• প্রচ্ছদ » » ক্ষুধা কিন্তু করোনাভাইরাসের চেয়েও ভয়াবহ!


ক্ষুধা কিন্তু করোনাভাইরাসের চেয়েও ভয়াবহ!

আমাদের নতুন সময় : 05/04/2020

কামরুল হাসান মামুন

সকালবেলা আটটার দিকে আমার ভবনের একজন ১৫-২০ জনকে সাহায্য করেছে। আমি ঘুম থেকে একটু দেরি করে উঠে নাস্তা খেয়ে কাজ করছিলাম। আমার স্ত্রী-কন্যারা একটু দেরি করে ঘুম থেকে উঠেছে। প্রথমে আমার স্ত্রী ঘুম থেকে উঠে আমাকে ডেকে বারান্দায় নিয়ে দেখায় যে কতো মানুষ বাসার সামনে বসে আছে। সিকিউরিটিকে জিজ্ঞেস করলাম তারা কেন এখানে অপেক্ষা করছে। ভবনের একজন সকালে কিছু সাহায্য করেছিলো সেই খবর পেয়ে তারা এখানে এসেছে। কিন্তু তাদের তো কেউ দিচ্ছে না। এখন বাজে পৌনে একটা। অথচ এখনো অপেক্ষায়। বেশ অনেকবার চিন্তা করেছি আমরা গিয়ে কিছু সাহায্য করে আসি। কিন্তু ভয়ে নামিনি। সামাল দিতে পারবো না। বুঝতে পারছেন ভয়াবহতা? এখন কীভাবে সাহায্য করতে যাবো সেটাও ভয়ের কারণ হয়ে দাঁড়িয়েছে।
সম্প্রতি সন্ধ্যায় হাঁটতে গিয়েও একই দৃশ্য দেখেছি। এক ভবনের সামনে শতাধিক মানুষ অপেক্ষায়। তখন কেউ কিছু দিচ্ছে না। যা দেওয়ার আগেই দিয়ে দিয়েছে। তবুও মানুষ অপেক্ষায়। ফেসবুকে আরেকটি ভিডিও দেখলাম। সেখানে দেখলাম এক নারী রিকশা করে বাজার নিয়ে যাচ্ছে পথে ক্ষুধার্ত মানুষজন তার সব কিছু ছিনিয়ে নিয়ে গেছে। বুঝতে পারছেন? এখন মনে হচ্ছে ক্ষুধা করোনাভাইরাসের চেয়েও ভয়াবহ। করোনাভাইরাসের সঙ্গে ক্ষুধাকেও সামলান। কীভাবে নিরাপদে মানুষকে সাহায্য করা যায় আমাদের এটাও ভাবতে ঝঁমমবংঃরড়হং ঢ়ষবধংব। ফেসবুক থেকে




সর্বশেষ সংবাদ

সম্পাদক ও প্রকাশক ঃ নাঈমুল ইসলাম খান

১৩২৭, তেজগাঁও শিল্প এলাকা (তৃতীয় তলা) ঢাকা ১২০৮, বাংলাদেশ। ( প্রগতির মোড় থেকে উত্তর দিকে)
ই- মেইল : [email protected]