• প্রচ্ছদ » » ভারত, চীন এবং জাপান যদি বাংলাদেশের যোগাযোগ সুবিধা ব্যবহার করে বিনিয়োগ ও রপ্তানি বাড়াতে পারে, তবেই বাংলাদেশ লাভবান হবে


ভারত, চীন এবং জাপান যদি বাংলাদেশের যোগাযোগ সুবিধা ব্যবহার করে বিনিয়োগ ও রপ্তানি বাড়াতে পারে, তবেই বাংলাদেশ লাভবান হবে

আমাদের নতুন সময় : 13/09/2020

রুহুল আমিন : ‘চীন বাংলাদেশকে সাহায্য করবে আর ভারতের ক্ষতি করবে’ মনে করে চিন্তিত ভারতীয় আর উল্লসিত বাংলাদেশি-পাকিস্তানি, সকলের চক্ষুই চরকগাছে উঠবে আগামী ছয় মাসের মধ্যে। চীন একটি আদর্শহীন দেশ। চীন ভারত সীমান্তে এখন যা হচ্ছে সেটা হলো মোদীর আগামী নির্বাচনের দেশের অর্থনৈতিক সঙ্কটের ইস্যুকে সীমান্তের দিকে ঠেলে দেয়া আর চীন ভারতকে খুঁচিয়ে বিশ্বের কাছে শক্তি প্রদর্শন । ইতোমধ্যেই ভারতের জাতীয়তাবাদী উৎপাদন ব্যবস্থা চীনের সাথে প্রতিযোগিতায় পিছিয়ে পড়েছে। তাই আমেরিকার পরে ভারত হলো চীনের সবচেয়ে বড় বাজার। এই বাজারকে চীন দিনে দিনে সমৃদ্ধ করবে এটা নিশ্চিত। আর বাংলাদেশ ও মিয়ানমারকে চীন খেলবে তিনটি পদ্ধতিতে। প্রথমটি হলো সামরিক-বেসামরিক বাজার, দ্বিতিয়ত হলো যোগাযোগ আর তৃতীয়টি হলো অস্ত্র। ভারত চীন থেকে অস্ত্র কিনবে না। চীন বার্মাকে দিয়ে বাংলাদেশকে খোঁচাবে, আর বার্মা ও বাংলাদেশ উভয়ের কাছেই অস্ত্র বেঁচবে। একসময় পুঁজিবাদ ও মানবিধাকারের আদর্শ অন্যদিকে সমাজতন্ত্র ও সাম্যবাদের আদর্শের অনুক‚লে আন্তর্জাতিক সাহায্য সহযোগিতা প্রবাহিত হতো। এখন তা অতীত। এজন্যই শেখ হাসিনা চীনের জন্য দরজা খুলেছে, আবার তুরস্ককেও ডেকে আনছে, মধ্যপ্রাচ্য ও মালোয়শিয়া আগেই আছে। বাংলাদেশ সম্ভবত তুরস্ক থেকে অস্ত্র আর মেশিনারিজ কিনতে চেষ্টা করছে দীর্ঘমেয়াদী ঋণে। বাংলাদেশের অর্থনৈতিক সক্ষমতা বার্মা বা শ্রীলঙ্কার চাইতে বড় কিন্তু শক্তিশালী নয়। এই দুর্বল স্ফিত অর্থনীতিকে বহুমাত্রিক করতে গেলে যোগাযোগ সেবার আন্তর্জাতিকীকরণ অপরিহার্য। এখন ভারত, চীন, জাপান সকলেই যদি বাংলাদেশের যোগাযোগ সুবিধা ব্যবহার করে বিনিয়োগ ও রপ্তানি বাড়াতে পারে তবেই বাংলাদেশ লাভবান হবে, নয়তো যেই লাউ সেই কদু। চীনকে চিনতে পাকিস্থান যে ভুল করেছে শেখ হাসিনা অন্তত সেই ভুল করবে না। এটা আমার বাংলাদেশি ও ভারতীয় বন্ধুরা যতো তাড়াতাড়ি বুঝবে ততোই তাদের উল্লাস ও আশঙ্কা প্রশমিত হবে। ফেসবুক থেকে




সর্বশেষ সংবাদ

সম্পাদক ও প্রকাশক ঃ নাঈমুল ইসলাম খান

১৩২৭, তেজগাঁও শিল্প এলাকা (তৃতীয় তলা) ঢাকা ১২০৮, বাংলাদেশ। ( প্রগতির মোড় থেকে উত্তর দিকে)
ই- মেইল : info@amadernotunshomoy.com