• প্রচ্ছদ » প্রথম পাতা » করোনার বিষয়ে স্বাস্থ্যকর্মী, মসজিদের ইমাম ও মন্দিরের পুরোহিতদের প্রশিক্ষণ দরকার ছিলো, সেটি আমরা করতে পারিনি, বললেন ডা. জাফরুল্লাহ


করোনার বিষয়ে স্বাস্থ্যকর্মী, মসজিদের ইমাম ও মন্দিরের পুরোহিতদের প্রশিক্ষণ দরকার ছিলো, সেটি আমরা করতে পারিনি, বললেন ডা. জাফরুল্লাহ

আমাদের নতুন সময় : 28/03/2020

আশিক রহমান : [২] গণস্বাস্থ্যকেন্দ্র চিকিৎসকদের টেনিংয়ের ব্যবস্থা করেছে। ফেব্রুয়ারি থেকে সেটা আমরা করে আসছি। [৩] করোনা একটা নতুন রোগ। এই রোগ সম্পর্কে স্বাস্থ্যকর্মীদের পর্যাপ্ত জ্ঞান নেই। এ পর্যন্ত করোনাভাইরাস সম্পর্কে আমরা যতোটুকু তথ্য পেয়েছি, একমাস আগ থেকেই তাদের সেটা জানানোর চেষ্টা করেছি।
[৪] করোনাভাইরাস সংস্পর্শের মাধ্যমে ছড়ায়। বেশি উড়তে পারে না। বলা যায়, দুই-তিন ফিটের বেশি যেতে পারে না। আমি যদি হাঁচি দিই, দুই তিন ফিটের মধ্যে থাকলে ঝুঁকি থাকবে, এজন্যই প্রটেকশন ব্যবস্থা। ভাইরাসটা যদি মাটিতে বা ফ্লোরে পড়ে, শরীরে লেগে থাকলেও আপনি আক্রান্ত হবেন না, যদি হাতের স্পর্শে নাক-মুখ- চোখে না লাগে। সচেতনতাই সবচেয়ে বড় ওষুধ। [৫] নামাজ বন্ধের দরকার নেই। জামাতে নামাজ পড়লে দুই হাত দূরত্বে দাঁড়িয়ে নামাজ হবে। মসজিদ মন্দিরে থার্মোমিটার বসাতে হবে। সম্পাদনা : ইকবাল খান




সর্বশেষ সংবাদ

সম্পাদক ও প্রকাশক ঃ নাঈমুল ইসলাম খান

১৩২৭, তেজগাঁও শিল্প এলাকা (তৃতীয় তলা) ঢাকা ১২০৮, বাংলাদেশ। ( প্রগতির মোড় থেকে উত্তর দিকে)
ই- মেইল : [email protected]