাম খান

১৩২৭, তেজগাঁও শিল্প এলাকা (তৃতীয় তলা) ঢাকা ১২০৮, বাংলাদেশ। ( প্রগতির মোড় থেকে উত্তর দিকে)
ই- মেইল : [email protected]