• প্রচ্ছদ » শেষ পাতা » [১]ভারতে ধর্ষণে মৃত তরুণীর মরদেহ পরিবারের সম্মতি ছাড়াই গভীররাতে দাহ করলো পুলিশ


[১]ভারতে ধর্ষণে মৃত তরুণীর মরদেহ পরিবারের সম্মতি ছাড়াই গভীররাতে দাহ করলো পুলিশ

আমাদের নতুন সময় : 01/10/2020


আসিফুজ্জামান পৃথিল: [২] উত্তর প্রদেশের হাটরসে দলবদ্ধ ধর্ষণের শিকার মেয়েটি টানা ১৫ দিন মৃত্যুর সঙ্গে লড়ে মঙ্গলবার দিল্লির সফদরজং হাসপাতালে মৃত্যু হয় দলিত পরিবারের ওই ১৯ বছরের তরুণীর। তার পর হাসপাতাল থেকে দেহ হাতে পাওয়া নিয়েও পুলিশের সঙ্গে ঝামেলা বাঁধে মেয়েটির পরিবারের। রাত ১০টা বেজে ১০ মিনিটে হাসপাতাল থেকে মরদেহটি ছেড়ে দেওয়া হলে, তাঁদের কিছু না জানিয়েই পুলিশ দেহটি নিয়ে চলে যায় বলে অভিযোগ করেন মেয়েটির বাবা ও দাদা। আনন্দবাজার, দ্য হিন্দু।[৩] রাত আড়াইটায় লাশটি দাহ করতে গেলে পুলিশের সঙ্গে বিরোধ সৃষ্টি হয় স্বজনদের। এসময় নারী আত্মীয়দের হেনস্থা করেছে পুলিশ। লাশটি হাসপাতাল থেকে বাড়িতেও নেয়া হয়নি। এমনকি মেয়েটির মা তার শেষ দেখাও পাননি।[৪] এটিকে ২০১২ সালের দিল্লিতে চলন্ত বাসে নির্ভয়াকে দলবদ্ধ ধর্ষণের সঙ্গে তুলনা করে বিক্ষোভ শুরু হয়েছে ভারতের রাজধানীতে। পুলিশের বিরুদ্ধে অসহযোগিতার অভিযোগ তুলেছেন নির্যাতিতার পরিবারের লোকজনও। তাঁদের অভিযোগ, অভিযোগ জানাতে গেলে পুলিশ প্রথমে কোনও কথাই শুনতে চায়নি। ধর্ষকেরা ক্ষমতাসীন দলের রাজনীতির সঙ্গে যুক্ত থাকায় তাদের এক প্রকার ইমিউনিটি দিচ্ছে পুলিশ। সম্পাদনা: ইকবাল খান




সর্বশেষ সংবাদ

সম্পাদক ও প্রকাশক ঃ নাঈমুল ইসলাম খান

১৩২৭, তেজগাঁও শিল্প এলাকা (তৃতীয় তলা) ঢাকা ১২০৮, বাংলাদেশ। ( প্রগতির মোড় থেকে উত্তর দিকে)
ই- মেইল : [email protected]