[১]গরু পাচার বন্ধে ভারতের কঠোর পদক্ষেপে বাংলাদেশের জিডিপি বেড়েছে

আমাদের নতুন সময় : 01/11/2020

মাছুম বিল্লাহ: [২] ভারত-বাংলাদেশ সীমান্ত দিয়ে গরু পাচার ঠেকাতে ভারত সরকার খড়গহস্ত হওয়ার পর বাংলাদেশে এই শিল্পের ব্যাপক বিকাশ হয়েছে। এতে দেশীয় উৎপাদন বৃদ্ধি পাওয়ায় মাথাপিছু মোট দেশজ উৎপাদন বা জিডিপিতে প্রভাব ফেলেছে।
[৩] তুরস্কের টিআরটি ওয়ার্ল্ডে ভারতীয় সাংবাদিক শুভজিৎ বাগচির প্রতিবেদনে এ বিষয়টি উঠে এসেছে। এতে বলা হয়েছে, খামার তৈরি থেকে শুরু করে গরুর বংশবিস্তার, মোটাতাজাকরণ এবং দুধ উৎপাদন-সবকিছুরই বিকাশ হয়েছে বাংলাদেশে।
[৪] বাংলাদেশে গত ২০ বছর ধরে জিডিপি ক্রমাগত বাড়ছে। ২০১৯ সালে আট শতাংশ প্রবৃদ্ধি হয়েছে তাদের। [৫] ইউনাইটেড নেশান্স ইন্ডাস্ট্রিয়াল ডেভলপমেন্ট অর্গানাইজেশানের (ইউএনআইডিও) ২০১৯ সালের রিপোর্টে বলা হয়েছে, ‘আধা ডজনের বেশি দুধ প্রক্রিয়াজাত কোম্পানি এখন দিনে প্রায় ১০ লাখ লিটার দুধ তৈরি করছে, যেটা এক দশক আগের সক্ষমতার চেয়ে দ্বিগুণেরও বেশি’। [৬] এতে আরও বলা হয়েছে, গরুর মাংসের ব্যাপারে ২০১৮ সালে সরকার প্রথমবারের মতো স্বনির্ভরতার ঘোষণা দিয়েছে। ৭.২১ মিলিয়ন টন চাহিদার বিপরীতে উৎপাদন হয়েছে ৭.২৬ মিলিয়ন টন। [৭] বাংলাদেশে বিপুল বেড়েছে। ২০১৬-১৭ সালে দুধ উৎপাদন হয়েছে বছরে ৭.৩ মিলিয়ন মেট্রিন টন। ২০১৮ সালে দুধের উৎপাদন হয়েছে ১০ মিলিয়ন মেট্রিক টন। বাংলাদেশের ডিপার্টমেন্ট অব লাইভস্টক সার্ভিসেস এ তথ্য জানিয়েছে।
[৮] বাংলাদেশ ডেইরি ফার্মার্স অ্যাসোসিয়েশানের সাধারণ সম্পাদক শাহ এমরান বলেন, ভারতের গরু রফতানির নিষেধাজ্ঞা এক হিসেবে বাংলাদেশের জন্য আশীর্বাদ হয়েছে। বাংলাদেশের নিজস্ব উৎপাদন এতে দ্রুত বেড়ে গেছে। সম্পাদনা: শাহানুজ্জামান টিটু, ইকবাল খান




সর্বশেষ সংবাদ

সম্পাদক ও প্রকাশক ঃ নাঈমুল ইসলাম খান

১৩২৭, তেজগাঁও শিল্প এলাকা (তৃতীয় তলা) ঢাকা ১২০৮, বাংলাদেশ। ( প্রগতির মোড় থেকে উত্তর দিকে)
ই- মেইল : [email protected]