• প্রচ্ছদ » শেষ পাতা » [১]দক্ষিণ এশিয়ার ৩০ শতাংশ মানুষের শরীরে আছে করোনার জন্য ঝুঁকিপূর্ণ নিয়ানডার্থাল মানুষের জিন


[১]দক্ষিণ এশিয়ার ৩০ শতাংশ মানুষের শরীরে আছে করোনার জন্য ঝুঁকিপূর্ণ নিয়ানডার্থাল মানুষের জিন

আমাদের নতুন সময় : 02/10/2020

লিহান লিমা: [২] জার্মানির এক গবেষণায় দেখা গিয়েছে, নিয়ানডার্থাল যুগের মানুষের শরীরে থাকা জিন করোনা আক্রান্ত হওয়ার ঝুঁকি বাড়িয়ে দেয় । নৃবিজ্ঞানী হুগো জিবার্গ বলেন, যারা নিয়ানডার্থাল মানুষের জিন বহন করছেন তাদের করোনা সংক্রমিত হওয়ার পর ভেন্টিলেটর পর্যন্ত যাওয়ার সম্ভাবনা তিনগুণ বেশি। রয়টার্স। [৩] ন্যাচার জার্নালে প্রকাশিত এই গবেষণাপত্রে বলা হয়েছে, গবেষকরা হাসপাতালে থাকা ৩ হাজার ২০০ মানুষের ও ৯ লাখ সাধারণ মানুষের জিন বিশ্লেষণ করেছেন। তারা দেখেছেন, আজ থেকে ৫০ হাজার বছর পূর্বে পৃথিবীতে বাস করা নিয়ানডার্থাল যুগের মানুষের শরীরে ক্রোমোসম ৩ জিন রয়েছে, যা কিনা হাসপাতালে ভর্তির সম্ভাবনা ৬০ শতাংশ বাড়িয়ে দেয়। ক্রোমোসম ৩ জিনোমসম্পন্ন ব্যক্তিদের করোনায় কৃত্রিম শ্বাস প্রশ্বাসের প্রয়োজন অন্যদের থেকে বেশি হয়।[৪] এতে দেখা গিয়েছে ৬০ হাজার বছর আগে আধুনিক যুগের মানুষের শরীরে নিয়ানডার্থাল যুগের মানুষদের জীন প্রবাহিত হয়েছে। বাংলাদেশসহ দক্ষিণ এশিয়ার প্রায় অর্ধেকের কাছাকাছি মানুষের ডিএনএ’তে এই জীন রয়েছে। ইউরোপের ১৬ শতাংশ মানুষের অর্থাৎ ৬ জনের মধ্যে একজনের ডিএনএ’তে এই জিন রয়েছে এবং আফ্রিকা ও পূর্ব এশিয়ায় মানুষের ডিএনএ’তে এই জিনের উপস্থিতি নেই বললেই চলে। সম্পাদনা: ইকবাল খান




সর্বশেষ সংবাদ

সম্পাদক ও প্রকাশক ঃ নাঈমুল ইসলাম খান

১৩২৭, তেজগাঁও শিল্প এলাকা (তৃতীয় তলা) ঢাকা ১২০৮, বাংলাদেশ। ( প্রগতির মোড় থেকে উত্তর দিকে)
ই- মেইল : [email protected]