• প্রচ্ছদ » প্রথম পাতা » [১]রোহিঙ্গাদের জন্য ১০০ কোটি ডলারের সহায়তা জোগাড়ের চেষ্টা করছে বিভিন্ন দাতা দেশ [২]বাংলাদেশ গুরুত্ব দিচ্ছে মিয়ানমারে দ্রুত প্রত্যাবাসন


[১]রোহিঙ্গাদের জন্য ১০০ কোটি ডলারের সহায়তা জোগাড়ের চেষ্টা করছে বিভিন্ন দাতা দেশ [২]বাংলাদেশ গুরুত্ব দিচ্ছে মিয়ানমারে দ্রুত প্রত্যাবাসন

আমাদের নতুন সময় : 23/10/2020

ম ভূঁইয়া আশিক : [৩] যুক্তরাষ্ট্র, যুক্তরাজ্য, ইউরোপীয় ইউনিয়ন (ইইউ) ও জাতিসংঘ শরণার্থী সংস্থা বৃহস্পতিবার সন্ধ্যায় এ নিয়ে ভার্চুয়াল সম্মেলনও করেছে। তবে বাংলাদেশ গুরুত্ব দিচ্ছে আর্থিক সহযোগিতার পাশাপাশি দাতা দেশগুলো মিয়ানমারে উপর চাপ সৃষ্টি করুক, যাতে মিয়ানমার নিজেদের নাগরিকদের ফিরিয়ে নিতে বাধ্য হয়। [৪] সাবেক রাষ্ট্রদূত এম হুমায়ূন কবিরের মতে, রোহিঙ্গা সংকট সুরাহায় যারা সহযোগিতা করতে চান, প্রেক্ষাপট মনে রেখে কী উদ্যোগ নিচ্ছেন তার উপর মূল্যায়ন হবে রোহিঙ্গা প্রত্যাবাসন প্রক্রিয়ার অগ্রগতি। তবে রোহিঙ্গা প্রত্যাবাসনে অং সান সু চির ইতিবাচক মনোভাব প্রয়োজন। [৫] সাবেক রাষ্ট্রদূত ওয়ালিউর রহমান বলেন, রোহিঙ্গা প্রত্যাবাসনে আন্তর্জাতিকভাবে যারা আমাদের সাহায্য করতে পারে তারা হলো, চীন, রাশিয়া ও ভারত। দেশ তিনটি একত্রিত হলে আমরা সমাধানের পথে এগিয়ে যাবো। আশা করছি, তারা খুব দ্রুতই রোহিঙ্গা প্রত্যাবাসনে গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা নিয়ে হাজির হবে। [৬] আন্তর্জাতিক সম্পর্ক বিশ্লেষক ড. ইমতিয়াজ আহমেদের মতে, রোহিঙ্গা প্রত্যাবাসন তরান্বিত করতে যুক্তরাষ্ট্রকে শক্তিশালী ভূমিকা পালন করতে হবে। কথা নয়, বাস্তবে মিয়ানমারের বিরুদ্ধে কঠোর পদক্ষেপ নেওয়া প্রয়োজন। [৭] ঢাবির আন্তর্জাতিক সম্পর্ক বিভাগের শিক্ষক, ড. দেলোয়ার হোসেন মনে করেন, বাংলাদেশের অনুরোধে রোহিঙ্গা ইস্যুতে চীন ও ভারত তার অবস্থান পরিবর্তন করবে না। যে স্পিরিট থেকে রোহিঙ্গাদের আশ্রয় দিয়েছে বাংলাদেশ, মিয়ানমার ইস্যুতে চীন ও ভারতকে একই স্পিরিটে ভাবতে হবে। তা না করলে সেটা হবে কূটনৈতিক আইওয়াশ। সম্পাদনা: ইকবাল খান




সর্বশেষ সংবাদ

সম্পাদক ও প্রকাশক ঃ নাঈমুল ইসলাম খান

১৩২৭, তেজগাঁও শিল্প এলাকা (তৃতীয় তলা) ঢাকা ১২০৮, বাংলাদেশ। ( প্রগতির মোড় থেকে উত্তর দিকে)
ই- মেইল : [email protected]