• প্রচ্ছদ » » মুখের উপর বলে দিন, ‘আপনি মাস্ক পরেন না, ফলে আমি আপনার দোকান থেকে কিচ্ছু কিনবো না’


মুখের উপর বলে দিন, ‘আপনি মাস্ক পরেন না, ফলে আমি আপনার দোকান থেকে কিচ্ছু কিনবো না’

আমাদের নতুন সময় : 03/06/2020

সাইফুদ্দিন আহমেদ নান্নু

মুখের উপর বলে দিন। পাড়া, মহল্লা,বাজারের যে দোকানদার মাস্ক পরবেন না, কিংবা কাস্টমার চলে গেলে মুখের মাস্ক থুতনীতে নামিয়ে এনে গল্প করেন, নাক খোলা রেখে মাস্ক পরেন,তার দোকান থেকে কোনও পণ্য কিনবেন না, বাড়তি ঝুঁকি নেবেন না। একই সাথে, তাকে মুখের উপর একথা বলে দিন, ‘আপনি মাস্ক পরেন না, তাই আমি আপনার দোকান থেকে কিচ্ছু কিনবো না।’ এই দোকান মাছের, ফলের দোকান থেকে শুরু করে মুদি, মনোহারি, স্টেশনারি হয়ে জুয়েলারির দোকান পর্যন্ত হতে পারে। কারণ প্রাণঘাতি করোনা এখন ল²ণ, উপসর্গহীন বাহকের মাধ্যমে সামাজিক সংক্রমণের স্তরে আছে।
আপনি যে দোকান থেকে, যার হাত থেকে পণ্য কিনছেন, ভাংতি টাকা ফেরত নিচ্ছেন, তিনিও হতে পারেন উপসর্গহীন করোনার বাহক। তার মাস্কহীন খোলামুখের হাঁচি,কাশির ড্রপলেট দোকানে রাখা পন্যের গায়ে পরবেই এবং সেই পণ্য কিনে আপনি সংক্রমিত হতে পারেন। মাস্ক পরা সেলসম্যান,দোকানদারের দোকানের পণ্য কেনার তুলনায় মাস্কহীন দোকানদারের দোকানের পণ্য কেনার ঝুঁকিটা অনেক বেশি।
ঠিকমতো মাস্ক পরা দোকানদার, সেলসম্যান, হাঁচি-কাশি দিলেও তার ড্রপলেট ছড়াবে অনেক কম। ঠিক একইভাবে প্রত্যেক দেকানদার, সেলসম্যানেরও উচিত নিজের নিরাপত্তার জন্য মাস্কহীন,নাক বের করে মাস্ক পড়া কাস্টমারকে সাফ বলে দেয়া, ‘ভাই, আপনি মাস্ক পরেননি, আপনার কাছে আমি জিনিস বেঁচবো না।’ যে রিকশার, সিএনজির, রেন্ট-এ কারের ড্রাইভার মাস্ক পরেন না, তাকে পরিষ্কার ভাষায় বলে দিন, ‘আমি আপনার রিকশায়, সিএনজিতে উঠবো না। কারণ আপনার মুখে মাস্ক নেই।’ বেশি না, মাত্র ৭ দিন এই বলাটার কাজটা লজ্জা, সঙ্কোচ ভেঙে বলে যাই, দেখবেন ম্যাজিকের মতো কাজ হচ্ছে। ফেসবুক থেকে




সর্বশেষ সংবাদ

সম্পাদক ও প্রকাশক ঃ নাঈমুল ইসলাম খান

১৩২৭, তেজগাঁও শিল্প এলাকা (তৃতীয় তলা) ঢাকা ১২০৮, বাংলাদেশ। ( প্রগতির মোড় থেকে উত্তর দিকে)
ই- মেইল : [email protected]