• প্রচ্ছদ » প্রথম পাতা » [১]বাংলাদেশ সেনাবাহিনীতে যুক্ত হতে পারে ভারতের ক্ষেপণাস্ত্র ব্রক্ষস [২]রাশিয়া ও ভারতের তৈরি এই ক্ষেপণাস্ত্র জল, স্থল এমনকি সাবমেরিন থেকেও উৎক্ষেপণ করা যায়


[১]বাংলাদেশ সেনাবাহিনীতে যুক্ত হতে পারে ভারতের ক্ষেপণাস্ত্র ব্রক্ষস [২]রাশিয়া ও ভারতের তৈরি এই ক্ষেপণাস্ত্র জল, স্থল এমনকি সাবমেরিন থেকেও উৎক্ষেপণ করা যায়

আমাদের নতুন সময় : 13/09/2020

বিশ্বজিৎ দত্ত : [৩] ভারতকে সম্প্রতি ব্রক্ষস বিক্রির অণুমতি দিয়েছে রাশিয়া। এরপরেই ব্রক্ষস কেনার জন্য আগ্রহ দেখিয়েছে ভিয়েতনাম, আলজেরিয়া, ব্রাজিল, দক্ষিণ কোরিয়া, মিশর, চিলি, ফিলিপাইন্স ও দক্ষিণ আফ্রিকা। বাংলাদেশ এ বিষয়ে আগ্রহ না দেখালেও ভারত ব্রক্ষস দেবার জন্য আগ্রহ প্রকাশ করেছে বলে ভারতের কিছু সামরিক বিশেষজ্ঞের টুইটারে ঈঙ্গিত পাওয়া গেছে। এই ক্ষেপনাস্ত্র ক্রয়ে যুক্তরাষ্ট্রেরও কোন বাঁধা থাকবে না।
[৪] সামরিক সরঞ্জাম ক্রয়ের জন্য ২০১৭ সালে বাংলাদেশকে ৫০ কোটি ডলার ঋণ দেয় ভারত। যার সুদ বছরে ১ শতাংশ। আগামী ২০ বছরে বাংলাদেশ এই ঋণ পরিশোধ করবে। এই ঋণের পরেও বাংলাদেশ কোন সামরিক সরঞ্জাম ক্রয় করেনি ভারত থেকে। এবারে ভারতের তরফে ব্রক্ষস ক্রয়ের জন্য বাংলাদেশকে অনুরোধ করা হবে। [৫] ইতিমধ্যে বাংলাদেশ তুরস্ক থেকে স্বল্প পাল্লার হাইসার জিরো নামের ভ’মি থেকে উৎক্ষেপণ যোগ্য ক্ষেপনাস্ত্র কেনার টেন্ডার করেছে।
[৬] পররাষ্ট্র মন্ত্রী এমএ মোমেন গত বছরের ২১ আগস্ট ডয়েচে ভেলেকে বলেছেন, বাংলাদেশ, চীন, আমেরিকা, তুরস্ক থেকে সামরিক সরঞ্জাম ক্রয় করে। সেখানে ভারত থেকে ক্রয় করতে আমাদের কোন সমস্যা নেই। ভারত থেকে সাবমেরিন ক্রয়ের জন্য বলা হয়েছিল। ভারত তখন তা দেয়নি।
[৭] বাংলাদেশের প্রধানমন্ত্রীর সঙ্গে যুক্তরাষ্ট্রের প্রতিরক্ষা মন্ত্রী টেলিফোনে কথা বলেছেন। কি বিষয়ে কথা হয়েছে তা জানা যায়নি। আফগানিস্তানে শান্তি মিশনেও বাংলাদেশ সেনাবাহিনী অংশ নিতে পারে বলে জানা যায়। সম্পাদনা : খালিদ আহমেদ




সর্বশেষ সংবাদ

সম্পাদক ও প্রকাশক ঃ নাঈমুল ইসলাম খান

১৩২৭, তেজগাঁও শিল্প এলাকা (তৃতীয় তলা) ঢাকা ১২০৮, বাংলাদেশ। ( প্রগতির মোড় থেকে উত্তর দিকে)
ই- মেইল : info@amadernotunshomoy.com