• প্রচ্ছদ » প্রথম পাতা » [১]রপ্তানি খাতের প্রণোদনার ৫ হাজার কোটি টাকা দিয়ে নি¤œ আয়ের মানুষের খাদ্য নিরাপত্তা নিশ্চিত করার পাশাপাশি ক্ষুদ্র ও মাঝারি উদ্যোক্তাদের সহযোগিতা করা উচিত, মন্তব্য ড. নাজনীন আহমেদের


[১]রপ্তানি খাতের প্রণোদনার ৫ হাজার কোটি টাকা দিয়ে নি¤œ আয়ের মানুষের খাদ্য নিরাপত্তা নিশ্চিত করার পাশাপাশি ক্ষুদ্র ও মাঝারি উদ্যোক্তাদের সহযোগিতা করা উচিত, মন্তব্য ড. নাজনীন আহমেদের

আমাদের নতুন সময় : 29/03/2020

আশিক রহমান : [২] বিআইডিএস-এর এই জ্যেষ্ঠ গবেষক আরও বলেন, রপ্তানি খাতের ব্যবসায়ীদের বড় অংশই ধনী। যার শ্রমিক দায়িত্ব তাকেই নেওয়া উচিত। তাদের শ্রমিকদের বেতন কেন সরকারকে দিতে হবে? [৩] প্রণোদনা প্যাকেজ পুরো অর্থনীতিকে কেন্দ্র করে নিতে হবে। কারণ সময়টা অন্য যেকোনো পরিস্থিতি চেয়ে ভিন্ন। [৪] এটা বন্যা, সাইক্লোন কিংবা রানা প্লাজার ঘটনা নয় যে, ব্যাথা যেহেতু সারা শরীরে, ওষুধও পুরো শরীরে দিতে হবে।
[৫] ক্ষুদ্র ও মাঝারি উদ্যোক্তাদের অনেক সমস্যা আছে। [৬] সরকারের প্রণোদনা হবে এমন যে, সাধারণ মানুষকে বাঁচিয়ে রাখা। দুটি ফান্ড গঠন করা যেতে পারে। একটা ফান্ড গঠন করা দরকার খাবারের জন্য, অপরটি বাংলাদেশ ব্যাংকের মাধ্যমে একটা ফান্ড করা, প্রাধান্য পাবে ক্ষুদ্র ও মাঝারি উদ্যোক্তারা। এক বছরের জন্য স্পেশাল ফান্ড তৈরি করতে হবে, যাতে ক্ষুদ্র ও মাঝারি উদ্যোক্তারা কর্মচারীদের বেতনভাতা, খরচ দিয়ে প্রতিষ্ঠান চালু রাখতে পারেন।
[৭] রপ্তানি খাতে যতোই প্রণোদনা দেওয়া হোক, যদি বিদেশিদের অর্থনীতি ঠিক না হয়, পণ্যও বিক্রি হবে না। [৮] যারা দেশের ভেতরে ব্যবসা করেন, তাদের এখন সহযোগিতা করা দরকার।




সর্বশেষ সংবাদ

সম্পাদক ও প্রকাশক ঃ নাঈমুল ইসলাম খান

১৩২৭, তেজগাঁও শিল্প এলাকা (তৃতীয় তলা) ঢাকা ১২০৮, বাংলাদেশ। ( প্রগতির মোড় থেকে উত্তর দিকে)
ই- মেইল : [email protected]