• প্রচ্ছদ » » ‘পদোন্নতির জন্য শিক্ষকেরা গবেষণার চেয়ে রাজনীতির প্রতি বেশি মনোযোগী’


‘পদোন্নতির জন্য শিক্ষকেরা গবেষণার চেয়ে রাজনীতির প্রতি বেশি মনোযোগী’

আমাদের নতুন সময় : 26/10/2020

কামরুল হাসান মামুন : ‘পদোন্নতির জন্য শিক্ষকরা গবেষণার চেয়ে রাজনীতির প্রতি বেশি মনোযোগী’ ডেইলি স্টারে প্রকাশিত একটি আর্টিকেলের শিরোনাম এটি, কোড নট এগ্রি মোর। বাংলাদেশের পাবলিক বিশ^বিদ্যালয়ের এটিই সবচেয়ে বড় সমস্যা। জাস্ট বিকজ পাবলিকের ট্যাক্সের টাকায় চলে তাই এটি অন্যান্য সরকারি প্রতিষ্ঠানের মতো যেমন, রেল, বিমান, টেলিটক ইত্যাদির মতোই দিন দিন মান কেবল নি¤œগামীই হচ্ছে। গত ৩০ বছর ধরে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের নেতৃত্ব কারা দিয়েছে এবং কী তাদের একাডেমিক ব্যাকগ্রাউন্ড একটু খোঁজ নিলেই সব বেড়িয়ে আসবে। কিন্তু এই সার্জারিটা কেউ করবে না। অথচ দেশের ভবিষ্যত নির্ভর করে বিশ^বিদ্যালয়ের লেখাপড়া ও গবেষণার মানের ওপর। সেই ১৯২১ সাল থেকে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের মান দিনদিন কন্সিস্টেন্টলি নি¤œগামী হয়েছে।
কখনো এমন হয়নি যে আগের ৫ বছর খারাপ ছিলো আর পরের ৫ বছর বেটার হয়েছে। এই নি¤œগামিতার সাথে বিশ্ববিদ্যালয়ের নেতৃত্বদানকারীদের নি¤œগামিতাও ওতপ্রোতভাবে জড়িত। ছাত্র শিক্ষক রাজনীতি আছে। তারা কী রাজনীতিটা করছে? ছাত্ররা কী ছাত্রদের জন্য রাজনীতি করছে। শিক্ষকরা কী শিক্ষক ও শিক্ষার উন্নতির জন্য রাজনীতি করছে। ছাত্র ও শিক্ষকরা কী কোনো আদর্শের জন্য রাজনীতি করছে। বরং ছাত্র রাজনীতি ছাত্রদের ধ্বংসের জন্য চলছে। একই কথা খাটে শিক্ষকদের ক্ষেত্রেও। শিক্ষক নিয়োগ ও প্রমোশননীতিমালা দিন যতো গিয়েছে, ততোই সহজতর করা হয়েছে। অথচ উন্নতির দিকে যাত্রার জন্য প্রয়োজন ছিলো নীতিমালা আরও কঠিন করা। আমরা কী করেছি প্রত্যেকটা বিশ্ববিদ্যালয় তাদের নিজস্ব জার্নাল খুলেছে। নিজেরাই এইগুলোর এডিটোরিয়াল বোর্ড মেম্বার হয়েছে। নিজেদের শিক্ষকদের আর্টিকেল ছাপিয়ে জার্নালগুলোকে প্রমোশন লাভের জন্য প্রয়োজনীয় আর্টিকেল প্রোডাকশন কেন্দ্রে রূপান্তরিত হয়েছে।
এইসব জার্নাল পৃথিবীর এমনকি বাংলাদেশেরও কোনো কাজে লাগে না। কেউ এইসব গার্বেজ পড়ে না। শুধু শুধু টাকা খরচ করে ছাপিয়ে অর্থের অপচয় ঘটাচ্ছি। এইসব জার্নাল বন্ধ করে যেই টাকা সাশ্রয় হয়, সেটা গবেষণায় বরাদ্দ দিয়ে উন্নত জার্নালে প্রকাশের ব্যবস্থা করলে বরং দেশ ও বিশ্বের লাভ হবে। আমাদের পাবলিক বিশ্ববিদ্যালয়গুলো কিছু অতিস্বার্থপর শিক্ষকের কাছে জিম্মি হয়ে পড়েছে। আর আমাদের সরকার কী চায়। তারা কেমন শিক্ষকদের খুঁজে বের করে ভিসি বানায়, সেইটা দেখলেই দেশের মানুষদের এরা কতো ভালোবাসে বোঝা যায়। ফেসবুক থেকে




সর্বশেষ সংবাদ

সম্পাদক ও প্রকাশক ঃ নাঈমুল ইসলাম খান

১৩২৭, তেজগাঁও শিল্প এলাকা (তৃতীয় তলা) ঢাকা ১২০৮, বাংলাদেশ। ( প্রগতির মোড় থেকে উত্তর দিকে)
ই- মেইল : [email protected]