করোনা চিকিৎসায় আইভারমেকটিন : অতি উচ্ছাসে দুষ্ট ওষুধ

আমাদের নতুন সময় : 20/05/2020

মেজর ডা. খোশরোজ সামাদ : অতি সম্প্রতি সোশ্যাল মিডিয়াসহ বিভিন্ন পত্রপত্রিকায় কয়েকজন বাংলাদেশী চিকিৎসকের উদ্ধৃতি দিয়ে করোনা চিকিৎসায় ‘আইভারমেকটিন’ নামের ওষুধ দ্বারা ৯০ টাকায় করোনা চিকিৎসায় শতভাগ সাফল্য দাবী করা হয়। আইভারমেকটিন ওষুধটি প্যারাসাইটের বিরুদ্ধে কার্যকরী ওষুধ। স্ক্যাবিজ, ফাইলেরিয়াসিস, বিভিন্ন রকম কৃমির বিরুদ্ধে ব্যবহার করা হয়। অদ্যবধি বিশেষ কিছু শর্তসাপেক্ষে বিশেষভাবে অসুস্থ রোগীদের চিকিৎসায়’ র‌্যামডিসিভির’ ওষুধটি ছাড়া কোন ওষুধকেই ফুড এন্ড ড্রাগ এজেন্সি বা অন্য কোন ওষুধ নিয়ন্ত্রক প্রতিষ্ঠান কোভিড -১৯ চিকিৎসায় স্বীকৃতি দেয়নি।
একটি ওষুধ নতুন কোনও রোগে চিকিৎসার জন্য ব্যাপক গবেষণা প্রয়োজন। সেই গবেষণার প্রথম পর্যায় ল্যাবরেটরি বা ভিট্রো টেস্টে সফল হলেও প্রাণী এবং সর্বোপরি মানুষের উপর প্রয়োগ করে সাফল্য পাওয়ার স্তর এখনও পেরুনো হয় নি। সুতরাং গবেষণার শেষ দুটি স্তর না অতিক্রম করা পর্যন্ত কোন ওষুধ প্রয়োগই বিধিসম্মত তো নয়ই বরং ঝুঁকিপূর্ণ বিধায় নিষিদ্ধ। কোন ওষুধই পার্শ্ব প্রতিক্রিয়া মুক্ত নয়। এই ওষুধ প্রয়োগে ‘নিউরোটকসিসিটির’ মত মারাতœক পার্শ্ব প্রতিক্রিয়া করতে পারে। আইভারমেকটিনের সাথে যুগপৎ ‘ডক্সিসাইক্লিন’ প্রয়োগের কথা বলা হয়েছে। ডক্সিসাইক্লিন একটি এন্টিবায়োটিক, করোনা ভাইরাসের উপর এর কোনই ভূমিকা নেই। এই সব অতি উচ্ছাসে দুষ্ট প্রচার সাধারণ মানুষের মনে আইভারমেকটিনের উপর মিথ্যে আশাবাদ আনতে পারে। ফলে মূল করণীয় হাত সাবান দিয়ে ধোয়া, মাস্ক পরা, সোসাল আইসোলেশন উপেক্ষিত হয়ে করোনা সংক্রমণ প্রতিরোধ বাধাগ্রস্ত হতে পারে। লেখক : ক্লাসিফাইড স্পেশালিস্ট, ফার্মাকোলজি, আর্মড ফোর্সেস মেডিকেল কলেজ




সর্বশেষ সংবাদ

সম্পাদক ও প্রকাশক ঃ নাঈমুল ইসলাম খান

১৩২৭, তেজগাঁও শিল্প এলাকা (তৃতীয় তলা) ঢাকা ১২০৮, বাংলাদেশ। ( প্রগতির মোড় থেকে উত্তর দিকে)
ই- মেইল : [email protected]