• প্রচ্ছদ » প্রথম পাতা » [১]৫০ শয্যা ও তদুর্ধ্ব সকল সরকারি বেসরকারি হাসপাতালে নন কোভিড রোগীদের জন্য আলাদা ব্যবস্থা রাখতে হবে, অন্যথায় শাস্তি [২]দ্বিমত করে জনস্বাস্থ্য বিশেষজ্ঞ ডা. লেনিন চৌধুরী বললেন, নন কোভিড রোগীরা আগ্রহী হবে না


[১]৫০ শয্যা ও তদুর্ধ্ব সকল সরকারি বেসরকারি হাসপাতালে নন কোভিড রোগীদের জন্য আলাদা ব্যবস্থা রাখতে হবে, অন্যথায় শাস্তি [২]দ্বিমত করে জনস্বাস্থ্য বিশেষজ্ঞ ডা. লেনিন চৌধুরী বললেন, নন কোভিড রোগীরা আগ্রহী হবে না

আমাদের নতুন সময় : 27/05/2020

সালেহ্ বিপ্লব, শরীফ শাওন : [৩] এই নির্দেশ দিয়ে স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয় বলেছে, স্বাস্থ্য অধিদপ্তরের জনস্বাস্থ্য বিশেষজ্ঞরা বিভিন্ন দেশের কোভিড ১৯ চিকিৎসা ব্যবস্থাপনা পর্যালোচনা করেছেন। তারা একই হাসপাতালে কোভিড ও নন কোভিড রোগীদের চিকিৎসা করার পক্ষেই মত দিয়েছেন। [৪] এর পরিপ্রেক্ষিতে মন্ত্রণালয়ের অতিরিক্ত সচিব মো. সিরাজুল ইসলাম স্বাক্ষরিত এই আদেশে ৫০ সব হাসপাতালে নন কোভিড রোগের চিকিৎসার আলাদা ব্যবস্থা করার নির্দেশ দেয়া হয়েছে। [৫] তবে ভিন্নমত প্রকাশ করেছেন হেলথ এন্ড হোপ হাসপাতাল লিমিটেডের চেয়ারম্যান ও জনস্বাস্থ্য বিশেষজ্ঞ ড. লেলিন চৌধুরী। তিনি বলেন, নন কোভিড রোগী কখনোই করোনা হাসপাতালে চিকিৎসা নিতে আগ্রহ প্রকাশ করবে না। ভর্তি করা হলেও সর্বদা করোনা আক্রান্তের শঙ্কায় থাকবেন। রোগীর মনের দঢ়তা কমে যাবে। তিনি বলেন, যে কোন রোগ থেকে আরোগ্য পাওয়ার প্রধান বিষয় হচ্ছে ইতিবাচক মনোবল। ফলে করোনা হাসপাতালে তাদের চিকিৎসা না করাই শ্রেয়। [৬] তিনি বলেন, নন কোভিড হাসপাতালগুলোতে করোনা সন্দেহভাজন রোগীদের জন্য আলাদা জোন রাখতে হবে। সেই জোনে ভর্তি রোগীদের টেস্ট করা হবে। ভাইরাস শনাক্ত হলে তাদের চিকিৎসা দিতে করোনা হাসপাতালে পাঠানোর ব্যবস্থা করতে হবে।
[৭] তার অভিমত আমরা দেখেছি স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয় এবং অধিদপ্তর করোনা মুহুর্তে অনেক সিদ্ধান্ত নিয়ে আবার প্রত্যাহার করেছে।




সর্বশেষ সংবাদ

সম্পাদক ও প্রকাশক ঃ নাঈমুল ইসলাম খান

১৩২৭, তেজগাঁও শিল্প এলাকা (তৃতীয় তলা) ঢাকা ১২০৮, বাংলাদেশ। ( প্রগতির মোড় থেকে উত্তর দিকে)
ই- মেইল : [email protected]