• প্রচ্ছদ » প্রথম পাতা » [১]দেশের জিডিপি নিয়ে বিশ্বব্যাংকের চেয়ে কিছুটা আশার বাণী দিয়েছে আইএমএফ [২]বলেছে, মাথাপিছু জিডিপিতে ২০২০ সালে ভারতের চেয়ে এগিয়ে বাংলাদেশ


[১]দেশের জিডিপি নিয়ে বিশ্বব্যাংকের চেয়ে কিছুটা আশার বাণী দিয়েছে আইএমএফ [২]বলেছে, মাথাপিছু জিডিপিতে ২০২০ সালে ভারতের চেয়ে এগিয়ে বাংলাদেশ

আমাদের নতুন সময় : 15/10/2020

বিশ্বজিৎ দত্ত: [৩] বিশ^ব্যাংক প্রবৃদ্ধি হার ধারণা করছে ১.৬ শতাংশ। সেখানে আইএমএফ বলছে, বাংলাদেশের বর্তমান প্রবৃদ্ধি ৩ .৮ আর আগামী ২০২১ সালে হবে ৪.৪ হারে।
[৪] তবে মাথাপিছু প্রবৃদ্ধিতে এ বছর (২০২০)ভারতের চেয়ে এগিয়ে থাকবে বাংলাদেশ। আইএমএফের হিসাবে বাংলাদেশের মাথাপিছু প্রবৃদ্ধি হবে ১৮৮৮ ডলার। সেখানে ভারতের হবে ১৮৭৭ ডলার। আর প্রবৃদ্ধিতে পাকিস্তান এমন অবস্থায় থাকবে যার কোন ডাটাই উল্লেখ করেনি আইএমএফ।
[৫] ভারতের প্রবৃদ্ধি অবশ্য আগামী বছর হবে ৮.৮ শতাংশ হরে। সেখানে বাংলাদেশের হবে ৪.৪ শতাংশ। চীনের হবে ৮.২ শতাংশ হারে।
[৬] এই বছরে বাংলাদেশের মাথাপিছু প্রবৃদ্ধি ভারতের চেয়ে বেশি হওয়ার কারণ বাংলাদেশের রপ্তানি চালু হয়ে যাওয়া ও অভ্যন্তরীণ বাজারে মূদ্রার সরবরাহ বৃদ্ধি পাওয়ায়। অন্যদিকে ভারতের প্রবৃদ্ধি ১০.৩ শতাংশ কমে যাওয়ার কারণ হিসাবে বলা হয়েছে সঠিক সময়ে রপ্তানি চালু না হওয়া ও লকডাউনে অভ্যন্তরীণ বাজারের চাহিদা কমে যাওয়া।
[৭] আইএমএফের প্রধান অর্থনীতিবিদ গীতা গোপীনাথ বলেন, অতিমারির কারণে দু:খের দিন দীর্ঘ হবে। বিপদ কমতে পারে আর্থিক ও ঋণ নীতির মাধ্যমে।
[৮] আইএমএফের তথ্য অনুযায়ি ২০২৫ সালে বাংলাদেশের প্রবৃদ্ধি হতে পারে ৭.৫ শতাংশ। যা বাংলাদেশ ২০১৭ সালে অর্জন করেছিল। দেশের অর্থমন্ত্রী আহম মুস্তফা কামাল বিশ^ব্যাংকের প্রবৃদ্ধির ফোরকাস্ট নিয়ে সংসয় প্রকাশ করেছেন। তবে আইএমএফের বিষয়ে তিনি কোন মন্তব্য দেননি। ২০২০ -২১ সালের বাজেটে দেশের প্রবৃদ্ধি নির্ধারণ করা হয়েছে ৮.২ শতাংশ। সম্পাদনা: ইকবাল খান




সর্বশেষ সংবাদ

সম্পাদক ও প্রকাশক ঃ নাঈমুল ইসলাম খান

১৩২৭, তেজগাঁও শিল্প এলাকা (তৃতীয় তলা) ঢাকা ১২০৮, বাংলাদেশ। ( প্রগতির মোড় থেকে উত্তর দিকে)
ই- মেইল : [email protected]