• প্রচ্ছদ » » বিশেষজ্ঞরা আশ্বাস দেওয়ার আগ পর্যন্ত সামাজিক সংক্রমণ কমিয়ে রাখতে স্বাস্থ্যবিধি মেনে চলুন


বিশেষজ্ঞরা আশ্বাস দেওয়ার আগ পর্যন্ত সামাজিক সংক্রমণ কমিয়ে রাখতে স্বাস্থ্যবিধি মেনে চলুন

আমাদের নতুন সময় : 18/05/2020

এম আমির হোসেন

এ ধরনের ভাইরাস এমনিতেই দিন দিন দুর্বল হয়ে যাবে। পুনঃপুন মিউটেশন হয়ে এর সংক্রমণ ক্ষমতা (ভিরুলেন্সি) কমে আসবে। যেমন, সার্স, মার্স, স্প্যানিশ ফ্লু ভাইরাসগুলোর ক্ষেত্রে হয়েছিলো তেমন। পাশাপাশি অনেকের শরীরে এন্টিবডি, হার্ড ইমিউনিটিও তৈরি হবে। দিন দিন মানুষ ভাইরাসটির গতিপ্রকৃতিও বুঝবে। চিকিৎসা উন্নত হবে, টিকাও তৈরি হয়ে যেতে পারে। বর্তমান পরিসংখ্যানে দেখা যাচ্ছে, অ্যাক্টিভ (চিকিৎসা চলমান) কেসে ক্রিটিক্যাল কেস শতকরা মাত্র ২ শতাংশ, আগে যা ৫ শতাংশেরও বেশি ছিলো। ক্লোজড (চিকিৎসা সমাপ্ত) কেসে মৃত্যুহার ১৫ শতাংশ আগে যা ছিলো ২০ ভাগেরও বেশি।
এগুলো আশান্বিত হওয়ার মতো তথ্য। কিন্তু এই রোগ যার (কে হবে আমরা জানি না) মাঝে ভয়াবহতা সৃষ্টি করবে তার জন্য বা তার পরিবারের জন্য এই পরিসংখ্যান কোনো শান্তিই বয়ে আনতে পারবে না। তাই থামুন, আর ক’টা দিন সবুর করুন। বিশেষজ্ঞরা আশ্বাস দেওয়ার আগ পর্যন্ত সামাজিক সংক্রমণ কমিয়ে রাখতে স্বাস্থ্যবিধি মেনে চলুন। ঈদ শপিংটা, ঘোরাঘুরিটা এবারের মতো বন্ধ রাখুন। এ যাত্রায় যদি বেঁচে যান, যদি সুস্থ থাকেন তবে সেটাই হবে আপনার জন্য সবচেয়ে বড় ঈদ। ফেসবুক থেকে




সর্বশেষ সংবাদ

সম্পাদক ও প্রকাশক ঃ নাঈমুল ইসলাম খান

১৩২৭, তেজগাঁও শিল্প এলাকা (তৃতীয় তলা) ঢাকা ১২০৮, বাংলাদেশ। ( প্রগতির মোড় থেকে উত্তর দিকে)
ই- মেইল : [email protected]