• প্রচ্ছদ » » দাদি লুকিয়ে লুকিয়ে সবার আগে আমাদের দুই ভাইকে মাংস খাওয়াতেন


দাদি লুকিয়ে লুকিয়ে সবার আগে আমাদের দুই ভাইকে মাংস খাওয়াতেন

আমাদের নতুন সময় : 29/07/2020

অধ্যাপক নজরুল ইসলাম

ঈদ এলেই আর দেরি করতাম না। পরিবারের সবাই মিলে দাদার বাড়িতে চলে যেতাম। আমার দাদা বাড়ি ছিলো শরিয়তপুরের হেলারগঞ্জে। চাচাতো ভাইবোন এবং আত্মীয়-স্বজনদের সঙ্গে মিলে জাঁকজমকপূর্ণভাবে কোরবানির ঈদটাকে উপভোগ করতাম। খুবই আনন্দ হতো। সবাই একসঙ্গে মিলে মসজিদে ঈদের নামাজ পড়তে যেতাম। যা এখনো মনে পড়ে। আমার বয়স যখন ৮ বছর তখন শরিয়তপুরে খুব বন্যা হয়েছিলো। সেই সময় আমার এবং ছোট ভাই মঞ্জুরুলের প্রচÐ জ্বর হয়েছিলো। এদিকে ঈদে সবাই মাংস খাচ্ছে। আনন্দ করছে, আর আমরা তখন শয্যাশায়ী অবস্থায় ছিলাম। তখন, ইচ্ছা করলোও দুজনেরই মাংস খাওয়া নিষিদ্ধ ছিলো। কিন্তু আমাদের বৃদ্ধ দাদি তা মেনে নিতে পারেননি। মনে হয় তিনি আমাদের মনের কথা বুঝতে পেরেছিলেন। দু-টুকরো মাংস সবার আড়ালে লুকিয়ে আমাদের দুই ভাইকে খাইয়েছিলেন। যা আজও মনে পড়ে। মনে হয় এই বুঝি লুকিয়ে আমাদের দুই ভাইকে আবারও মাংস খাওয়ার জন্য ডাকছেন। বলছেন, তোরা আয়, দ্রæত সবাই আসার আগে বিসমিল্লাহ বলে খেয়ে নে। শৈশবের ঈদগুলোকে খুব আনন্দ এবং উল্লাসের সঙ্গে কাটিয়েছি। যা স্মৃতিরপাতায় এখনো ভাসে। এখন জীবন ব্যবস্থা শহরকেন্দ্রিক হওয়ায় আগের সেই আমেজ খুঁজে পাওয়া যায় না। পরিচিতি : নগর পরিকল্পনাবিদ। সাক্ষাৎকার নিয়েছেন ফাহমিদা তিশা।




সর্বশেষ সংবাদ

সম্পাদক ও প্রকাশক ঃ নাঈমুল ইসলাম খান

১৩২৭, তেজগাঁও শিল্প এলাকা (তৃতীয় তলা) ঢাকা ১২০৮, বাংলাদেশ। ( প্রগতির মোড় থেকে উত্তর দিকে)
ই- মেইল : info@amadernotunshomoy.com