• প্রচ্ছদ » » বাংলা কবিতার প্রেম ও দ্রোহ- এই দুই ধারা বুকে নিয়ে লিখতেন কবি আল মাহমুদ


বাংলা কবিতার প্রেম ও দ্রোহ- এই দুই ধারা বুকে নিয়ে লিখতেন কবি আল মাহমুদ

আমাদের নতুন সময় : 17/02/2020

অজয় দাশগুপ্ত :  তিনি যখন কবিতা লিখতেন তখন কবিরা রাজকবি হতে শেখেনি। বাংলা কবিতার প্রেম ও দ্রোহ এই দুই ধারা বুকে নিয়ে লিখতেন বলেই লিখতে পেরেছিলেন : বধূ বরণের নামে দাঁড়িয়েছে মহামাতৃক‚ল/গাঙের ঢেউয়ের মতো বলো কন্যা কবুল কবুল। লিখেছেন : এশিয়ায় যারা আনে কর্মজীবী সাম্যের দাওয়াত তাদের পোশাকে এসো এঁটে দিই বীরের তকোমা। আপনারা তাকে মনে রাখার কে হে? একাত্তরে মুক্তিযুদ্ধে যাওয়া তিনি তখন ইত্তেফাকে ছোট একটা কাজ করতেন। পাÐুলিপি সঙ্গে নেওয়ার সময় না তখন। সে সব ড্রয়ারে ফেলে কলকাতা যাওয়া কবির বই বের করার ঘোষণা দেয় অরুণা প্রকাশনী। তার কবিতা পকেটে করে এনে জমা দিয়ে গিয়েছিলেন বর্ধমানের কৃষক। তার কবিতা পড়ে চমকে উঠেছিলেন দ্ুঁদে সম্পাদক সাগরময় ঘোষের মতো মানুষ।
আপনারা তো তারাই যারা মনে করেন কবিতা মানে হয় বন্দনা নয় ¯েøাগান। পায়ে মাখতে মাখতে রাজপথে নামাতে নামাতে বাংলা কবিতার কী চেহারা করেছেন দেখেছেন কখনো? তিনি তা করেননি। বড় বড় আদর্শের বুলি আওড়ান। বুকে জড়িয়ে রাখা পাকি খেলোয়াড় গালে আঁকা পাকি পতাকার দিকে তাকিয়েছেন একবারও? আপনারা আইয়ুব খানের নামে লেখা কবিতার লাইন পাল্টে বঙ্গবন্ধুর নাম করে দিয়ে দেশপ্রেমিক। তিনি এমন কিছু করেননি করতে জানতেন না। পারলে পানকৌড়ির রক্ত বা জলবেশ্যার মতো গল্প লিখে দেখান। যৌবন জীবনকে কামরাঙা করে তুলুন তো দেখি?
তার ঘোর অভাবের সংসার ছিলো। আজীবন কাব্য হিংসা কবি হিংসার শিকার ছিলেন। তেল দেওয়ার ভাষাও হয়তো রপ্ত করতে পারেননি। গেটআপও কেমন ধার্মিক টাইপের। তাই সবাই মিলে একঘরে করে কী আনন্দে কাটালেন এতোগুলো বছর। তার পরিবর্তন বা আদর্শিক বিচ্যুতি কখনো সমর্থন করিনি। করবোও না। জাপান ও হিটলারের সঙ্গে যাওয়া বাঙালি বীর সুভাষ বসুকে আপনি অস্বীকার করেন? শেষ জীবনে বিজেপি করা ভ‚পেন হাজারিকার গান আপনাকে উদ্বেলিত করে না? তার কবিতাও করবে আজীবন অনাদিকাল। তার রাজনৈতিক স্খলন বা পতন আমার আলোচনার বিষয় নয়। এ দেশের বীর মুক্তিযোদ্ধাদেরও আমরা স্বাধীনতাবিরোধী হতে দেখেছি। এমন কোনো দল নেই জামায়াতিদের সঙ্গে গলাগলি করেনি। তাদের বেলায় মাফ থাকলে তার বেলায় কঠোর কেন? আমি সবসময় তার কবিতার ভক্ত। থাকতে যেমন চলে যাওয়ার পরও তাই আছি। আল মাহমুদ, বিচিত্র সমাজও অদ্ভুত এক দেশে জন্মেছিলেন আপনি। এমন কবি বাংলা সাহিত্যে বারবার জন্মায় না যিনি লিখবেন : কবিতা চরের পাখি, কুড়ানো হাঁসের ডিম,গন্ধ ভরা ঘাস/¤øানমুখ মেয়েটির দড়ি ছেঁড়া হারানো বাছুর/গোপন চিঠির প্যাডে নীল খামে সাজানো অক্ষর/কবিতা তো মক্তবের মেয়ে চুলখোলা আয়েশা আকতার। শ্রদ্ধা ও প্রণাম বিদায় দিনে। ফেসবুক থেকে




সর্বশেষ সংবাদ

সম্পাদক ও প্রকাশক ঃ নাঈমুল ইসলাম খান

১৩২৭, তেজগাঁও শিল্প এলাকা (তৃতীয় তলা) ঢাকা ১২০৮, বাংলাদেশ। ( প্রগতির মোড় থেকে উত্তর দিকে)
ই- মেইল : [email protected]