• প্রচ্ছদ » » করোনাকালে শিক্ষা ব্যবস্থা কেমন হওয়া উচিত?


করোনাকালে শিক্ষা ব্যবস্থা কেমন হওয়া উচিত?

আমাদের নতুন সময় : 30/05/2020

মোহাম্মদ বাছিত

লকডাউন শুরু হবার পর শিক্ষা প্রতিষ্ঠানসমূহ বন্ধ। ছাত্রছাত্রীদের যখন জিজ্ঞেস করি কী করছো? প্রায় সবার একই উত্তরÑ ‘ভার্সিটি বন্ধ কি আর করবো স্যার, শুয়ে-বসে, বসে-শুয়ে সময় কাটাচ্ছি, খুব বোরিং টাইম স্যার’। আচ্ছা বাবারা, শিক্ষা প্রতিষ্ঠানে প্রাতিষ্ঠানিক শিক্ষার সুযোগ অনেকেই তো পাননি, অনেকে ইচ্ছে করেই নেননি। কয়েকটি উদাহরণ একটু বলি। ইতালির ছোট সাদিনিয়া দ্বীপের দ্বীপবাসিনী গ্রেজিয়া’র জীবনে প্রাতিষ্ঠানিক শিক্ষার সুযোগ হয়নি, তবে খধ-গধফৎব উপন্যাসে তার চিন্তাধারার বলিষ্ঠতা, অসাধারণ মনস্তাত্তি¡ক বিশ্লেষণ, বিশেষ করে মায়ের চরিত্র চিত্রণের উৎকর্ষ এই দ্বীপবাসিনীকে বিশ্বজোড়া খ্যাতি এনে দিয়েছিল। তিনি ১৯২৬ সালে সাহিত্যে নোবেল পুরস্কার লাভ করেছিলেন। পৃথিবী জুড়ে এমন অজ¯্র উদাহরণ রয়েছে। তবে আমাদের কাছে মূর্তিমান উদাহরণ বিদ্ব্যান ব্যক্তি আরজ আলী মাতুব্বর। কোনো বিদ্যাপীঠে শিক্ষা লাভের সুযোগ তার হয়নি তবে ‘স্বশিক্ষিত’ শব্দটির বাস্তব দৃষ্টান্ত এই চিন্তাবিদ।
শিল্পী এস এম সুলতান কলকাতা আর্ট কলেজে পড়ার সময় প্রথম বর্ষে দ্বিতীয় স্থান অর্জন করেছিলেন, দ্বিতীয় এবং তৃতীয় বর্ষে প্রথম স্থান। কিন্তু অ্যাকাডেমিক প্রসেসটি দীর্ঘ মনে হবার কারণে প্রাতিষ্ঠানিক শিক্ষার ইতি টেনে একদিন শিল্পী পথে নেমে পড়েছিলেন, আর এভাবেই সূত্রপাত হয়েছিল তার বোহেমিয়ান জীবনের। কবিগুরু এবং জাতীয় কবির জীবনের প্রাতিষ্ঠানিক শিক্ষার বিষয়টিও আমরা কম বেশি জানি। আমাদের কিছু দার্শনিক, চারণকবিদেরও কোনো প্রতিষ্ঠানে পড়াশোনা করেননি। করোনা মহামারিতে প্রাতিষ্ঠানিক শিক্ষা কার্যক্রম বন্ধ থাকলে কিংবা তত্ত¡ীয় বিষয়গুলোর ক্লাস অনলাইনে শুরু হলেও মূল্যবান সময় নষ্ট না করে প্রথাগত প্রাতিষ্ঠানিক শিক্ষার বাইরে গিয়ে বিভিন্ন মাধ্যম থেকে নতুন নতুন বিষয়বস্তু জানার এবং শেখার প্রচেষ্টা শিক্ষার্থীরা অব্যাহত রাখলে এতো বিরক্ত হবার সুযোগ কোথায়? ফেসবুক থেকে




সর্বশেষ সংবাদ

সম্পাদক ও প্রকাশক ঃ নাঈমুল ইসলাম খান

১৩২৭, তেজগাঁও শিল্প এলাকা (তৃতীয় তলা) ঢাকা ১২০৮, বাংলাদেশ। ( প্রগতির মোড় থেকে উত্তর দিকে)
ই- মেইল : [email protected]