জিম্বাবুয়েকে এক ইনিংস ও ১০৬ রানের ব্যবধানে পরাজিত করেছে বাংলাদেশ

আমাদের নতুন সময় : 25/02/2020

এল আর বাদল : [২] অধিনায়ক মুমিনুল হক টেস্ট শুরু আগের দিন হলফ করেই বলেছিলেন, দলের যে কেউ ১০০, ২০০ এমনকি ৩০০ রান করতে পারেন। জিম্বাবুয়ের বিরুদ্ধে টেস্ট হারের কোনো সম্ভাবনা নেই আমাদের। মুমিনুল তার বক্তব্যের প্রতি সুবিচার করেছেন ১৩২ রানের ইনিংস খেলে। আর মুশফিকুর রহিম তো উড়ছিলেন মিরপুরের আকাশে। হার না মানা ২০৩ রানের ইনিংস উপহার দিয়ে তিনি অধিনায়কের মন্তব্যের যথার্থ সমর্থন যুগিয়েছেন। উদীয়মান নাঈম তো বল হাতে মাঠ ছাড়া করেছেন জিম্বাবুয়ানদের। প্রথম ইনিংসে ৪টি আর দ্বিতীয় ইনিংসে আরও ৫টি উইকেট শিকার করে বিজয় পতাকা তুলে ধরেন এই স্পিনার। বাংলাদেশ টেস্ট জিতে ইনিংস ও ১০৬ রানে।
[৩] জিম্বাবুয়েকে বলা হয় বাংলাদেশের পুরনো ক্রিকেটীয় বন্ধু। এই দলটির সঙ্গে বাংলাদেশের অনেক হাসি-কান্নার স্মৃৃতি রয়েছে। এবারের হোম সিরিজেও তারই নজির এলো উভয় দলের শততম সাক্ষাতে। ঢাকা টেস্টের মধ্য দিয়ে আন্তর্জাতিক ক্রিকেটে দুই দল শততম লড়াই করলো।
[৪] জিম্বাবুয়ের বিপক্ষে এটি টেস্টের ১৭তম লড়াই ছিলো বাংলাদেশের। তাদের বিপক্ষে সবচেয়ে বেশি ৭২টি ওয়ানডে ম্যাচ খেলেছে বাংলাদেশ। আর টি-টোয়েন্টি খেলেছে ১১ ম্যাচ। এদিন ইনিংস জয়ের টেস্টে ম্যাচ সেরা হন মুশফিকুর রহীম। ঢাকা টেস্টে বাংলাদেশের বিপক্ষে ২৯৫ রানে পিছিয়ে থেকে চতুর্থ দিনে ১৮৯ রানে অলআউট হয় জিম্বাবুয়ে।
[৫] জিম্বাবুয়ের ২৬৫ রানের জবাবে মুশফিকের অপরাজিত ২০৩ রানের কল্যাণে ৬ উইকেটে ৫৬০ রানে ইনিংস ঘোষণা করে টাইগার শিবির। সফরে এটিই একমাত্র টেস্টের লড়াই। এরপর তিন ম্যাচের ওয়ানডে সিরিজ ও দুই ম্যাচের টি-টোয়েন্টি সিরিজ খেলবে বাংলাদেশ ও জিম্বাবুয়ে। সম্পাদনা : ভিক্টর রোজারিও




সর্বশেষ সংবাদ

সম্পাদক ও প্রকাশক ঃ নাঈমুল ইসলাম খান

১৩২৭, তেজগাঁও শিল্প এলাকা (তৃতীয় তলা) ঢাকা ১২০৮, বাংলাদেশ। ( প্রগতির মোড় থেকে উত্তর দিকে)
ই- মেইল : [email protected]