• প্রচ্ছদ » » তিয়াত্তরের অধ্যাদেশে চলা ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় ফিরে পাক তার গৌরব, শক্তি ও সাহস


তিয়াত্তরের অধ্যাদেশে চলা ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় ফিরে পাক তার গৌরব, শক্তি ও সাহস

আমাদের নতুন সময় : 12/09/2020

আরিফুজ্জামান তুহিন : ‘জ্যোতির্ময় জিয়া’ লেখার অপরাধে কেউ বহিষ্কৃত হতে পারে ৭৩-এর অধ্যাদেশের ঢাবিতে? পত্রিকায় লেখা কলামে জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান ও সংবিধান অবমাননা এবং মুক্তিযুদ্ধের ইতিহাস বিকৃত করার অভিযোগে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের মার্কেটিং বিভাগের অধ্যাপক মোর্শেদ হাসান খানকে চাকরিচ্যুত করা হয়েছে। ৯ সেপ্টেম্বর ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের উপাচার্য অধ্যাপক ড. মো. আখতারুজ্জামানের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠিত সিন্ডিকেট সভায় এই সিদ্ধান্ত হয়। ২০১৮ সালের ২৬ মার্চ একটি জাতীয় দৈনিকে ‘জ্যোতির্ময় জিয়া’ শিরোনামে একটি কলাম লেখেন অধ্যাপক মোর্শেদ হাসান খান। তখন তার বিরুদ্ধে শাস্তিমূলক ব্যবস্থা নেওয়ার দাবিতে আন্দোলন করেছিল ছাত্রলীগ। আমি ‘জ্যোতির্ময় জিয়া’ লেখাটি পড়িনি। পড়ার ইচ্ছেও নেই। এর কারণ বিএনপিপন্থী অধিকাংশ বুদ্ধিজীবী ও শিক্ষকের লেখার মান এতো খারাপ এটা পড়ার মানে নেই। ‘জ্যোতির্ময় জিয়া’ না পড়েই বলা যায় এটি একটি ট্রাস লেখা। কিন্তু প্রশ্ন হলো যে বিশ্ববিদ্যালয় ১৯৭৩ সালের অধ্যাদেশ অনুযায়ী চলে সে বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষক বা কর্মকর্তা রাজনীতি করার অধিকার রাখেন, মতপ্রকাশ করার অধিকার রাখেন সে জন্য চাকরি যেতে পারে না। আরও মনে রাখা দরকার, যে দিনের পর দিন না পড়িয়ে বেসরকারি টিভিতে জব করেন, থিসিসে মিশেল ফুকোর লেখা চুরি করেন, অনেকে এনিজওবাজি-সহ বহু কিছু করেন, বছরের পর বছর বিদেশে শিক্ষা ছুটির নামে কাটান তাদের জব কখন যাবে মাননীয় ভিসি মহাদয়? পাকিস্তান আমলে আইয়ুব খানের ছিল ত্রাসের রাজত্ব। আইয়ুব খান আমলে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় ছিলো আন্দোলনের আঁতুড়ঘর। বাংলাদেশ নির্মাণে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের ভ‚মিকা অনন্য, অসাধারণ। ঠিক এ কারণে আইয়ুব খান কতোজন শিক্ষকের চাকরিচ্যুত করেছিলেন? প্রয়াত বিচারপতি হাবিবুর রহমান একবার অভিযোগ করেছিলেন ইতিহাস বিভাগে তিনি প্রথম শ্রেণিতে প্রথম হওয়ার পরও চাকরি না হওয়ায়। কারণ তিনি ভাষা আন্দোলনে যোগ দিয়েছিলেন। কিন্তু শেষ পর্যন্ত তার চাকরিটি হয়েছিল। তিয়াত্তরের অধ্যাদেশে চলা ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় ফিরে পাক তার গৌরব, শক্তি ও সাহস। ফেসবুক থেকে




সর্বশেষ সংবাদ

সম্পাদক ও প্রকাশক ঃ নাঈমুল ইসলাম খান

১৩২৭, তেজগাঁও শিল্প এলাকা (তৃতীয় তলা) ঢাকা ১২০৮, বাংলাদেশ। ( প্রগতির মোড় থেকে উত্তর দিকে)
ই- মেইল : info@amadernotunshomoy.com