খায়ের, খারিয়াত, খয়রাত, খয়রাতি অতঃপর বন্ধু সামলে

আমাদের নতুন সময় : 26/06/2020

মোহাম্মদ আলী বোখারী, টরন্টো থেকে :
আরবি, ফার্সি, উর্দু ও হিন্দিতে খায়ের, খারিয়াত, খয়রাত ও খয়রাতি এই শব্দ চতুষ্ঠয়ে একটি নিরবিচ্ছিন্ন সম্পর্ক রয়েছে। এদের বাংলা অর্থ হচ্ছে- ভাল, ভালত্ব, শৌর্য, উপকার, সৌভাগ্য, সমৃদ্ধি, কল্যাণ, দাতা, দানশীল, প্রদানকারী এবং খেতাব ও সম্পদদাতা। বোধকরি, সেজন্য আবুল খায়ের মুসলেহউদ্দিন বলে আমাদের একজন সুলেখক ছিলেন এবং পুরনো ঢাকার জমিদার আবুল খায়রাতের নামকরণকৃত রোডে ঐতিহ্যবাহী তারা মসজিদের অবস্থান। কিন্তু ব্যত্যয় ঘটেছে যখন গত ২০ জুন কলকাতার দৈনিক আনন্দবাজার ‘লাদাখের পরে ঢাকাকে পাশে টানছে বেজিং’ শীর্ষক খবরে তারা ‘খয়রাতি’ শব্দটি ব্যবহার করেছে। এ নিয়ে সামাজিক ও গণমাধ্যমে জোর আপত্তি উঠেছে, সম্ভবত সেটি ব্যক্তিবিশেষের প্রায়োগিক শব্দের পরিবর্তে একটি দেশের আনুকল্যকে উপহাসতুল্য করেছে। যেমন- ‘তাবৎ’ শব্দটি ‘সব কিছু’ বোঝাতে ব্যবহার হলেও সবক্ষেত্রে তার ব্যবহারটি বেমানান। তাই আনন্দবাজার ২৩ জুন সম্পাদকীয় পাতায় একটি ‘ভ্রম সংশোধন’ ছেপে বলেছে- ‘খয়রাতি শব্দের ব্যবহারে অনেক পাঠক আহত হয়েছেন বলে জানিয়েছেন। অনিচ্ছাকৃত এই ভুলের জন্য আমরা দুঃখিত ও নিঃশর্ত ক্ষমাপ্রার্থী।’
তবে ওই ‘ভ্রম সংশোধন’-এর যথার্থতা মেলে একই পাতায় প্রকাশিত করোনাকালে দানসামগ্রীর বণ্টন নিয়ে ক্যালিফোর্নিয়া বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রণব বর্ধনের ‘দানসামগ্রী, না কি অধিকার’ শিরোনামযুক্ত কলামটিতে। তাই ভারতের লাদাখ বিষয়ে প্রতিবেশী নেপাল চীনের একনিষ্ঠ হলেও বাংলাদেশ বলতে গেলে নিশ্চুপ, সেটা ভারতের মিডিয়ারই বিশ্লেষণ। এক্ষেত্রে করোনা মহামারিতে কৌশলগতভাবে বাংলাদেশের সাহায্যে চীন এগিয়ে এসেছে এবং ৯৭ শতাংশ পণ্য আমদানিতে শুল্ক ছাড় দিয়েছে, তাতে আনন্দবাজারের ওই অতি উচ্ছ্বসিত শব্দ প্রয়োগ নেহায়েতই বেমানান, এমনকী বন্ধু সামলানোর ক্ষেত্রেও বুমেরাং। কেননা বাংলাদেশও অনুরূপ নেপালের অবস্থানে গেলে ভারতের বন্ধুপ্রতীম বলতে কেউ আর থাকবে না।




সর্বশেষ সংবাদ

সম্পাদক ও প্রকাশক ঃ নাঈমুল ইসলাম খান

১৩২৭, তেজগাঁও শিল্প এলাকা (তৃতীয় তলা) ঢাকা ১২০৮, বাংলাদেশ। ( প্রগতির মোড় থেকে উত্তর দিকে)
ই- মেইল : [email protected]