• প্রচ্ছদ » শেষ পাতা » [১]নতুন গবেষণা বলছে, টাইটাইনিক বরফ পাহাড়ে ধাক্কা খেয়ে ডুবেছিলো


[১]নতুন গবেষণা বলছে, টাইটাইনিক বরফ পাহাড়ে ধাক্কা খেয়ে ডুবেছিলো

আমাদের নতুন সময় : 30/09/2020

দেবদুলাল মুন্না: [২] এ তথ্য গতকাল জানায় বিজনেস ইনসাইডার। ব্রিটিশ রয়্যাল মিটিওরোলজিকাল সোসাইটি এ গবেষণা করে। এ সংস্থার নিজস্ব জার্নাল ওয়েদারেগত রোববার প্রথম প্রকাশিত হয় গবেষণাপত্র।
[৩] ইংল্যান্ড থেকে নিউইয়র্ক যাওয়ার পথে ১৯১২ সালের ১৪ এপ্রিল রাতে ডুবে গিয়েছিল টাইটানিক। মৃত্যু হয়েছিল ৭০০ যাত্রীর। এতোদিন এ নিয়ে কাজ করে আসছিলেন স্বাধীন গবেষক মিলা জিনকোভা।[৪] নতুন গবেষণা বলছে, ১৪ এপ্রিল রাতে আকাশে চাঁদ ছিল না। সুমেরু প্রভার ছটায় সেদিন আলোকিত হয়েছিল সমুদ্রের আকাশ। সৌর ঝড়ের কারণে তৈরি হয়েছিল এই প্রভা। কখনো কখনো সৌরঝড়ে তীব্রতা এতটাই বেশি হয় যে সুমেরু বা কুমেরু প্রভা তৈরি করতে পারে। এই ঝড় স্যাটেলাইট যোগাযোগ ব্যবস্থাকে বিপর্যস্ত করতে সক্ষম। পৃথিবীর চৌম্বকক্ষেত্রের উপরও এই সৌর ঝড়ের ব্যাপক প্রভাব পড়ে।[৫] ফলে ওই দিন রাতে উত্তর আটলান্টিক সাগরে ভূ-চুম্বকীয় ঝড়ের সুনির্দিষ্ট প্রমাণ রয়েছে। যার কারণে জাহাজের দিক নির্ণয় ও যোগাযোগ ব্যবস্থা প্রভাবিত হয়েছিল। এতে ভুল দিকে চালিত হয়েছিল জাহাজটি। ফলে বরফের ডুবো পাহাড়ে ধাক্কা খায়। ডুবে যাওয়ার দুই ঘণ্টা পর টাইটানিকের কাছে পৌঁছে অনুসন্ধানী জাহাজ কার্পাথিয়া। জাহাজটির সেকেন্ড অফিসার জেমস বিসেটের বক্তব্যেও পরবর্তীতে সুমেরু প্রভার বিষয়টা উঠে আসে। সম্পাদনা: ইকবাল খান




সর্বশেষ সংবাদ

সম্পাদক ও প্রকাশক ঃ নাঈমুল ইসলাম খান

১৩২৭, তেজগাঁও শিল্প এলাকা (তৃতীয় তলা) ঢাকা ১২০৮, বাংলাদেশ। ( প্রগতির মোড় থেকে উত্তর দিকে)
ই- মেইল : [email protected]