করোনাকালে ইসলামী ফয়সালা

আমাদের নতুন সময় : 05/04/2020

ইকবাল আনোয়ার

সকল ধর্ম একমত হতে পারলো। মুসলামনা ছাড়া। তারা জামাত চালু থাকবে আর থাকবেনার মধ্যে মতামতে দুই ভাগ হলেন। ঠিক আছে তা হতেই পারে। এখন এ পরিস্থিতিতে ফয়সালা তো হতে হবে। এটা হতে পারে : ১. গণতন্ত্রের ভিত্তিতে। ২। দুই পক্ষের কথা শুনে রাষ্ট্র যেটা বলে, সেটা মেনে নেওয়া। ৩। একজন যাকে সবাই মেনে নেবে বলে স্থির করেছেন তিনি যেটা বলেন, সেটা (এমন যদি একজন নির্ধারণ করতে হয়, তবে তো একমত কখনো হবেন না, হলে তো ভালো হতো অনেক)। অথবা সরকার যদি এমন একজন বুজুর্গ জ্ঞানী দেখে নির্ধারণ করে দেন, তিনি। আমাদের কি এমন একজন আছেন? এখানে একের অধিক হলে আবার সমস্যা, ভিন্নমত হলে ও গণতন্ত্র না মানলে বা অন্য কোনো পদ্ধতি না মানলে)। আর ব্যবস্থা কী? ইসলামে তো এমন সমস্যা আসতেই পারে, এখন যেমন এলো।
কয়েকটি কথা : যখন কোনো সমস্যা সবার। সব জাতির বা নানা ধর্মের লোকের। তখন যেকোনো একটি বা কয়েকটি দলের কাজের জন্য যদি সবার ক্ষতি হয়, তখন এর সমাধান কী? ইসলাম কী বলে তখন? ধন্যবাদ সম্মানিত আলেমদের, তারা ডাক্তারদের কথা, যা বিজ্ঞাননির্ভর, তা মেনে নিতে সবাইকে বলছেন। তবে কেন ডাক্তাররাই যখন বলছেন জামাত না করতে, তখন এ অংশটা মানছেন না। যুক্তি কি এমন যে সব মানা যাবে না। কিছু মানবো, কিছু আমরা ঠিক করবো। কারও প্রতি অসম্মান নয়। সবার প্রতি অগাধ সম্মান। এ সব একজন নাগরিক, একজন মুসলমান হিসেবে জানার আর মানার জন্য আমার বিনীত প্রশ্ন। ফেসবুক থেকে




সর্বশেষ সংবাদ

সম্পাদক ও প্রকাশক ঃ নাঈমুল ইসলাম খান

১৩২৭, তেজগাঁও শিল্প এলাকা (তৃতীয় তলা) ঢাকা ১২০৮, বাংলাদেশ। ( প্রগতির মোড় থেকে উত্তর দিকে)
ই- মেইল : [email protected]