• প্রচ্ছদ » » বড় আফসোস, শোষণ-বঞ্চনা, অন্যায়-অপশাসনের বিরুদ্ধে আর গর্জে উঠবে না কামাল লোহানীর কণ্ঠ


বড় আফসোস, শোষণ-বঞ্চনা, অন্যায়-অপশাসনের বিরুদ্ধে আর গর্জে উঠবে না কামাল লোহানীর কণ্ঠ

আমাদের নতুন সময় : 21/06/2020

চিররঞ্জন সরকার : ‘জন্মিলে মরিতে হবে রে জানে তো সবাই তবু মরণে মরণে অনেক ফারাক আছে ভাই রে, সব মরণ নয় সমান।’ কামাল লোহানীর মহাপ্রয়াণের পর প্রতুল বন্দ্যোপাধায়ের এই গানটির কথা খুব মনে পড়ছে। কামাল লোহানীর জীবনবোধের মূল কথাই ছিল পরাজয় স্বীকার না করা। তবে এবার পরাজিত হতেই হল। শেখ রাসেল জাতীয় গ্যাস্ট্রোলিভার ইন্সটিটিউট ও হাসপাতালের আইসিইউতে প্রায় ৩৪ ঘণ্টা লড়াই শেষ করে তিনি আজ সকালে পরলোকে গমন করলেন। বার্ধক্যজনিত নানা রোগের সঙ্গে লড়াই করেই তিনি গত কয়েক বছর ধরে টিকে ছিলেন। করোনাকালে বেশ কিছুদিন তিনি হেল্থ অ্যান্ড হোপ হাসপাতালে চিকিৎসাধীন ছিলেন। মাঝে একটু ভালো বোধ করায় তাঁকে বাসায় নিয়ে যাওয়া হয়। যদিও সেখানেও তাঁকে ক্ষণে ক্ষণে অক্সিজেন-সাপোর্ট দিতে হয়েছে। কিন্তু পরিস্থিতির অবনতি হওয়ায় তাঁকে গতকালই শেখ রাসেল জাতীয় গ্যাস্ট্রোলিভার ইন্সটিটিউট ও হাসপাতালের আইসিইউতে ভর্তি করা হয়। ‘আকণ্ঠ বিপ্লব পিপাসু’ অসা¤প্রদায়িক এবং সাম্য চিন্তায় বিশ্বাসী কামাল লোহানী এক দ্রোহী মানুষের নাম। যিনি জীবনে আপোষ করেননি। সাংবাদিক, সাংস্কৃতিক আন্দোলনের পুরোধা ব্যক্তিত্ব, সর্বোপরি তিনি আজীবন অন্যায়-অপশাসনের বিরুদ্ধে ছিলেন রাজপথের অগ্রণী সৈনিক। তিনি ছিলেন গত প্রায় সাত দশক ধরে ভারত-পাকিস্তান-বাংলাদেশ নামক রাষ্ট্রের যাবতীয় বিবর্তনের দ্রষ্টা, এই দেশের অনেক ইতিহাসের সাক্ষী, নির্মাতা। তাঁর চলে যাওয়ার মধ্যে দিয়ে ইতিহাসের একটি পর্ব শেষ হলো, শেষ হলো একজন কিংবদন্তী বিপ্লবী মানুষের পথ চলা। তিনি বহু আন্দোলনের নেতৃত্ব দিয়েছেন, বহু আন্দোলনের সূচনা ঘটিয়েছেন, বহু মানুষকে দিশা দিয়েছেন। বাংলাদেশে এমন কর্মময় বিপ্লবী জীবন খুবই ছিল। আমাদের সবচেয়ে বড় আফসোস, শোষণ-বঞ্চনা, অন্যায়-অপশাসনের বিরুদ্ধে আর গর্জে উঠবে না কামাল লোহানীর কণ্ঠ। রাজপথে দেখা যাবে তাঁর সৌম্য মূর্তি খানি! তবে যাঁর কর্মযজ্ঞ হিমালয়ের মতো বিরাট, মৃত্যুতে তিনি নিঃশেষ হবেন না! সব মরণ নয় সমান! কামাল লোহানীর মৃত্যুতে গভীর শোক প্রকাশ করছি। শ্রদ্ধা জ্ঞাপন করছি।




সর্বশেষ সংবাদ

সম্পাদক ও প্রকাশক ঃ নাঈমুল ইসলাম খান

১৩২৭, তেজগাঁও শিল্প এলাকা (তৃতীয় তলা) ঢাকা ১২০৮, বাংলাদেশ। ( প্রগতির মোড় থেকে উত্তর দিকে)
ই- মেইল : [email protected]