• প্রচ্ছদ » » জনগণকে নিয়ে জুয়া খেলার মনস্থির করেছে সরকার!


জনগণকে নিয়ে জুয়া খেলার মনস্থির করেছে সরকার!

আমাদের নতুন সময় : 30/05/2020

ফিরোজ আহমেদ

এমনকি যোগ্য একটা ডাকাত দলেরও একটা পরিকল্পনা, একটা সমন্বয়, একটা বিকল্প ভাবনা থাকে। এই সরকারের কিছু নেই, অস্থিরমতি এবং অযোগ্য এবং বিবেচনাহীন। সামনের সপ্তাহেই রোগীর সংখ্যায় উল্লম্ফন দেখে আবারও লক ডাউনে ফেরত গেলে অবাক হবো না। বাংলাদেশ নিয়ে কোনো যথাযথ পরিকল্পনা নেয়াটা এই কারণে কঠিন যে, সরকার আসল জায়গাটাতে কাজটা করেনি, সেটা হলো পরীক্ষা। সরকারি হিসেবেই বাংলাদেশে জানুয়ারি ফেব্রæয়ারি ও মার্চ মাসে যে বিপুল বৃদ্ধি পেয়েছিল শ্বাসতন্ত্রের রোগে আক্রান্ত মানুষের সংখ্যা, তার কোনো ব্যাখ্যা পাবার চেষ্টা সরকার করেনি। এখনো এই পরীক্ষাটা করা হচ্ছে না। ফলে দেশে সত্যিকারের করোনা রোগীর সংখ্যা কতো আমরা জানি না। পিসিআর যন্ত্র বাদ দিন, যদি গণস্বাস্থ্যের কিট এবং এই জাতীয় যন্ত্রগুলো দিয়ে এন্টিবডি পরীক্ষা করা হতো, কিংবা এখনো হয়, লাখে লাখে মানুষকে পরীক্ষা করে দেখা যায় তাদের সংক্রমণ ইতোমধ্যে ঘটে তারা সুস্থ হয়ে গিয়েছেন কিনা, তাহলে জনগোষ্ঠীর সেই অংশকে উৎপাদনী কাজে ফেরত পাঠানো যেতো। এমনকি আমরা হয়তো জনগোষ্ঠীর একটা বড় অংশকেই নির্ভয়ে কাজে নামাতে পারতাম। কিন্তু সেই সামান্য কাজটুকু আমরা করছি না।
এবং অন্ধের মতো আমাদের গোটা জনগণকে করোনা-আক্রান্ত যুদ্ধক্ষেত্রে পাঠিয়ে দিচ্ছি। বাংলাদেশের কপাল খুব ভালো হবে, যদি সরকারের অদক্ষতা ও অযোগ্যতায় ইতোমধ্যেই জনগণের একটা বড় অংশ করোনার সংক্রমণের মধ্য দিয়ে অতিক্রম করে থাকেন (এবং আবহওয়া বা করোনার ধরনবৈশিষ্ট্যের কারণে মৃত্যুর হাত থেকে বেঁচে যান]। সেটা যদি না হয়ে থাকে, সামনের সপ্তাহে আমাদের ইতিহাসে প্রথম লাশ পরে থাকতে দেখতে পারি, এই মুজিব শতবর্ষের বছরেই। জীবন ও জীবিকার সংঘাতের কথা বলা হচ্ছে। এই প্রবল মূর্খতা এই সোজা বিষয়টা খেয়াল করছে না যে, সারা দুনিয়ায় মহামারী এখন নি¤œগামী। এই সময়ে সারা দুনিয়া ধীরে ধীরে খুলে গেলে আর বাংলাদেশে তখন নতুন করে মহামারীর বিস্তার বাড়লে আমরা আসলে দুনিয়া থেকে আরও মাস দুয়েক পিছিয়ে যেতে পারি।
সরকারি হিসেবেই যদি এটা মেলে যে সাত আট মাসের মতো খাবার যোগান দেয়ার সুযোগ আমাদের আছে, ৩ কোটি পরিবারকে মাসে ৫ হাজার টাকা খরচা দিয়ে ২ মাস বসিয়ে খাওয়াবার সামর্থ্য আমাদের আছে। তাতে খরচ হতো মাত্র ৩০ হাজার কোটি টাকা। অথচ, কারখানায় করোনা ছড়িয়ে পড়লে, শ্রমিকরা সহিংস হলে, পুলিশ করোনাক্রান্ত হয়ে অকেজো হয়ে পড়লে, চিকিৎসকরা চিকিৎসা না করতে পারলে উৎপাদনের আরও দীর্ঘমেয়াদে ক্ষয়ক্ষতি হবে। কিন্তু সরকার জনগণকে নিয়ে জুয়ো খেলবারই মনস্থির করেছে। ফেসবুক থেকে




সর্বশেষ সংবাদ

সম্পাদক ও প্রকাশক ঃ নাঈমুল ইসলাম খান

১৩২৭, তেজগাঁও শিল্প এলাকা (তৃতীয় তলা) ঢাকা ১২০৮, বাংলাদেশ। ( প্রগতির মোড় থেকে উত্তর দিকে)
ই- মেইল : [email protected]