হংকং’এ স্কুল বন্ধ থাকায় শিক্ষার্থীদের বেতন-ফি ফেরত চাইলেন অভিভাবকরা

আমাদের নতুন সময় : 27/02/2020


রাশিদ রিয়াজ : [২] টানা ছাত্রদের গণতান্ত্রিক আন্দোলনে স্কুল কয়েক মাস বন্ধ থাকার পর এখন আবার করোনাভাইরাসের আতঙ্কে স্কুলের দরজা বন্ধ। বছরে এসব স্কুলে কম করে হলেও ২০ হাজার ডলার গুণতে হয় অভিভাবকদের। কবে স্কুল খুলবে কর্তৃপক্ষ নিশ্চিত করে বলতে পারছেন না।
[৩] স্কুল বন্ধ থাকায় শিক্ষার্থীদের ফরমায়েশে অতীষ্ট অভিভাবকরা। কেউ হয়তো বলছে, আমার কম্পিউটার চালু করে দাও। আমার কাগজটা প্রিন্ট করে দাও ইত্যাদি। আগামী ২০ এপ্রিল স্কুল খুলে দেয়ার সম্ভাবনা থাকলেও তা ক্ষীণ বলেই মনে হচ্ছে।
[৪] অভিভাবক জ্যাকি ইয়াং বলেন, বাচ্চাদের পড়াশুনা দেখিয়ে দেওয়া ছাড়াও তাদের নানা আবদার সইতে সইতে অবস্থা গুরুচরণ। তাই স্কুলগুলোর উচিত আমাদের ফি ফেরত দেওয়া।
[৫] কোনো কোনো অভিভাবক বলছেন, স্কুলগুলো টিউশনি ফি, টিফিন, দুপুরের খাবার ছাড়াও নানা ধরনের আয়োজনের জন্যে যে হাজার হাজার ডলার নেয় তা এখন কোনো কাজে আসছে না। তাহলে তা ফেরত দেয়াই উচিত।
[৬] রুথ বেনি নামে আরেক অভিভাবক বলেন প্রচ- কর্মব্যস্ততার মধ্যে বাচ্চাদের উপস্থিতি ও তাদের বায়না এবং কবে তা থেকে মুক্ত হওয়া যাবে বা স্কুলগুলো কবে খুলবে তা নিয়ে নতুন এক উপসর্গ শুরু হয়েছে যার নাম দুশ্চিন্তা। সম্পাদনা : ইকবাল খান




সর্বশেষ সংবাদ

সম্পাদক ও প্রকাশক ঃ নাঈমুল ইসলাম খান

১৩২৭, তেজগাঁও শিল্প এলাকা (তৃতীয় তলা) ঢাকা ১২০৮, বাংলাদেশ। ( প্রগতির মোড় থেকে উত্তর দিকে)
ই- মেইল : [email protected]