• প্রচ্ছদ » » নিপীড়িত রণেশ ঠাকুরদের পাশে কেন রাষ্ট্র থাকে না?


নিপীড়িত রণেশ ঠাকুরদের পাশে কেন রাষ্ট্র থাকে না?

আমাদের নতুন সময় : 21/05/2020

নূরী জাহানারা

রাষ্ট্র যখন নিরীহ, সংগীতে নিবেদিতপ্রাণ দরিদ্র বাউলদের, দরিদ্রদের পাশে থাকতে সমর্থ হয় কিংবা সিদ্ধান্ত গ্রহণ করে, তখন রাষ্ট্র আসলে একটি রাজনৈতিক দিকবদল ঘটায়। সে জনগণের সবচেয়ে ক্ষমতাহীন অংশটির পাশে দাঁড়ায়। এটি তখনই ঘটে যখন রাষ্ট্র জনগণের থাকে। যখন রাষ্ট্র জনগণের বাঁচার মূলভিত্তিকে সবকিছু উপরে স্থান দিয়ে প্রশাসনকে সে ই লক্ষ্যে পরিচালিত করতে সক্ষম হয়। এই রাজনৈতিক প্রজ্ঞা দেখানো সম্ভব এথিক্যাল, জনগণতান্ত্রিক সরকার থাকলে। এটি সম্ভব জনগণের পক্ষে রাজনীতি করা রাজনৈতিক দল থাকলে। বাংলাদেশে তা নেই, তার লক্ষণগুলোর একটি রণেশ ঠাকুরের সংগীতসাধনার স্থানটির কয়লা হয়ে যাওয়া। বিদ্যানন্দের নেতৃবৃন্দের মামলা খাওয়া কিংবা রাষ্ট্রচিন্তার কয়েকজনের জামিন না হয়ে অর্থচোরের জামিন হয়ে যাওয়া।
সরকারের ক্ষমতা এখন বেঁটে দেওয়া হয়েছে ওদের ভেতর যারা রণেশ ঠাকুরদের বাঁচার বিরুদ্ধে। সরকারের ক্ষমতা শেয়ার করা হচ্ছে এখন পুঁজি-লুটা বেনিয়া, রাজনৈতিক হাঙ্গামাবাজ, প্রজাতন্ত্রকে শুষে খাওয়া আমলা, কোরআন-হাদিসের ব্যবসায়ী ইসলামী নেতাপুতা, কওমী, সুন্নী মাদ্রাসার ধর্ম ক্যাডার পোষা চালবাজদের সাথে। যদি তা না হতো, রাষ্ট্র দরিদ্র জনগণের জন্যই কাজ করতো। পুঁজির সেবকদের দ্বারা সরকার চলে। সরকার জনগণের নয়, পুঁজি লুটেরাদের। জনগণকে নিয়ে কোনো সরকারেরই কখনো কোনো মাথাব্যাথা ছিল না, এখনও নেই। ব্যক্তি ও গোাষ্ঠীস্বার্থের উপরে উঠে সবার জন্য সমান প্রয়োগযোগ্য আইন ও সব মানুষের জন্য সমান সুযোগ তৈরির চেষ্টা সরকারগুলো করেনি। নিপীড়িতদের সহায় হতে জাতিসংঘের পরামর্শে দারিদ্র দূরীকরণকে উন্নয়ন ধারণার প্রধান কেন্দ্রবিন্দু করা হয়েছিলো। ভাগ্যনির্ভর ধর্মীয়ক‚পমÐুকদের নিয়ন্ত্রিত গ্রামবাংলায় নারীর অর্থনৈতিক কাজে এগিয়ে এসে, সে কাজে একটা বিপুল গতি সঞ্চার করে। কিন্তু পরিবারগুলো খুব বেশি এগোতে পারেনি। ধর্ম-পান্ডাদের লাগাতার নিরুৎসাহীকারী ওয়াজ-নসিহত, ধমকা-ধমকি, ভয় প্রদর্শন, দুর্নীতির ভয়াবহতা, আইনের শাসনহীনতা সবই জনগণের জীবনযুদ্ধকে, নারীর পরিবার বাঁচিয়ে রাখার লড়াইকে কতো কঠিন করে তুলেছে তা আমার নিজের চোখে দেখা। ২৯ বছর আমি এই গ্রামবাংলার মানুষের দৈনন্দিন যুদ্ধের ভেতর ছিলাম। এই যে কঠিনতর করে তোলা, তার পথ ধরে মধ্যবিত্ত নি¤œবিত্তে, নি¤œবিত্ত দরিদ্রে পরিণত হচ্ছে। সরকারের কি এই ভয়াবহ উন্নয়নের ওপর কোনো উপাত্ত আছে? সত্যিকারের তথ্যভিত্তিক উপাত্ত? ফেসবুক থেকে




সর্বশেষ সংবাদ

সম্পাদক ও প্রকাশক ঃ নাঈমুল ইসলাম খান

১৩২৭, তেজগাঁও শিল্প এলাকা (তৃতীয় তলা) ঢাকা ১২০৮, বাংলাদেশ। ( প্রগতির মোড় থেকে উত্তর দিকে)
ই- মেইল : [email protected]