• প্রচ্ছদ » » মতামত প্রকাশ করার ভাষা আগ্রাসী এবং অশ্লীল কেন?


মতামত প্রকাশ করার ভাষা আগ্রাসী এবং অশ্লীল কেন?

আমাদের নতুন সময় : 30/10/2020

সোলায়মান সুখন : বাংলাদেশে অন্যের মতের প্রতি ন্যূনতম শ্রদ্ধাবোধ দেখানোটাকে দুর্বলতা হিসেবে ধরে নেয়া হয়। মতামতের বিরোধিতাকারীকে বাই ডিফল্ট শত্রæ হিসেবে ধরে নেয়ার এই ভয়াবহ কালচার আমাদের একটা অরাজক সমাজে পরিণত করছে ধীরে ধীরে। মতামতের বিরোধিতাকারী যে একজন প্রকৃত শুভাকাক্সক্ষীও হতে পারে, এই ব্যাপারটা বোঝার ক্ষমতা এবং ইচ্ছা দুটোই অনুপস্থিত আমাদের ব্যক্তিগত এবং জাতীয় পর্যায়ে। ক্লাসিক ‘তালগাছ আমার’ সিনড্রোম। আমাদের দেশে একই বিষয়ে এতো মত কেন? মতামত প্রকাশ করার ভাষা আগ্রাসী এবং অশ্লীল কেন? আমাদের দেশের শিক্ষা ব্যবস্থা অনেক বেশি বিভক্ত। গ্রামে প্রধানত দুই ধরনের শিক্ষা ,ধর্মীয় এবং বাংলা মিডিয়াম। শহরে বাংলা মিডিয়াম, ইংলিশ ভার্সন, ইংলিশ মিডিয়াম। এই সবগুলো মিডিয়াম থেকে দশ বছর বয়সী কিছু বাংলাদেশি বাচ্চা ছেলে মেয়েকে একসাথে এনে একটা বিষয়ে মতামত চাইলেই দেখবেন তারা কতোটা ডিফ্রেন্ট উত্তর দিচ্ছে। বিভক্তির শুরুটা সেখান থেকেই, কিছু বুঝে উঠার আগেই। এবার আসি মতামত প্রকাশ বা বিরোধিতা করার ভাষা কেন এতো আগ্রাসী এবং অশ্লীল? আমাদের সাহিত্যের ভাষা কবিগুরু বা বিদ্রোহী কবি অনেক যতেœ একটা আন্তর্জাতিক মর্যাদায় নিয়ে গিয়েছিলেন। ভাষার জন্যে আমরা জীবনও দিয়েছি। কিন্তু রাস্তা ঘাটে সাধারণ মানুষের মুখের ভাষায় অশ্লীল আর আগ্রাসী শব্দের ব্যবহার অনেক পুরনো একটা বিষয়। তার উপর এখনকার নাটক, সিনেমা নির্মাতাগণ বাংলা ভাষার মডিফিকেশন করেছেন এমনভাবে, যার মুখ্য উদ্দেশ্য হলো সস্তা জনপ্রিয়তা অর্জন। অশ্লীল শব্দ ব্যবহার আমাদের এখানে সিম্বল অফ পাওয়ার। ‘তুই আমাকে চিনিস’ সিন্ড্রম এটা। আর টিভির টকশোতে নেতা-নেত্রীগণ তো একেবারে জাতীয় পর্যায়ে এন্ডোর্স করে দিচ্ছেন আগ্রাসী আর অশালীন ভাষার ব্যবহারকে। মতপ্রকাশ আর তার বিরোধিতা করার পুরো প্রক্রিয়া যতোদিন না শালীন হবে ততোদিন তালগাছের চারপাশে মারামারি চলবে। সমালোচনা করা মানেই বিরোধিতা করা নয়, প্রিয় বাংলাদেশ। একজন ভালো সমালোচক আপনার সবচেয়ে ভালো বন্ধু। আর প্রিয় সমালোচকগণ আপনার যুক্তি যতোই সঠিক হোক, আগ্রাসী আর অশ্লীল ভাষায় তা প্রমাণ করার চেষ্টা থেকে বিরত থাকুন। বিচার মানি এবং তালগাছটা আমার না, এটাও মানতে শিখতে হবে। পৃথিবীতে আরও অনেক গাছ আছে। ফেসবুক থেকে




সর্বশেষ সংবাদ

সম্পাদক ও প্রকাশক ঃ নাঈমুল ইসলাম খান

১৩২৭, তেজগাঁও শিল্প এলাকা (তৃতীয় তলা) ঢাকা ১২০৮, বাংলাদেশ। ( প্রগতির মোড় থেকে উত্তর দিকে)
ই- মেইল : [email protected]