• প্রচ্ছদ » » বেখবর প্রসঙ্গ : ইউটিউবের দাপট!


বেখবর প্রসঙ্গ : ইউটিউবের দাপট!

আমাদের নতুন সময় : 21/10/2020

মোস্তফা ফিরোজ : মোবাইলে ইউটিউব ওপেন করলে মাঝে মধ্যেই আঁতকে উঠতে হয়। দেশে কি এমন হলো যেসব উল্টে-পাল্টে গেলো? তাড়াতাড়ি তখন যাচাই করতে মোবাইলে সেভ করা দেশের প্রতিষ্ঠিত অনলাইন পত্রিকাগুলো খুলে বিষয়টা বুঝতে হয়। বাস্তবতার সঙ্গে আর মেলাতে পারি না। এটাই গণমাধ্যমের স্বাধীনতা। ধর্ষণের বিরুদ্ধে যখন সবাই সোচ্চার তখন ধর্ষণ সমার্থক অশালীন ও অশ্রাব্য ভাষা প্রয়োগ ও শারীরিক অঙ্গভঙ্গি করে বিরুদ্ধ মতের নারীদের নামে ইচ্ছেমতো অবাধে রুচিহীন বক্তব্য চলছে। এটাই গণমাধ্যমের স্বাধীনতা। ইউটিউবে কোনো কোনো চ্যানেলের দাপটে টিভি চ্যানেলগুলো কোণঠাসা ও চুপচাপ। কখন কার ওপর আক্রমণ শুরু হয় এই বড় বড় সাংবাদিকরা ভয়ে জড়োসড়ো। যখন যিনি আক্রান্ত হচ্ছেন তিনিই তখন নীরবে মার হজম করে চলেছেন। সমাজিক, পারিবারিক ও পেশাগতভাবে তিনি অপদস্ত হচ্ছেন। মানসিকভাবে বিপর্যস্ত হচ্ছেন। কিন্তু তার তো কিছুই করার নেই। তার পাশেও কেউ নেই। বাকিরা নিরাপদ দূরত্বে থেকে ভাবছেন, যাক আমিতো বেঁচে গেলাম। চুপ থাকাই ভালো। এটাই গণমাধ্যমের স্বাধীনতা। ফেসবুক থেকে




সর্বশেষ সংবাদ

সম্পাদক ও প্রকাশক ঃ নাঈমুল ইসলাম খান

১৩২৭, তেজগাঁও শিল্প এলাকা (তৃতীয় তলা) ঢাকা ১২০৮, বাংলাদেশ। ( প্রগতির মোড় থেকে উত্তর দিকে)
ই- মেইল : [email protected]