• প্রচ্ছদ » শেষ পাতা » [১]মানবজমিন, আলোকিত বাংলাদেশ ও জনতার পর এবার ছাপা বন্ধ হলো ইংরেজি দৈনিক দ্য ইন্ডিপেন্ডেন্টের সমীরণ রায় : [২] সংবাদপত্রটির নির্বাহী সম্পাদক শামীম এ জাহেদী বলেন, ‘করোনাভাইরাসের পরিস্থিতিতে কর্মীদের স্বাস্থ্য ও নিরাপত্তায় সর্বোচ্চ গুরুত্ব দিচ্ছি, তাই আজ বুধবার থেকে সাময়িকভাবে মুদ্রণ সংস্করণ বন্ধ রাখার সিদ্ধান্ত নিয়েছি’। [৩] তিনি আরো বলেন, ১৯৯৬ সালের ২৬ মার্চ দ্য ইন্ডিপেন্ডেন্ট এর যাত্রা শুরুর পর এমন দুর্যোগ আর আসেনি। করোনাভাইরাস সঙ্কট কেটে গেলে পরিস্থিতি বিবেচনা করে পত্রিকাটি পুনরায় মুদ্রণ শুরু করা হবে। [৪] গত ২৭ মার্চ করোনাভাইরাসের কারণে উদ্ভূত পরিস্থিতিতে ট্যাবলয়েড পত্রিকা মানবজমিনের ছাপা বন্ধ রয়েছে। তবে অনলাইনে সচল রয়েছে পত্রিকাটি। [৫] গত ৪ এপ্রিল আলোকিত বাংলাদেশের অফিসে নোটিশ ঝুলানো ছাড়াও সাংবাদিক ও সংবাদপত্র কর্মীদের কাছে নোটিশ পাঠানো হয়েছে। পত্রিকাটিতে তিন মাসের বেতন বকেয়া রয়েছে। [৬] ৪ এপ্রিল থেকে দৈনিক জনতার ছাপা সাময়িকভাবে বন্ধ রাখা হয়েছে। কর্তৃপক্ষ বলেছে, করোনাভাইরাসের কারণে সরকারি ছুটি অনুযায়ী পত্রিকাটির প্রকাশনা বন্ধ থাকবে। সম্পাদনা : খালিদ আহমেদ


[১]মানবজমিন, আলোকিত বাংলাদেশ ও জনতার পর এবার ছাপা বন্ধ হলো ইংরেজি দৈনিক দ্য ইন্ডিপেন্ডেন্টের সমীরণ রায় : [২] সংবাদপত্রটির নির্বাহী সম্পাদক শামীম এ জাহেদী বলেন, ‘করোনাভাইরাসের পরিস্থিতিতে কর্মীদের স্বাস্থ্য ও নিরাপত্তায় সর্বোচ্চ গুরুত্ব দিচ্ছি, তাই আজ বুধবার থেকে সাময়িকভাবে মুদ্রণ সংস্করণ বন্ধ রাখার সিদ্ধান্ত নিয়েছি’। [৩] তিনি আরো বলেন, ১৯৯৬ সালের ২৬ মার্চ দ্য ইন্ডিপেন্ডেন্ট এর যাত্রা শুরুর পর এমন দুর্যোগ আর আসেনি। করোনাভাইরাস সঙ্কট কেটে গেলে পরিস্থিতি বিবেচনা করে পত্রিকাটি পুনরায় মুদ্রণ শুরু করা হবে। [৪] গত ২৭ মার্চ করোনাভাইরাসের কারণে উদ্ভূত পরিস্থিতিতে ট্যাবলয়েড পত্রিকা মানবজমিনের ছাপা বন্ধ রয়েছে। তবে অনলাইনে সচল রয়েছে পত্রিকাটি। [৫] গত ৪ এপ্রিল আলোকিত বাংলাদেশের অফিসে নোটিশ ঝুলানো ছাড়াও সাংবাদিক ও সংবাদপত্র কর্মীদের কাছে নোটিশ পাঠানো হয়েছে। পত্রিকাটিতে তিন মাসের বেতন বকেয়া রয়েছে। [৬] ৪ এপ্রিল থেকে দৈনিক জনতার ছাপা সাময়িকভাবে বন্ধ রাখা হয়েছে। কর্তৃপক্ষ বলেছে, করোনাভাইরাসের কারণে সরকারি ছুটি অনুযায়ী পত্রিকাটির প্রকাশনা বন্ধ থাকবে। সম্পাদনা : খালিদ আহমেদ

আমাদের নতুন সময় : 07/04/2020

[১]মানবজমিন, আলোকিত বাংলাদেশ ও জনতার পর এবার ছাপা বন্ধ হলো ইংরেজি দৈনিক দ্য ইন্ডিপেন্ডেন্টের
সমীরণ রায় : [২] সংবাদপত্রটির নির্বাহী সম্পাদক শামীম এ জাহেদী বলেন, ‘করোনাভাইরাসের পরিস্থিতিতে কর্মীদের স্বাস্থ্য ও নিরাপত্তায় সর্বোচ্চ গুরুত্ব দিচ্ছি, তাই আজ বুধবার থেকে সাময়িকভাবে মুদ্রণ সংস্করণ বন্ধ রাখার সিদ্ধান্ত নিয়েছি’।
[৩] তিনি আরো বলেন, ১৯৯৬ সালের ২৬ মার্চ দ্য ইন্ডিপেন্ডেন্ট এর যাত্রা শুরুর পর এমন দুর্যোগ আর আসেনি। করোনাভাইরাস সঙ্কট কেটে গেলে পরিস্থিতি বিবেচনা করে পত্রিকাটি পুনরায় মুদ্রণ শুরু করা হবে।
[৪] গত ২৭ মার্চ করোনাভাইরাসের কারণে উদ্ভূত পরিস্থিতিতে ট্যাবলয়েড পত্রিকা মানবজমিনের ছাপা বন্ধ রয়েছে। তবে অনলাইনে সচল রয়েছে পত্রিকাটি।
[৫] গত ৪ এপ্রিল আলোকিত বাংলাদেশের অফিসে নোটিশ ঝুলানো ছাড়াও সাংবাদিক ও সংবাদপত্র কর্মীদের কাছে নোটিশ পাঠানো হয়েছে। পত্রিকাটিতে তিন মাসের বেতন বকেয়া রয়েছে।
[৬] ৪ এপ্রিল থেকে দৈনিক জনতার ছাপা সাময়িকভাবে বন্ধ রাখা হয়েছে। কর্তৃপক্ষ বলেছে, করোনাভাইরাসের কারণে সরকারি ছুটি অনুযায়ী পত্রিকাটির প্রকাশনা বন্ধ থাকবে। সম্পাদনা : খালিদ আহমেদ




সর্বশেষ সংবাদ

সম্পাদক ও প্রকাশক ঃ নাঈমুল ইসলাম খান

১৩২৭, তেজগাঁও শিল্প এলাকা (তৃতীয় তলা) ঢাকা ১২০৮, বাংলাদেশ। ( প্রগতির মোড় থেকে উত্তর দিকে)
ই- মেইল : [email protected]