[১]আম্ফানের প্রভাবে বিদ্যুৎ সরবরাহ ব্যবস্থায় বড় বিপর্যয়

আমাদের নতুন সময় : 22/05/2020

সিরাজুল ইসলাম : [২] ঝড়ের সময় দুই কোটি ২০ লাখের বেশি গ্রাহক বিদ্যুৎ বিচ্ছিন্ন হয়ে পড়ে। এ সংখ্যা মোট গ্রাহকের প্রায় ৬০ শতাংশ। বৃহস্পতিবার ভোর থেকে সংযোগ পুনঃস্থাপনের কাজ শুরু করে সংশ্লিষ্টরা। দুপুর পর্যন্ত এক কোটি ৩০ লাখ গ্রাহক বিদ্যুৎ পায়নি। [৩] ছয়টি বিতরণ সংস্থার অধীনে রয়েছে তিন কোটি ৬৫ লাখ বিদ্যুৎ গ্রাহক। ১ কোটি ২০ লাখের বেশি গ্রাহকের সংযোগ বন্ধ বা বিচ্ছিন্ন থাকায় চাহিদা ১০ হাজার মেগাওয়াট থেকে আড়াই হাজার মেগাওয়াটে নেমে আসে। [৪] পল্লী বিদ্যুতায়ন বোর্ডের এক সদস্য জানান, ২৫ হাজার স্পটে তার ছিঁড়ে পড়েছে। তিনশর মতো খুঁটি ভাঙার খবর পেয়েছেন তিনি। এ সংখ্যাটা আরও বাড়ছে। প্রায় ৪০ হাজার মিটার ভেঙে গেছে। আরেক কর্মকর্তা বলেন, কুষ্টিয়া, সাতক্ষীরা, যশোর, পটুয়াখালী জেলা পুরোপুরি বিদ্যুৎ বিচ্ছিন্ন রয়েছে। [৫] পাওয়ার গ্রিড কোম্পানি অব বাংলাদেশের জনসংযোগ শাখার পরিচালক এবিএম বদরুদ্দোজা সুমন বলেন, সাব স্টেশনের দুটি ট্রান্সফরমার জ্বলে যাওয়ায় কুষ্টিয়াসহ কয়েকটি জেলায় দীর্ঘমেয়াদে বিদ্যুৎ বিচ্ছিন্ন থাকতে পারে। [৬] বিদ্যুৎ প্রতিমন্ত্রী নসরুল হামিদ বলেন, বৃহস্পতিবার বিকাল ৪টা পর্যন্ত ক্ষতিগ্রস্ত এলাকার ৬০ শতাংশে রিকভার করা গেছে। কুষ্টিয়াতে রিকভার করতে আরও ২/৩ দিন লাগবে। [৭] ওয়েস্ট জোন পাওয়ার ডিস্ট্রিবিউশন কোম্পানির ব্যবস্থাপনা পরিচালক শফিক উদ্দিন জানান, ১২ লাখ গ্রাহকের প্রায় সবাই ঝড়ের সময় বিদ্যুৎবিচ্ছিন্ন ছিলেন। দুপুর পর্যন্ত ছয় লাখ গ্রাহক বিদ্যুৎ পেয়েছেন।




সর্বশেষ সংবাদ

সম্পাদক ও প্রকাশক ঃ নাঈমুল ইসলাম খান

১৩২৭, তেজগাঁও শিল্প এলাকা (তৃতীয় তলা) ঢাকা ১২০৮, বাংলাদেশ। ( প্রগতির মোড় থেকে উত্তর দিকে)
ই- মেইল : [email protected]