• প্রচ্ছদ » » ট্রাম্প সিন্ড্রোম : ম্যাখোঁ-এরদোয়ান দ্ব›দ্ব


ট্রাম্প সিন্ড্রোম : ম্যাখোঁ-এরদোয়ান দ্ব›দ্ব

আমাদের নতুন সময় : 30/10/2020

মাসুদ রানা : ফ্রান্স সরকারিভাবে বিভিন্ন ভবনে ইসলামের নবী মুহাম্মদ (সা.) অপমানজক ক্যারিকেচার বা কার্টুন প্রক্ষেপণ করে বলেছে যে, তারা ‘ফ্রিডম অব এক্সপ্রেশন’-এর স্বার্থে এই কার্টুন পরিত্যাগ করবে না। আর এতে বিশে^র বিভিন্ন মুসলিম সংখ্যাগরিষ্ঠ দেশ ক্ষুব্ধ হয়েছে। ফ্রান্সের প্রতি ক্ষুব্ধতা প্রকাশে অগ্রণী হচ্ছে তুরস্ক। তুরস্কের প্রেসিডেন্ট রেজেপ এরদোয়ান বলেছেন, ফ্রেঞ্চ প্রেসডিন্ট নিকোলাস ম্যাখোঁ মানসিক স্বাস্থ্যের পরীক্ষা প্রয়োজন। সন্দেহ নেই, এমন মন্তব্য প্রতিক্রিয়ামূলক ও অপমানজনক। স্বভাবত তুরস্কের প্রেসিডেন্টের মন্তব্যে ফ্রান্স অপমানিত বোধ করেছে। ফলে তারা তুরস্কের রাষ্ট্রদূতকে ডেকে এনে প্রতিবাদ জানিয়েছে এবং ইউরোপীয়ান ইউনিয়নের কাছে অনুরোধ করেছে, তুরস্কের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নেওয়া জন্য। ফ্রান্সের জন্য বিষয়টি কি স্ববিরোধী হয়ে গেলো না? অর্থাৎ, ফ্রান্স ইসলামের নবীকে অপমান করে কার্টুন প্রকাশ করাকে ‘ফ্রিডম অব এক্সপ্রেশন’ মনে করে, কিন্তু তার প্রতিক্রিয়া ফ্রান্সের প্রেসিডেন্টকে ব্যঙ্গ করে মানসিক স্বাস্থ্যের পরীক্ষার কথা বলাকে তারা সাংঘাতিক আপত্তিকর মনে করে। কেউ কেউও হয়তো ফ্রান্সের এ-অস্থানকে দেশটির নেতৃত্বের ডবল স্ট্যান্ডার্ড বা দ্বিচারিতা বলে নির্দেশ করতে পারেন। আমি মনে করি, এমনটি বলা হলে তা খুব ভুল বলা হবে না। ইতিহাসের লেসনে ‘ফ্রিডম এক্সপ্রেশন’ বুঝাতে নবী মুহাম্মদের ক্যারিকেচার দেখানোয় শিক্ষকের শিরোচ্ছেদ একটি ভয়ঙ্কর ও নৃশংস অপরাধ, যা একটি আঠারো বছর বয়সী উগ্রবাদীর কাজ। কিন্তু তার এ-অপরধের জন্য একটি স¤প্রদায় দায়ী হতে পারে না। এক খুনির অপরাধে ফ্রান্সের মতো একটি গণতান্ত্রিক রাষ্ট্র সারা বিশ্বের ইসলাম অনুসারীদের অনুভ‚তিকে আঘাত করে তাদের নবীর অপমানমূলক ক্যারিকেচারকে রাষ্ট্রীয় উদ্যোগে এমনভাবে প্রকাশ করতে পারে না। এটি ফ্রান্সের সাংঘাতিক ও সুদূর প্রসারী ভুল। অন্যদিকে তুরস্কের প্রেসিডেন্ট এরদোয়ান যেভাবে ফরাসি প্রেসিডেন্টকে অপমান করে মানসিক স্বাস্থ্য পরীক্ষার পরামর্শ এবং ফ্রান্সের পণ্য বর্জনের জন্যে তুর্কি জনগসমগ্রকে আহবান করেছেন, তাও কিন্তু মোটেও স্টেইটসম্যান-সুলভ হয়নি। রাষ্ট্রের শীর্ষ পদে অবস্থান করে দায়িত্বহীন মন্তব্য করা এখন যেন বিশ্বের রাজনৈতিক সংস্কৃতি হিসেবে দাঁড়িয়েছে। আগে বিষয়টি শুধু মার্কিন প্রেসিডেন্ট ট্রাম্পের বৈশিষ্ট্য হিসেবে সারাবিশ্বে সমালোচিত হতো। এখন মনে হচ্ছে, ট্রাম্পের এই বদগুণটি অনেকের মধ্যেই সংক্রমিত হয়েছে। অর্থাৎ, ট্রাম্প সিন্ড্রোম একটি প্যান্ডেমিক রূপে বিশ্ব-রাজনীতে একটি উটকো সমস্যার সৃষ্টি করেছে। বিশ্ব ট্রাম্প সিন্ড্রোম থেকে মুক্ত হোক! ২৯/১০/২০২০। লÐন, ইংল্যাÐ




সর্বশেষ সংবাদ

সম্পাদক ও প্রকাশক ঃ নাঈমুল ইসলাম খান

১৩২৭, তেজগাঁও শিল্প এলাকা (তৃতীয় তলা) ঢাকা ১২০৮, বাংলাদেশ। ( প্রগতির মোড় থেকে উত্তর দিকে)
ই- মেইল : [email protected]