• প্রচ্ছদ » প্রথম পাতা » [১]কোভিড-১৯ পরিস্থিতিতে পোশাক কারখানায় শ্রমিক ছাঁটাইয়ের সিদ্ধান্ত আইনের পরিপন্থী : আইনজ্ঞদের অভিমত [২]আনিসুল হককে নিয়ে মানুষ গর্ব করে, তাই রুবানা হকের কাছেও প্রত্যাশা, কোন শ্রমিক যাতে চাকরিচ্যুত না হয়


[১]কোভিড-১৯ পরিস্থিতিতে পোশাক কারখানায় শ্রমিক ছাঁটাইয়ের সিদ্ধান্ত আইনের পরিপন্থী : আইনজ্ঞদের অভিমত [২]আনিসুল হককে নিয়ে মানুষ গর্ব করে, তাই রুবানা হকের কাছেও প্রত্যাশা, কোন শ্রমিক যাতে চাকরিচ্যুত না হয়

আমাদের নতুন সময় : 06/06/2020

নূর মোহাম্মদ : [২] মহামারীতে ভোক্তাদের চাহিদা কমে যাওয়ার কথা বলে চলতি মাস থেকেই পোশাক শ্রমিকদের ছাঁটাইর আশংকা প্রকাশ করেছেন বিজিএমইএ সভাপতি ড. রুবানা হক।
[৩] সুপ্রিম কোর্টের জ্যেষ্ঠ আইনজীবী খুরশিদ আলম খান বলেন, সরকার তার প্রজ্ঞা দিয়ে চেষ্টা করছে অর্থনীতির চাকা সচল রাখতে, তাদের প্রণোদনা দিয়ে টিকিয়ে রাখতে। এই পরিস্থিতিতে রুবানা হকের বক্তব্য সরকারের সিদ্ধান্তের বিপরীতে বলে মনে হয়। শ্রম আইন ও বিধির তোয়াক্কা না করে এ ধরনের বক্তব্য বোধগম্য নয়। [৪] সুপ্রিম কোর্টের আইনজীবী মোতাহার হোসেন সাজু বলেন, বিশাল অঙ্কের প্রণোদনা সত্ত্বেও মালিকরা কেবল নিজেদের স্বার্থ দেখছেন। কারো বিরুদ্ধে অসদাচরণের অভিযোগ থাকলে বরখাস্ত করা যাবে। শ্রম আইনের ২০ ধারায় বলা হয়েছে, যাদের চাকরির মেয়াদ এক বছরের বেশি, তাদের বরখাস্ত করার ক্ষেত্রে প্রতি বছরের জন্য, ৩০ দিনের বেসিক পরিশোধ করতে হবে। [৫] ব্যারিস্টার আব্দুল্লাহ মাহমুদ বাশার বলেন, শ্রম আইনের ১২ (১) ধারায় বলা আছে, মহামারি হলে কারখানা বন্ধ রাখতে হবে। ১২ (৮) ধারায় বলা হয়েছে, ৩ দিনের বেশি সময় বন্ধ থাকলে বেতনসহ অন্যান্য সুযোগ-সুবিধা অর্ধেক পাবেন। ১৬ ধারায় লে-অফ ঘোষণার কথা বলা আছে। সম্পাদনা : সালেহ্ বিপ্লব




সর্বশেষ সংবাদ

সম্পাদক ও প্রকাশক ঃ নাঈমুল ইসলাম খান

১৩২৭, তেজগাঁও শিল্প এলাকা (তৃতীয় তলা) ঢাকা ১২০৮, বাংলাদেশ। ( প্রগতির মোড় থেকে উত্তর দিকে)
ই- মেইল : [email protected]