• প্রচ্ছদ » » রাজনীতি কি আমলাতন্ত্রের কাছে বন্দী হয়ে যাচ্ছে!


রাজনীতি কি আমলাতন্ত্রের কাছে বন্দী হয়ে যাচ্ছে!

আমাদের নতুন সময় : 13/09/2020

রবিউল আলম : শেখের বেটি মাননীয় প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার বক্তব্য স্পষ্ট, একজন মানুষও আইনের শাসন থেকে বঞ্চিত হবে না। একজন মানুষও আইনের ঊর্ধ্বে থাকতে পারবে না। বিচার সবার জন্য সমান। ইতোমধ্যে সংসদ সদস্যদের সতর্ক করে দিয়েছেন, অপরাধীদের জন্য কোনো তদবির নয়। পুলিশ হেফাজতে মৃত্যুর বিচার করে ইতিহাসে স্থান করে নিয়েছে শেখ হাসিনার সরকার। এমপি মন্ত্রী, কাউন্সিলর চেয়ারম্যন, মেম্বর, এমনকি নিজ দলের নেতাকর্মীও বিচারের আওতামুক্ত নয়। অপরাধ, অপরাধীদের অভয়ারণ্য এই সরকার হতে দেবে না, আমরা অঙ্গীকারবদ্ধ। এমতবস্থায় জনমনে একটি প্রশ্ন নতুন করে জাগ্রত, আমলাদের বিচারের জন্য সরকারের অনুমতি নিয়ে। তবে কী রাজনীতি আমলতন্ত্রের কাছে বন্দী হয়ে যাচ্ছে? প্রশ্ন হচ্ছে কেন সরকারকে সরকারি অপরাধীদের দায় নিতে হবে? অপরাধী যেই হোক, অপরাধীকে অপরাধীই মনে করতে হবে, বিচারের আওতায় আনতে হবে। অপরাধীদের বিচারের আওতায় আনতে অনুমতি প্রয়োজন হলে বিশেষ বাহিনীর প্রয়োজন কী ছিলো? সরকারি অপরাধীদের হাতেনাথে ধরার জন্য সরকারে কতো না কতোকিছু করতে হয়েছে। সরকারি কর্মকর্তা-কর্মচারীদের অপরাধ চিহ্নিত করতে অনুমতি প্রয়োজন, নাকি বিচারের আওতায় আনতে অনুমতির প্রয়োজন হবে, এই স্থানটা পরিষ্কার করতে হবে। অধিকাংশ আমলা এখন সাপ্লাইয়ার দ্বারা বন্দী, অবসর সময় তাদের ফাইলও দেখে দেন, কীভাবে সরকারি টাকা আত্মসাৎ করতে হয়, উপদেশ দাতার ভ‚মিকাও পালন করেন। আমলাতান্ত্রিক জটিলতা থেকে মুক্তির জন্য সাধারণ মানুষ রাজনীতির উপর নির্ভর। রাজনীতি যদি আমলাতান্ত্রিক জটিলতায় বন্দী হয়, তবে গণতন্ত্রের কী হবে? জাতির জনক রাজনীতি আর আমলানীতির মধ্যে পার্থক্য কী এ দেশের মানুষকে বুঝিয়েছিলেন। মানচিত্রে স্বাধীনতা আমরা পেয়েছি। আমলাতন্ত্র থেকে আমাদের মুক্ত একমাত্র শেখ হাসিনাই করতে পারেন, জাতিকে ঐকবদ্ধ হতে হবে এই সরকারের পাশে থাকতে হবে। কারা এই সরকারকে আমলাতন্ত্রে বন্দী করতে চায়, খুঁজে বের করতই হবে। লেখক : মহাসচিব, বাংলাদেশ মাংস ব্যবসায়ী সমিতি




সর্বশেষ সংবাদ

সম্পাদক ও প্রকাশক ঃ নাঈমুল ইসলাম খান

১৩২৭, তেজগাঁও শিল্প এলাকা (তৃতীয় তলা) ঢাকা ১২০৮, বাংলাদেশ। ( প্রগতির মোড় থেকে উত্তর দিকে)
ই- মেইল : info@amadernotunshomoy.com